0 votes
13 views
in সালাত(Prayer) by (3 points)
আসসালামু আলাইকুম। আমি নামাজে তাশাহুদ পড়ার সময় আঙ্গুল উঠিয়ে উপর নীচ নরাচরা করাই। আমার পদ্ধতি কি সঠিক? আঙ্গুল উঠানোর সঠিক নিয়মগুলো কি? হানাফি মাজহাব অনুযায়ী এর সঠিক নিয়ম কি? আমার নামাজ কি কবুল হবে? আমার কি গুণাহ হবে? এই নিয়ে এক লোক নামাজ পড়া শেষে আমাকে জিজ্ঞাসা করে আমি কেন এমন করি। আমার চেয়ে বয়সে বড় হওয়ায় বিতর্কে জড়াইনি।

আমি কোনো আলেম নই কিংবা কুরআনের হাফেজ নই। আমি সবার মতো সাধারণ মানুষ। নিজে নিজেই কি কুরআন হাদিস পড়বো? আমার কোনো আলেমের সাথে সম্পর্ক নেই। কিভাবে চললে আমি জান্নাতে যেতে পারবো? উল্লেখ্য, কুরআন হাদিস পড়তে হলে আরবী ভাষা জানা প্রয়োজন। সাধারণ মানুষ হয়ে কিভাবে আরবী ভাষা শিখবো?

1 Answer

0 votes
by (308,080 points)

ওয়া আলাইকুমুস-সালাম ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু।
বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।
জবাবঃ-
https://www.ifatwa.info/1262 নং ফাতাওয়ায় বলেছি যে,
তাশাহুদের মধ্যে 'আশহাদু আন-লা-ইলাহা ইল্লাল্লাহ এর সময়ে শাহাদত অঙ্গুলি উত্তোলন করা সুন্নাত।

পদ্ধতি হল-
সর্বকনিষ্ঠ অঙ্গুলি এবং তার পাশের অঙ্গুলি কে হাতের তালুর সাথে মিলিয়ে রাখা হবে।এবং মধ্যম অঙ্গুলি ও বৃদ্ধাঙ্গুলি দ্বারা গোল করে হালকা বানাবে।অতপর 'আশহাদু আন-লা-ইলাহা' পড়ার সময়ে অঙ্গুলিকে উত্তোলন করবে।(কেননা আশহাদু আন-লা-ইলাহা এর অর্থ হলো,কোনো মা'বুদ নাই।তাই অঙ্গুলি দ্বারা ইশারা করে বুঝাবে আমার আক্বিদা বিশ্বাসে শুধুমাত্র একজন মা'বুদ রয়েছেন,এবং তিনি হলেন,আমার আল্লাহ)

এবং ইল্লাল্লাহ বলার পর অঙ্গুলিকে আস্তে আস্তে আস্তে নামিয়ে ফেলবে।অতঃপর অঙ্গুলি সমূহের এই হালকাকে নামাযের শেষ পর্যন্ত রাখবে।(ফাতাওয়ায়ে মাহমুদিয়্যাহ-৫/৬৩৫) আল্লাহ-ই ভালো জানেন।

নিজে নিজে কুরআন শিখা অত্যান্ত কঠিন কাজ এমনকি অসম্ভব পর্যায়ের কাজ।  সুতরাং আপনি কোনো আলেমের শরণাপন্ন হন,ইনশা'আল্লাহ কামিয়াব হবেন।


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন। উত্তর না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনি প্রতিমাসে সর্বোচ্চ ৪ টি প্রশ্ন করতে পারবেন।

বি.দ্র: প্রশ্ন করা ও ইলম অর্জনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো সরাসরি মুফতি সাহেবের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করা যেখানে প্রশ্নকারীর প্রশ্ন বিস্তারিত জানার ও বোঝার সুযোগ থাকে। যাদের এই ধরণের সুযোগ কম তাদের জন্য এই সাইট। প্রশ্নকারীর প্রশ্নের অস্পষ্টতার কারনে ও কিছু বিষয়ে কোরআন ও হাদীসের একাধিক বর্ণনার কারনে অনেক সময় কিছু উত্তরে ভিন্নতা আসতে পারে। তাই কোনো বড় সিদ্ধান্ত এই সাইটের উপর ভিত্তি করে না নিয়ে বরং সরাসরি মুফতি সাহেবদের সাথে যোগাযোগ করলে ভালো হয়। অন্যদিকে প্রতিমাসে একাধিকবার আমাদের মুফতি সাহেবগন জুমের মাধ্যমে সরাসরি প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন। সেই ক্লাসগুলোতেও জয়েন করার জন্য অনুরোধ করা গেল। ক্লাসের সিডিউল: fb.com/iomedu.org

Related questions

...