0 votes
48 views
in ঈমান ও বিশ্বাস (Faith and Belief) by (47 points)
১. অযুর পর শাহাদাহ আঙ্গুল উঠিয়ে কালেমায়ে শাহাদাত পাঠ করে। এটা সম্পর্কে জানতে চাচ্ছি, কিভাবে আমল করবে? আর অনেকে বলে লা শারি কালাহু বলা লাগে আবার অনেকে বলা যাবে না। তাই আরবীতে সঠিকটা উল্লেখ করে দিয়েন।

২. যেসকল নামাজে উচ্চস্বরে কিরাআত হয়, অনেকে বসে থাকে, রুকুর আগে তাকবীর দিয়ে সালাতে যোগ হয়। বিশেষ করে তারাবীহ সালাত এর সময়। এখন প্রশ্ন হলো, এইভাবে বসে কিরাআত শুনে সালাতে যোগ দেওয়া বেশি সওয়াব হবে নাকি নামাজে আগ থেকেই যোগ দেওয়া?
৩. হানাফী ফিকহ মতে তিলাওয়াতে সিজদাহ এর অনুবাদ পড়লে + শুনলে তাহলে কি সিজদা আদায় ওয়াজিব হবে কিনা?

৪. হাসিমুখে বাবা মায়ের চেহারার দিকে তাকালে কবুল হজের সওয়াব পাওয়া যায়, এটা কি সঠিক?

1 Answer

0 votes
by (469,840 points)

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।
জবাবঃ-
(১)
অজুর পর শাহাদত অঙ্গুলি উঠিয়ে কোনো কিছু পড়া বা জপা, আমাদের জানামতে এ সম্পর্কে বিশুদ্ধ কোনো দলীল প্রমাণ নেই।

(২)
নামাযে প্রথম থেকেই শুরু হতে হবে। প্রথমে বসে কুরআন তিলাওয়াত শ্রবণ করে তারপর নামাযে শরীক হওয়ার কোনো নিয়ম নেই।এতে সওয়াবও তেমন হবে না।

(৩)
ফাতওয়ায়ে হিন্দিয়াতে বর্ণিত আছে
وَفِي الْغِيَاثِيَّةِ وَأَدَاؤُهَا لَيْسَ عَلَى الْفَوْرِ حَتَّى لَوْ أَدَّاهَا فِي أَيِّ وَقْتٍ كَانَ، يَكُونُ مُؤَدِّيًا لَا قَاضِيًا، كَذَا فِي التَّتَارْخَانِيَّة هَذَا فِي غَيْرِ الصَّلَاتِيَّةِ أَمَّا الصَّلَاتِيَّةُ إذَا أَخَّرَهَا حَتَّى طَالَتْ الْقِرَاءَةُ تَصِيرُ قَضَاءً وَيَأْثَمُ، هَكَذَا فِي الْبَحْرِ الرَّائِقِ.
তরজমাঃ- গিয়াছিয়্যাহ নামক কিতাবে বর্ণিত আছে,তেলাওয়াতে সেজদা যেকোনো সময় আদায় করলে আদায়-ই হবে ক্বাযা হবে না।তাতাখানিয়ায় বর্ণিত আছে ইহা নামাজের বাইরে এবং নামাজের ভিতরের হুকুম হচ্ছে যদি আয়াতে সেজদার পর ক্বেরাতকে বেশী লম্বা করা হয় তাহলে ক্বাযা হবে এবং গোনাহ হবে।(১/১৩৫)

কুরআনের আয়াতের তরজমা পড়লে তিলাওয়াতে সিজদা ওয়াজিব হবে না। (কিতাবুল ফাতওয়া-২/৪৪৯)

সু-প্রিয় প্রশ্নকারী দ্বীনী ভাই/বোন!
কুরআনের আয়াতের তরজমা পড়লে তিলাওয়াতে সিজদা ওয়াজিব হবে না। 

(৪)
ما من رجل ينظر إلى والديه نظرة رحمة إلا كتب الله له بها حجة مقبولة مبرورة
উক্ত বর্ণনা সম্পর্কে আলবানি রাহ বলেন যে, এটা মাওযু।


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন। উত্তর না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনি প্রতিমাসে সর্বোচ্চ ৪ টি প্রশ্ন করতে পারবেন।

বি.দ্র: প্রশ্ন করা ও ইলম অর্জনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো সরাসরি মুফতি সাহেবের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করা যেখানে প্রশ্নকারীর প্রশ্ন বিস্তারিত জানার ও বোঝার সুযোগ থাকে। যাদের এই ধরণের সুযোগ কম তাদের জন্য এই সাইট। প্রশ্নকারীর প্রশ্নের অস্পষ্টতার কারনে ও কিছু বিষয়ে কোরআন ও হাদীসের একাধিক বর্ণনার কারনে অনেক সময় কিছু উত্তরে ভিন্নতা আসতে পারে। তাই কোনো বড় সিদ্ধান্ত এই সাইটের উপর ভিত্তি করে না নিয়ে বরং সরাসরি মুফতি সাহেবদের সাথে যোগাযোগ করলে ভালো হয়। অন্যদিকে প্রতিমাসে একাধিকবার আমাদের মুফতি সাহেবগন জুমের মাধ্যমে সরাসরি প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন। সেই ক্লাসগুলোতেও জয়েন করার জন্য অনুরোধ করা গেল। ক্লাসের সিডিউল: fb.com/iomedu.org

Related questions

...