আইফতোয়াতে ওয়াসওয়াসা সংক্রান্ত প্রশ্নের উত্তর দেওয়া হবে না। ওয়াসওয়াসায় আক্রান্ত ব্যক্তির চিকিৎসা ও করণীয় সম্পর্কে জানতে এখানে ক্লিক করুন

0 votes
30 views
in হালাল ও হারাম (Halal & Haram) by (6 points)
মুহতারাম মুফতি সাহেব,
আসসালামু আলাইকুম ।
১.
 নিজের শখ পূরণের জন্য কারো কাছ থেকে বিড়াল, খরগোশ, কবুতর,ঘুঘু, কোয়েল, বিভিন্ন শৌখিন পাখি, অ্যাকুয়ারিমের মাছ ৭ দিন/ ১০ দিন বা কোন একটি নির্দিষ্ট সময়ের জন্য ভাড়া করে এনে নিজের কাছে এনে রাখা জায়েয হবে কী না? আমার বাসায় স্থায়ীভাবে বিড়াল, খরগোশ,  পাখি এগুলো পুষতে দেয় না ।  ভেবেছি কয়েকদিনের জন্য কারো পোষা বিড়াল, খরগোশ, টিয়া পাখি ইত্যাদি বিনা মূল্যে  না পেলে প্রয়োজনে ভাড়া করে এনে পুষব শখ পূরণের জন্য ।
এটা আমার জন্য জায়েয হবে কী?

২.
ধরুন, আমার স্ত্রীর কাছে আমি বিভিন্ন সময়ে প্রয়োজনবশত  ৯৭৮ টাকা পর্যন্ত নিয়েছি ।   টাকাটা তাকে ফেরত দেয়ার সময়ে পূর্ণ ১০০০ টাকা দিয়েছি । তিনি বেশি টাকা দাবী করেননি ।  এই যে ২২ টাকা তাকে বেশি দিয়েছি এটা কী সুদ  হবে? আমি মনে মনে এরকম নিয়্যাত করেছিলাম যে,  তাকে ৯৭৮ টাকাই ফেরত দিলাম আর এই ২২ টাকা তাকে উপহার হিসেবে দিলাম ।  এরকম নিয়্যাত কী গ্রহণযোগ্য?
৩.
অনেক সময়ে রিকশাওয়ালাগণ ৮০/ ৯০  টাকার ভাড়া একটু বাড়িয়ে দেয়ার অনুরোধ করেন ।  যদিও ঐ দূরত্বে ৮০/৯০ টাকাই ন্যায্য ভাড়া । এখন কোন ব্যাক্তি যদি ঐ রিকশাওয়ালাকে বলেন যে, আমি আপনাকে ৮০ বা ৯০ টাকাই ভাড়া দিব ৷ রিকশাওয়ালাও দর কষাকষিতে এক পর্যায়ে রাজি হন ।
কিন্তু পরে ভাড়া দেয়ার সময়ে মানবিক কারণে প্যাসেঞ্জার ১০০ টাকাই দেন এ নিয়্যাতে যে, ৮০ টাকা বা ৯০ টাকা পারিশ্রমিক হিসেবে এবং অতিরিক্ত  টাকাটি তিনি সাদাকাহ হিসেবে দিচ্ছেন ।
 
ক. এরূপ নিয়্যাতের কারণে প্যাসেঞ্জার কী সাদাকাহর কোন সওয়াব পাবেন?
খ. ৮০/৯০ টাকা দিতে চেয়ে ১০০ টাকা দিলে কী এক্ষেত্রে বিষয়টি কী ওয়াদার খেলাফ বলে সাব্যস্ত হবে?

৪.
কী রকম শব্দ বা বাক্য দ্বারা ওয়াদা সাব্যস্ত হয়?
যেমন: নিচের কোন বাক্য বা কথাগুলোর ক্ষেত্রে  ওয়াদা সাব্যস্ত হবে?
ক.  আমি আপনাকে আগামীকালকে অমুক বিষয়ে  জানাবো ,
খ. আমি আপনাকে আগামীকালকে অমুক বিষয়ে  জানাবো ইনশা আল্লাহ ,

গ. আশা করছি যে আমি আপনাকে আগামীকালকে অমুক বিষয়ে  জানাবো ,

ঘ. ওয়াল্লাহি/ আল্লাহর শপথ, আমি আপনাকে আগামীকালকে অমুক বিষয়ে  জানাবো ,

ঙ. শপথ করলাম/ ওয়াদা করলাম, আমি আপনাকে আগামীকালকে অমুক বিষয়ে  জানাবো,
চ. আমি আপনাকে আগামীকালকে অমুক বিষয়ে  জানাবোই জানাবো ।
৫.
নিউ ইয়ার, থার্টি ফার্স্ট নাইট, ভ্যালেন্টাইন ডে, বাংলা নববর্ষ, পহেলা ফাল্গুন, ব্ল্যাক ফ্রাইডে, মুশরিকদের কোন পুজা ইত্যাদি উপলক্ষে বিভিন্ন পণ্যে যেসব  ডিসকাউন্ট বা অফার দেয়া হয়,  টাকা বাঁচানোর উদ্দেশ্যে কোন মুসলিম কী সেসব ডিসকাউন্টের সুযোগ/ অফার নিতে পারবে?
৬.
উপরের ৫ নং প্রশ্নে উল্লিখিত ভিন্ন ধর্মাবলম্বী / বিজাতীয়দের বিভিন্ন উৎসবের দিন বা ঐ উৎসবগুলোর আগের দিন কোন মুসলিম যদি তাঁর দোকান (ফুলের, কেক, মিষ্টির দোকান, গিফট শপ, হোটেল, খাবারের দোকান, অনলাইন ডেলিভারি) এ উদ্দেশ্যে বন্ধ রাখেন যে তাঁর দোকান থেকে ক্রয়কৃত পণ্য দ্বারা মুশরিকরা / পথভ্রষ্টরা হয়তো তাদের উৎসব আরো ভালোভাবে উদযাপনের সুযোগ পাবে তবে -

ক. এটা কী তাঁর তাকওয়া বলে বিবেচিত হবে না কী তা বাড়াবাড়ি বলে বিবেচিত হবে?
খ. যেহেতু দোকান চালু রাখলে মুসলিম ক্রেতারাও উপকার পাওয়ার সুযোগ রাখেন সেক্ষেত্রে দোকানগুলো আমভাবে চালু রাখলে কী গুনাহে সহযোগিতা করা হবে?

