0 votes
8 views
in ঈমান ও বিশ্বাস (Faith and Belief) by (48 points)
হাদীসে আছে ইসমে আজম পড়ে দোয়া করলে সেই দোয়া কবুল হয়। এখন সাধারনট আমরা যখন দোয়া করতে বসি তখন একসাথে অনেক দোয়া করি। আমার প্রশ্ন হচ্ছে , প্রতিটি দোয়ার শুরুতেই ইসমে আজম পড়তে হবে নাকি একবার ইসমে আজম পড়ে একসাথে সবগুলো দোয়া পড়লে হবে?

1 Answer

0 votes
by (34,560 points)
জবাব
بسم الله الرحمن الرحيم 

হাদীস শরীফে এসেছে যে ইসমে আজম পড়ে দোয়া করলে আল্লাহ তায়ালা সেই দোয়া কবুল করেন
সুতরাং ইসমে আজম পড়ার পর যেকোনো বৈধ দোয়া করলেই আশা করা যায় যে সেটা আল্লাহ তায়ালা কবুল করবেন। 
চাই তাহা একাধিক দোয়া হোকনা কেনো।
,
★সুতরাং প্রশ্নে উল্লেখিত ছুরতে একবার ইসমে আজম পড়ে একসাথে সবগুলো দোয়া পড়লে হবে।
,
ইসমে আজম কোনটি,এই ব্যাপারে উলামায়ে কেরামদের মাঝে মতবিরোধ রয়েছে। 
,      
ইসমে আজম কিছু উলামায়ে কেরামগন  لا الہ الا ھو الحی القیوم বলেছেন।
কিছু উলামায়ে কেরাম  یا حی یا قیوم বলেছেন।
কিছু উলামায়ে কেরাম  "رب رب" কিছু উলামায়ে কেরাম  اللہ বলেছেন।
কিছু উলামায়ে কেরাম لا الہ الا انت سبحانک انی کنت من الظالمین" বলেছেন।
,
অবশ্য ইসমে আজমের ব্যাপারে মুহাক্কিকদের কথা হলো এই ব্যাপারে নির্দিষ্ট৷ আকারে বলা মুশকিল।
(ফাতাওয়ায়ে উসমানী ১/১৮১)

مشوٰۃ المصابیح ۱/۱۹۹: عن انسؓ قال کنت جالسا مع النبی  فی المسجد و رجل یصلی فقال: اللھم انی اسئلک بان لک الحمد لا الہ الا انت الحنان المنان بدیع السموت و الارض یا ذا الجلا و الاکرام یا حی یا قیوم اسألک، فقال النبی ﷺ دعا اللہ باسمہ الاعظم الذی اذا دعی نہ اجاب و اذا سئل بہ اعطی، رواہ الترمذی و ابو داؤد و النسائی و ابن ماجہ۔ 

হজরত আনাস ইবনে মালেক (রা.) থেকে বর্ণিত, 
তিনি বলেন যে এববার আমি বসা ছিলাম,এমতাবস্থায় একজন ব্যাক্তি নামাজ পড়তেছিলো।  
দোয়াতে তিনি বলছিলেন, 
اللھم انی اسئلک بان لک الحمد لا الہ الا انت الحنان المنان بدیع السموت و الارض یا ذا الجلا و الاکرام یا حی یا قیوم اسألک، 
 তখন রাসুল (সা.) তাঁকে বললেন, 'তুমি আল্লাহর দরবারে ইসমে আজমের মাধ্যমে দোয়া করেছ, যার মাধ্যমে দোয়া করলে আল্লাহ তাআলা কবুল করেন এবং কিছু চাইলে তা দান করেন।' (মুসনাদে আহমদ : ১২২০৫)

হজরত আনাস (রা.) সূত্রে বর্ণিত : একবার রাসুল (সা.) মসজিদে প্রবেশ করেছেন। এমতাবস্থায় এক লোক নামাজ শেষে এ দোয়া করছিলেন, 
اللھم انی اسئلک بان لک الحمد لا الہ الا انت الحنان المنان بدیع السموت و الارض یا ذا الجلا و الاکرام یا حی یا قیوم اسألک، 
তখন রাসুল (সা.) তাঁকে বললেন, ''তুমি জানো, তুমি কি দিয়ে দোয়া করেছ? তুমি দোয়া করেছ 'ইসমে আজম' দিয়ে, যা দ্বারা দোয়া করলে আল্লাহ কবুল করেন এবং তা দ্বারা কিছু চাইলে আল্লাহ তা প্রদান করেন।'' (সুনানে তিরমিজি : ৩৫৪৪)

و فیہ ایضاً ۱/۲۰۰: عن اسماء بنت یزید ان النبی ﷺ قال اسم اللہ الاعظم فی ھاتین الآیتین الھکم الہ واحد لا الہ الا ھو الرحمن الرحیم وفاتحۃ ال عمران الم اللہ لا الہ الا ھو الحی القیوم۔ رواہ الترمذی و ابو داؤد و ابن ماجہ و الدارمی۔
হজরত আসমা বিন ইয়াজিদ (রা.) সূত্রে বর্ণিত, রাসুল (সা.) ইরশাদ করেন, 'ইসমে আজম এই দুটি আয়াতের মধ্যে নিহিত। সুরা বাকারার ৩৬১ নম্বর আয়াত এবং সুরা আল ইমরানের ১ নম্বর আয়াত।' (সুনানে আবি দাউদ : ১৪৯৬)

মিরকাত গ্রন্থে আছেঃ 
 و فی المرقاۃ وقال ابو جعفر الطبرانیؒ اختلفت الآثار فی تعیین الاسم الاعظم و عندی ان الاقوال کلھا صحیحۃ اذ لم یرد فی خبر منھا انہ الاسم الاعظم ص۱۰۲ ج۵۔
যার সারমর্ম হলো ইসমে আজম নির্দিষ্ট করার ব্যাপারে উলামায়ে কেরামদের মাঝে মতবিরোধ রয়েছে।,,,        


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

------------------------
মুফতী ওলি উল্লাহ
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

ﻓَﺎﺳْﺄَﻟُﻮﺍْ ﺃَﻫْﻞَ ﺍﻟﺬِّﻛْﺮِ ﺇِﻥ ﻛُﻨﺘُﻢْ ﻻَ ﺗَﻌْﻠَﻤُﻮﻥَ অতএব জ্ঞানীদেরকে জিজ্ঞেস করো, যদি তোমরা না জানো। সূরা নাহল-৪৩

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন।

Related questions

...