0 votes
14 views
in বিবিধ মাস’আলা (Miscellaneous Fiqh) by (7 points)

১। আল্লাহ আমাদের যে কল্যাণ এর জন্য যা কিছু সৃষ্টি করেছেন এবং আমাদের হায়াত বৃদ্ধি তার সাথে আরো যেগুলো বরকত দিয়েছেন সেই ক্ষেত্রে আল্লাহর নেয়ামত এবং বরকত রয়েছে সেটা আল্লাহর সিফাতী গুণ হবে কি ?

২।অনেকে রোজা রাখে যুদি তার পরিক্ষা ভাল হয় বা তার কোন কাজ হয়ে যায় এরকম কারনে কি রোজা রাখা জায়েজ হবে ?

৩। কেউ যুদি নিজেকে সয়তান বলে রাগের বসে তাহলে সে কি তখন কাফের হয়ে যাবে নাকি শুধু কবিরা গুনাহ হবে ? 

1 Answer

0 votes
by (8,320 points)


বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।

জবাবঃ

আল্লাহ তায়ালা বলেন-

إِنَّ اللَّهَ هُوَ الرَّزَّاقُ ذُو الْقُوَّةِ الْمَتِينُ

 

আল্লাহ তা’আলাই তো জীবিকাদাতা শক্তির আধার, পরাক্রান্ত। (সূরা যারিয়াত, আয়াত ৫৮)

 

তিনি ইরশাদ করেন-

زُيِّنَ لِلَّذِينَ كَفَرُوا الْحَيَاةُ الدُّنْيَا وَيَسْخَرُونَ مِنَ الَّذِينَ آمَنُوا ۘ وَالَّذِينَ اتَّقَوْا فَوْقَهُمْ يَوْمَ الْقِيَامَةِ ۗ وَاللَّهُ يَرْزُقُ مَن يَشَاءُ بِغَيْرِ حِسَابٍ

 

পার্থিব জীবনের উপর কাফেরদিগকে উম্মত্ত করে দেয়া হয়েছে। আর তারা ঈমানদারদের প্রতি লক্ষ্য করে হাসাহাসি করে। পক্ষান্তরে যারা পরহেযগার তারা সেই কাফেরদের তুলনায় কেয়ামতের দিন অত্যন্ত উচ্চমর্যাদায় থাকবে। আর আল্লাহ যাকে ইচ্ছা সীমাহীন রুযী দান করেন। (সূরা বাকারা, আয়াত ২১২)

 

সু-প্রিয় প্রশ্নকারী দ্বীনী ভাই/বোন!

 

১. হ্যাঁ, আল্লাহ আমাদের যে কল্যাণ দিচ্ছেন ও তিনি আমাদেরকে সৃষ্টি করেছেন এবং আমাদের হায়াত বৃদ্ধি তার সাথে আরো যেগুলো বরকত দিয়েছেন সেই ক্ষেত্রে আল্লাহর নেয়ামত এবং বরকত রয়েছে । এগুলো সব আল্লাহর সিফাতী গুণের কারণেই তিনি আমাদেরকে দিচ্ছেন।

২. হ্যাঁ, পরীক্ষা ভালোর জন্য নফল রোজা জায়েজ।

৩. নিজেকে শয়তান বলা ডাকা ঠিক নয়। তবে যদি কেউ রাগের মাথায় নিজেকে শয়তান বলে তাহলে সে কাফের হয়ে যাবে না।


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী আব্দুল ওয়াহিদ
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন। উত্তর না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনি প্রতিমাসে সর্বোচ্চ ৪ টি প্রশ্ন করতে পারবেন।

বি.দ্র: প্রশ্ন করা ও ইলম অর্জনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো সরাসরি মুফতি সাহেবের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করা যেখানে প্রশ্নকারীর প্রশ্ন বিস্তারিত জানার ও বোঝার সুযোগ থাকে। যাদের এই ধরণের সুযোগ কম তাদের জন্য এই সাইট। প্রশ্নকারীর প্রশ্নের অস্পষ্টতার কারনে ও কিছু বিষয়ে কোরআন ও হাদীসের একাধিক বর্ণনার কারনে অনেক সময় কিছু উত্তরে ভিন্নতা আসতে পারে। তাই কোনো বড় সিদ্ধান্ত এই সাইটের উপর ভিত্তি করে না নিয়ে বরং সরাসরি মুফতি সাহেবদের সাথে যোগাযোগ করলে ভালো হয়। অন্যদিকে প্রতিমাসে একাধিকবার আমাদের মুফতি সাহেবগন জুমের মাধ্যমে সরাসরি প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন। সেই ক্লাসগুলোতেও জয়েন করার জন্য অনুরোধ করা গেল। ক্লাসের সিডিউল: fb.com/iomedu.org

Related questions

...