0 votes
43 views
in পরিবার,বিবাহ,তালাক (Family Life,Marriage & Divorce) by (48 points)
edited by
আসসামুআলাইকুম ওরাহমাতুল্লা।

১।আমি একজন মহিলা।আমি কেনায়া তালাক সম্পর্কে আগে জানতাম না।জানার পর থেকে আগের গুলো যা মনে পড়ে তা আপনাদের কাছে জিগ্যেস করি।কারন মেসেজে বা ফোনে কথা হয় স্বামীর সাথে।কারন আমাকে এখনো নামিয়ে নেয় নি। তাই সব কথা মনে থাকে না।মনে করার চেস্টা করলেও আমার মনে  হয় যে কথাগুলো গুলিয়ে যাচ্ছে একদিনের সাথে অন্য দিনের।আবার মাঝে মাঝে ভয় হয় কোন আমি ইচ্ছে করে কিছু  মনে না করার চেস্টা করতেছি না তো এটা ভেবে।কেনায়া তালাক সম্পর্কে জানার পর থেকে যখনই এমন কিছু হয় আমি এখানে প্রশ্ন করি।কিন্তুু পরে গিয়ে  মনে হয় সব ক্লেয়ার ভাবে প্রশ্ন করছি কিনা নাকি কিছু বাদ গেছে।এভাবে কিছু প্রশ্ন কয়েকবার করে করেছি।তবু পরে গিয়ে আবার টেনশনে পড়ে যায়।সব কিছু বলেছি তহ।নাকি এটা বলি নি নাকি ওটা বলি নি এসব চিন্তা মনে চলে আসে।কিন্তুু  অনেক সময় পর হয়ে যাওয়ায় সব ক্লেয়ারলি মনেও থাকে না।যখন যেটা নিয়ে মনে সন্দেহ আসে জিগ্যেস করি।তবু ভয় লাগে  মনে হয় আমার গুণাহ হচ্ছে। আমি কিছুতেই শান্তি পায় না।সবসময় মনে হয় আমার মত পাপী হয়ত কেও নেই।কান্না চলে আসে।আল্লাহর কাছে সবসময় মাফ চায়।কবরের আযাবের কথা  মনে আসে। দুনিয়ার কিছুই ভাল লাগে না।মনে হয় এগুলো কিছুই আমার সাথে যাবে না।সবসময় ভয়ে থাকি কোন যেনা হচ্ছে কিনা ভেবে।আবার ভয় হয় ইচ্ছে করে কিছু লুকোচ্চি কিনা ভেবে।আপনাদের  প্রশ্ন করার পর ও  মনে হয় সব কিছু বলি নি।জানি না।আমার যদ্দুর মনে আসে তা বলি।কিন্তুু পরে গিয়ে আবার চিন্তায় পরে যায়।প্রায় ৫ মাস ধরে আমি এ সমস্যাই। আমার কি গুণাহ হবে ভালভাবে প্রশ্ন করতে না পারলে বা আপনাদের সব কিছু বুঝিয়ে না বলতে পারলে? নাকি এগুলো শয়তানের ওয়াসওয়াসা?  আমার আশেপাশে কোন মুফতি আছে কিনা জানি না কাউকে আমি চিনি না।আর আমি কাউকে বুঝিয়ে কথা বলতে পারি না।সব মনেও থাকে না তখন।গুছিয়ে কথা বলতে পারি না।যা মনে আসে তা বলি।

আমার সবসময় কবরের আযাবের ভয় হয়। সবসময়।আমি ভাবি মানুষ তওবা করলে মাফ করে দেয় আল্লাহ।কিন্তুু আমি ভাবি আমি কি বলে তওবা করব? সবসময় তহ করি কিন্তুু আমি জানি না যেনা হচ্ছে কিনা কোন স্বামীর সাথে,কোনদিন তালাক হয়েছে কিনাও জানি না।যদি সারাজীবন যেনার গুণাহ হয় আমি কি করব? আমি কি বলে তওবা করব।সবসময় ভয় লাগে এটা নিয়ে আমার।মনে হয় মরলেই আমি জাহান্নামি। এটা নিয়ে বেশি ভয় পায়।কান্নাকাটি করি বেশি এটা নিয়ে আল্লাহর কাছে।কি করব আমি নিজেই বুঝতে পারতেছি না।

২।কোন স্ত্রী যদি প্রশ্ন করে স্বামীকে আমার মা বাবার দিকে তাকিয়ে আমাকে ভুলে যেতে পারবা? এটা কি তালাক চাওয়া বুঝাবে নাকি প্রশ্ন করা বুঝাবে?

