আইফতোয়াতে ওয়াসওয়াসা সংক্রান্ত প্রশ্নের উত্তর দেওয়া হবে না। ওয়াসওয়াসায় আক্রান্ত ব্যক্তির চিকিৎসা ও করণীয় সম্পর্কে জানতে এখানে ক্লিক করুন

0 votes
59 views
in বিবিধ মাস’আলা (Miscellaneous Fiqh) by (11 points)
closed by
আসসালামু আলাইকুম,

সরকারি একটা প্রতিষ্ঠান, একটি বিষয়ের উপর প্রশিক্ষণ দেয়। কিন্ত এই প্রশিক্ষণে চান্স পাওয়ার জন্য অনলাইনে একটা পরীক্ষা দিতে হয় এবং চান্স পাইলে ভর্তি ফি দিয়ে ভর্তি হতে হয়। এবার, এই প্রশিক্ষণের জন্য আবেদন কারি ছিলো ৩০০ জন এর উপরে, কিন্ত তারা নেয় প্রায় ৬৭ জন।

আমি পরীক্ষা দেওয়ার সময়, দুর্বল ঈমানের অধিকারী হওয়ায়, আমি পরীক্ষার অধিকাংশ উত্তর ইন্টারনেট থেকে বা অন্য কোন ভাবে বের করে দিয়ে দেই (আমি কোন মানুষের সাহায্য নেই নি)। পরীক্ষার আগে বা অন্য কোন যায়গায় (এই পরীক্ষা সংক্রান্ত নির্দেশাবলী তে) আমি দেখি নাই যে, অন্যের সাহায্য নেওয়া যাবে না, বা ইন্টারনেটের সাহায্য নেওয়া যাবে না।

এখন, রেসাল্টে আমার নাম এসেছে। প্রশিক্ষণ টা আমার দরকার ছিলো। হতে পারে ভবিষ্যতে আমার চাকরী তে সাহায্য করবে। আমার কি এই প্রশিক্ষনে ভর্তি হওয়া উচিত হবে? ভর্তি হলে কি অন্যের হক নষ্ট কারি হয়ে যাবো? এখন আমার কি করার আছে?
closed

1 Answer

0 votes
by (709,320 points)
selected by
 
Best answer
বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।
জবাবঃ-
আলহামদুলিল্লাহ!
ধোকা এবং প্রতারণা সম্পর্কে হাদীসে ধমকি বর্ণিত হয়েছে,হযরত আবু-হুরায়রা রাযি থেকে বর্ণিত,
عن أبي هريرة رضي الله عنه أن رسول الله صلى الله عليه وسلم قال : ( مَنْ حَمَلَ عَلَيْنَا السِّلَاحَ ، فَلَيْسَ مِنَّا ، وَمَنْ غَشَّنَا ، فَلَيْسَ مِنَّا ) 
রাসূলুল্লাহ সাঃ বলেন-
যে ব্যক্তি আমরা মুসলমানদের বিরুদ্ধে অস্র ধরলো, সে আমাদের অন্তর্ভুক্ত নয়।এবং যে কাউকে ধোকা দিলো সেও আমাদের অন্তর্ভুক্ত নয়।(সহীহ মুসলিম-১৪৬)

সু-প্রিয় প্রশ্নকারী দ্বীনী ভাই/বোন!
ধোকা প্রতারণা হারাম।কিন্তু প্রশ্নে বর্ণিত সূরতে ধোকা প্রতারণার কিছুই খুজে পাওয়া যাচ্ছে না। সুতরাং বর্ণিত পদ্ধতিতে পরীক্ষার পদ্ধতি গ্রহণ করতে যেকোনো মাধ্যমেকে ব্যবহার করতে পারবেন।


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন। উত্তর না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনি প্রতিমাসে সর্বোচ্চ ৪ টি প্রশ্ন করতে পারবেন। এই প্রশ্ন ও উত্তরগুলো আমাদের ফেসবুকেও শেয়ার করা হবে। তাই প্রশ্ন করার সময় সুন্দর ও সাবলীল ভাষা ব্যবহার করুন।

বি.দ্র: প্রশ্ন করা ও ইলম অর্জনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো সরাসরি মুফতি সাহেবের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করা যেখানে প্রশ্নকারীর প্রশ্ন বিস্তারিত জানার ও বোঝার সুযোগ থাকে। যাদের এই ধরণের সুযোগ কম তাদের জন্য এই সাইট। প্রশ্নকারীর প্রশ্নের অস্পষ্টতার কারনে ও কিছু বিষয়ে কোরআন ও হাদীসের একাধিক বর্ণনার কারনে অনেক সময় কিছু উত্তরে ভিন্নতা আসতে পারে। তাই কোনো বড় সিদ্ধান্ত এই সাইটের উপর ভিত্তি করে না নিয়ে বরং সরাসরি স্থানীয় মুফতি সাহেবদের সাথে যোগাযোগ করতে হবে।

Related questions

...