+1 vote
134 views
in বিবিধ মাস’আলা (Miscellaneous Fiqh) by (4 points)
কুরআন পড়ার আদব সম্পর্কে জানতে চাই:

১. ওজু ছাড়া সরাসরি কুরআন পড়া যাবে কি?

২. ওজু ছাড়া তাফসির পড়া যাবে কি?

৩. চেয়ার টেবিলে কুরআন পড়া যাবে কি?

৪. শুয়ে শুয়ে কুরআন পড়া যাবে কি?

৫. শুয়ে শুয়ে যে কুরআনে বাংলা পড়া ও আরবি উভয় আছে তা পড়া যাবে কি?

৬. শুয়ে শুয়ে তাফসির পড়া যাবে কি?

৭. বিছানায় শুয়ে হাদীস পড়া যাবে কি না।

1 Answer

+1 vote
by (40,960 points)
বিসমিহি তা'আলা

জবাবঃ-

১. না যাবে না।

২. পড়া যাবে তবে অজু সহকারে পড়াই উত্তম।

৩. জ্বী যাবে।

৪.
কুরআন তেলাওয়াত এবং আল্লাহর যিকির বসা অবস্থায়, হেলান দিয়ে, চিৎ হয়ে শুয়ে তথা সর্ব হলতে করা জায়েয আছে।

যেমন হাদীসে বর্ণিত রয়েছে,

হযরত আয়েশা রাযি থেকে বর্ণিত,তিনি বলেন,

عن أم المؤمنين عائشة رضي الله عنها أنها قالت : كان النبي صلى الله عليه وسلم : ( يَتَّكِئُ فِي حَجْرِي وَأَنَا حَائِضٌ ثُمَّ يَقْرَأُ الْقُرْآنَ )

আমার হায়েয অবস্থায় রাসূলুল্লাহ সাঃ আমার কোলে হেলান দিয়ে কুরআন পড়লেন।

সহীহ বোখারী-২৯৭,সহীহ মুসলিম-৩০১

ইবনে রজব হাম্বলী রাহ বলেন,

"وفي الحديث : دلالة على جواز قراءة القرآن متكئاً ، ومضطجعاً ، وعلى جنبه ، ويدخل ذَلِكَ في قول الله عز وجل : ( الَّذِينَ يَذْكُرُونَ اللَّهَ قِيَاماً وَقُعُوداً وَعَلَى جُنُوبِهِمْ ) آل عمران/191" انتهى .

এই হাদীস দ্বারা বুঝা গেল যে,হেলান দিয়ে,কাৎ হয়ে,চিৎ হয়ে কুরআন তেলাওয়াত জায়েয। এবং এ হুকুম নিম্নোক্ত আয়াত থেকে ও বুঝা যায়।

الَّذِينَ يَذْكُرُونَ اللّهَ قِيَامًا وَقُعُودًا وَعَلَىَ جُنُوبِهِمْ وَيَتَفَكَّرُونَ فِي خَلْقِ السَّمَاوَاتِ وَالأَرْضِ رَبَّنَا مَا خَلَقْتَ هَذا بَاطِلاً سُبْحَانَكَ فَقِنَا عَذَابَ النَّارِ

যাঁরা দাঁড়িয়ে, বসে, ও শায়িত অবস্থায় আল্লাহকে স্মরণ করে এবং চিন্তা গবেষণা করে আসমান ও জমিন সৃষ্টির বিষযে, (তারা বলে) পরওয়ারদেগার! এসব তুমি অনর্থক সৃষ্টি করনি। সকল পবিত্রতা তোমারই, আমাদিগকে তুমি দোযখের শাস্তি থেকে বাঁচাও।সূরা আলে ইমরান-১৯১

(সূত্র ফাতহুল বারী-১/৪০৬)

সু-প্রিয় পাঠকবর্গ!

মূখস্থ থেকে শুয়ে শুয়ে কুরআন তেলাওয়াত করা যাবে।কিন্তু কুরআনকে কারীমকে হাতে নিয়ে বা মুবাইল এ্যাপে কুরআন রেখে শুয়ে শুয়ে তেলাওয়াত করা সালাফদের ত্বরিকা নয়।বিধান জায়েয হলেও শুয়ে শুয়ে তেলাওয়াত না করাই উত্তম।এবং আদবের তাক্বাযা।

৫. আদবের খেলাফ

৬. আদবের খেলাফ

৭. আদবের খেলাফ
আল্লাহ-ই ভালো জানেন।

উত্তর লিখনে

মুফতী ইমদাদুল হক

ইফতা বিভাগ, IOM.

পরিচালক

ইসলামিক রিচার্স কাউন্সিল বাংলাদেশ


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

ﻓَﺎﺳْﺄَﻟُﻮﺍْ ﺃَﻫْﻞَ ﺍﻟﺬِّﻛْﺮِ ﺇِﻥ ﻛُﻨﺘُﻢْ ﻻَ ﺗَﻌْﻠَﻤُﻮﻥَ অতএব জ্ঞানীদেরকে জিজ্ঞেস করো, যদি তোমরা না জানো। সূরা নাহল-৪৩

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন।

Related questions

...