0 votes
111 views
in Salah (Prayer) by
আমার বাবা চাকরিসূত্রে পরিবার নিয়ে বিদেশ থাকেন। আমিও কয়েকবছর ছিলাম। এখন পড়াশুনার জন্য দেশে থাকি। পাঁচ মাস পর পর ১০ দিনের জন্য পরিবারের কাছে যাই। সে সময় কি আমি সেখানে মুসাফির থাকবো?

1 Answer

0 votes
by (2.6k points)
সমাধানঃ-
কখন মুসাফির আবার কখন মুক্বিম সেটা বুঝার জন্য প্রথমেই আমাদেরকে কিছু ফেকহী মূলনীতি বুঝতে হবে,,,,,,

والوطن الأصلي هو الذي ولد فيه" الإنسان "أو تزوج" فيه "أو لم يتزوج" ولم يولد فيه "و" لكن "قصد التعيش لا الارتحال عنه ووطن الإقامة موضع" صالح لها على ما قدمناه وقد "نوى الإقامة فيه نصف شهر فما فوقه"

ওয়াতানে আসলীঃ

ঐ স্থান যেখানে মানুষ জন্মগ্রহণ করেছে,অথবা বিয়ে করেছে,অথবা জন্মগ্রহণ ও করেনি এবং বিয়ে ও করেনি তবে সেখানে স্থায়ীভাবে বসবাসের দৃঢ়তর  ইচ্ছা পোষণ করেছে,সেখান থেকে সে অন্য কোথা যাবে না।এমন স্থানকে ওয়াতানে আসলী বলে।

ওয়াতানে ইক্বামাহঃ

যেখানে অস্থায়ীভাবে ১৫দিনের বেশী সময় অবস্থানের নিয়ত করেছে।সে স্থানকে ওয়াতানে ইক্বামাহ বলে।

মারাক্বিল ফালাহ-১/১৬৫

ويبطل الوطن الأصلي بالوطن الأصلي إذا انتقل عن الأول بأهله وأما إذا لم ينتقل بأهله ولكنه استحدث أهلا ببلدة أخرى فلا يبطل وطنه الأول ويتم فيهما............

......ولو انتقل بأهله ومتاعه إلى بلد وبقي له دور وعقار في الأول قيل: بقي الأول وطنا له وإليه أشار محمد - رحمه الله تعالى - في الكتاب،

ওয়াতানে আসলী ভিন্ন ওয়াতানে আসলী দ্বারা বাতিল হয়ে যায়।(তথা পরবর্তীতে কোনো স্থানকে ওয়াতানে আসলী বানালে পূর্ববর্তী ওয়াতানে আসলী বাতিল হয়ে যায়)

তবে যদি কেউ পূর্ববর্তী বাসস্থান থেকে পরিবারবর্গ কে না সরায়,এবং ভিন্ন শহরে নতুন কোনো পরিবারবর্গকে স্থায়ীভাবে বসবাসের জন্য নির্ধারণ করে(অথবা দ্বিতীয় বাসস্থানে বর্তমান অবস্থানস্থল থাকলেও প্রথমটিকে বিক্রি করে দেয়া হয়নি,বরং মাঝেমধ্যে এখানে আসা হয়)তবে প্রথম বাসস্থান বাতিল হবে না।

এ সময় উভয় বাসস্থান-ই ওয়াতানে আসলী হিসেবে গণ্য হবে।এবং উক্ত দুই স্থানেই পূর্ণ নামায পড়া হবে।

ফাতাওয়ায়ে হিন্দিয়া;১/১৪২

ফাতাওয়ায়ে রহিমিয়্যাহ-৫/১৭৬

ووطن الإقامة يبطل بوطن الإقامة وبإنشاء السفر وبالوطن الأصلي، هكذا في التبيين.

ওয়াতানে ইক্বামাহ ভিন্ন ওয়াতানে ইক্বামাহ বা ওয়াতানে আসলী বা সফর শুরুর মাধ্যমে বাতিল হয়ে যায়।

ফাতাওয়ায়ে হিন্দিয়া;১/১৪২

আপনি পিতা মাতা তথায় মুক্বিম।

সুতরাং বিদেশ আপনার ওয়াতানে আসলী নয়।

তাই ১৫ দিন বা তার চেয়ে বেশী সময় অবস্থানের নিয়ত করলে আপনাকে পূর্ণ নামায পড়তে হবে।

অন্যথায় কসর পড়তে হবে।

জাযাকাল্লাহ।

আল্লাহ-ই ভালো জানেন।

মুফতী ইমদাদুল হক

পরিচালক

ইসলামিক রিচার্স কাউন্সিল বাংলাদেশ।

সিলেট বাংলাদেশ।
Welcome to Islamic Fatwa, a siser concern of Islamic Online Madrasah(IOM), where you can ask any Islamic questions and receive answers from dedicated scholars.
...