1 Answer

0 votes
by (331,520 points)
জবাব
وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته 
بسم الله الرحمن الرحيم 


আল্লাহ তা'আলা বলেন,

يَا أَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُوا لَا تَسْأَلُوا عَنْ أَشْيَاءَ إِن تُبْدَ لَكُمْ تَسُؤْكُمْ وَإِن تَسْأَلُوا عَنْهَا حِينَ يُنَزَّلُ الْقُرْآنُ تُبْدَ لَكُمْ عَفَا اللَّهُ عَنْهَا ۗ وَاللَّهُ غَفُورٌ حَلِيمٌ

হে মুমিণগন, এমন কথাবার্তা জিজ্ঞেস করো না, যা তোমাদের কাছে পরিব্যক্ত হলে তোমাদের খারাপ লাগবে। যদি কোরআন অবতরণকালে তোমরা এসব বিষয় জিজ্ঞেস কর, তবে তা তোমাদের জন্যে প্রকাশ করা হবে। অতীত বিষয় আল্লাহ ক্ষমা করেছেন আল্লাহ ক্ষমাশীল, সহনশীল। (সূরায়ে মায়েদা-১০১-১০২)

হযরত আবু হুরায়রা রাযি থেকে বর্ণিত তিনি বলেন,
عن أبي هريرة رضي الله عنه قال : سمعت رسول الله صلى الله عليه وسلم يقول : ما نهيتكم عنه ، فاجتنبوه ، وما أمرتكم به فأتوا منه ما استطعتم ، فإنما أهلك الذين من قبلكم كثرة مسائلهم واختلافهم على أنبيائهم . رواه البخاري ومسلم .
আমি রাসূলুল্লাহ সাঃ কে বলতে শুনেছি যে,তিনি বলেন, আমি তোমাদেরকে যে সমস্ত জিনিষ থেকে নিষেধ করেছি, সে সমস্ত জিনিষ থেকে বিরত থাকো,এবং যে সমস্ত জিনিষের আদেশ করেছি, যথাসম্ভব সেগুলো পালন করার চেষ্টা করো। তোমাদের পূর্ববর্তীগণ তাদের অধিক প্রশ্ন এবং মতপার্থক্যর কারণেই ধংস হয়েছে।(বোখারী-মুসলিম)

প্রিয় প্রশ্নকারী দ্বীনি বোন, 
(০১)
তালাক সংক্রান্ত আপনার বিগত যাবতীয় প্রশ্ন গুলোর আলোকে বিজ্ঞ মুফতি সাহেবগন বলেছেন যে তালাক হয়নি।

সুতরাং আপনি নিশ্চিন্তে সংসার চালিয়ে যাবেন।
আপনি এখন শয়তানের ওয়াসওয়াসায় রয়েছেন।
এগুলোকে পাত্তা দেয়া যাবেনা।
এভাবেই সংসার চালিয়ে গেলে আপনাদের কোনো গুনাহ হবেনা।
বৈধ সংসার আলহামদুলিল্লাহ। 

(০২)
এটা তালাক চাওয়া বুঝাবেনা।
প্রশ্ন করা বুঝাবে।       


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

------------------------
মুফতী ওলি উল্লাহ
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন। উত্তর না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনি প্রতিমাসে সর্বোচ্চ ৪ টি প্রশ্ন করতে পারবেন।

বি.দ্র: প্রশ্ন করা ও ইলম অর্জনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো সরাসরি মুফতি সাহেবের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করা যেখানে প্রশ্নকারীর প্রশ্ন বিস্তারিত জানার ও বোঝার সুযোগ থাকে। যাদের এই ধরণের সুযোগ কম তাদের জন্য এই সাইট। প্রশ্নকারীর প্রশ্নের অস্পষ্টতার কারনে ও কিছু বিষয়ে কোরআন ও হাদীসের একাধিক বর্ণনার কারনে অনেক সময় কিছু উত্তরে ভিন্নতা আসতে পারে। তাই কোনো বড় সিদ্ধান্ত এই সাইটের উপর ভিত্তি করে না নিয়ে বরং সরাসরি মুফতি সাহেবদের সাথে যোগাযোগ করলে ভালো হয়। অন্যদিকে প্রতিমাসে একাধিকবার আমাদের মুফতি সাহেবগন জুমের মাধ্যমে সরাসরি প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন। সেই ক্লাসগুলোতেও জয়েন করার জন্য অনুরোধ করা গেল। ক্লাসের সিডিউল: fb.com/iomedu.org

Related questions

...