1 Answer

0 votes
by (681,160 points)

ওয়া আলাইকুমুস-সালাম ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু।
বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।
জবাবঃ-
আলহামদুলিল্লাহ!
(১)
 হ্যা ভাড়া নিয়ে পোষা প্রাণী লালন পালন করতে পারবেন। তবে শর্ত হল, প্রাণীর সকল রকম প্রয়োজন পূরণ করতে হবে।

(২)
হযরত আবু হুরায়রা রাযি থেকে বর্ণিত
عن ﺃَﺑِﻲ ﻫُﺮَﻳْﺮَﺓَ ﺭَﺿِﻲَ ﺍﻟﻠَّﻪُ ﻋَﻨْﻪُ ﻗَﺎﻝَ : ﻛَﺎﻥَ ﻟِﺮَﺟُﻞٍ ﻋَﻠَﻰ ﺍﻟﻨَّﺒِﻲِّ ﺻَﻠَّﻰ ﺍﻟﻠَّﻪُ ﻋَﻠَﻴْﻪِ ﻭَﺳَﻠَّﻢَ ﺳِﻦٌّ ﻣِﻦْ ﺍﻹِﺑِﻞِ ﻓَﺠَﺎﺀَﻩُ ﻳَﺘَﻘَﺎﺿَﺎﻩُ ﻓَﻘَﺎﻝَ ﺻَﻠَّﻰ ﺍﻟﻠَّﻪُ ﻋَﻠَﻴْﻪِ ﻭَﺳَﻠَّﻢَ : ﺃَﻋْﻄُﻮﻩُ ، ﻓَﻄَﻠَﺒُﻮﺍ ﺳِﻨَّﻪُ ﻓَﻠَﻢْ ﻳَﺠِﺪُﻭﺍ ﻟَﻪُ ﺇِﻻ ﺳِﻨًّﺎ ﻓَﻮْﻗَﻬَﺎ ، ﻓَﻘَﺎﻝَ : ( ﺃَﻋْﻄُﻮﻩُ ، ﺇِﻥَّ ﺧِﻴَﺎﺭَﻛُﻢْ ﺃَﺣْﺴَﻨُﻜُﻢْ ﻗَﻀَﺎﺀً )
রাসূলুল্লাহ সাঃ এর কাছে জনৈক ব্যক্তির একটি বাচ্ছা বয়সী উট পাওনা ছিলো,অতঃপর যখন সে ব্যক্তি রাসূলুল্লাহ সাঃ এর কাছে এসে তা চাইলো।তখন রাসূলুল্লাহ সাঃ উপস্থিত ব্যক্তিবর্গের প্রতি লক্ষ্য করে বললেনঃ উনার পাওনা উনাকে বুঝিয়ে দাও।সাহাবায়ে কেরাম (সদকার মালের মধ্যে খুজে)উক্ত ব্যক্তির পাওনা কমবয়সী উট পেলেন না।বরং তার থেকে একটু বেশী বয়সী উট পেলেন।তখন রাসূলুল্লাহ সাঃ বললেনঃ তোমরা তা তাকে দিয়ে দাও,কেননা তোমাদের মধ্যে ঐ ব্যক্তিই সর্বোত্তম, যে ঋণ পরিশোধের সময় উদারতা প্রদর্শন করে।তথা অতিরিক্ত দিয়ে দেয়।(সহীহ বুখারী-২৩৯৩,সহীহ মুসলিম-১৬০০)
এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন- https://www.ifatwa.info/7485

সু-প্রিয় প্রশ্নকারী দ্বীনী ভাই/বোন!
স্ত্রীর কাছ থেকে ৯৭৮ টাকা ধার নেয়ার পর নিজের সন্তুষ্টিতে ফেরত দেয়ার সময়ে পূর্ণ ১০০০ টাকা দেওয়া যাবে। এটা সুদ হবে না।

(৩)
অনেক সময়ে রিকশাওয়ালাগণ ৮০/ ৯০  টাকার ভাড়া একটু বাড়িয়ে দেয়ার অনুরোধ করেন ।  যদিও ঐ দূরত্বে ৮০/৯০ টাকাই ন্যায্য ভাড়া । এখন কোন ব্যাক্তি যদি ঐ রিকশাওয়ালাকে বলেন যে, আমি আপনাকে ৮০ বা ৯০ টাকাই ভাড়া দিব ৷ রিকশাওয়ালাও দর কষাকষিতে এক পর্যায়ে রাজি হন ।
কিন্তু পরে ভাড়া দেয়ার সময়ে মানবিক কারণে প্যাসেঞ্জার ১০০ টাকাই দেন এ নিয়্যাতে যে, ৮০ টাকা বা ৯০ টাকা পারিশ্রমিক হিসেবে এবং অতিরিক্ত  টাকাটি তিনি সাদাকাহ হিসেবে দিচ্ছেন ।
 
(ক) এভাবে ভাড়ার চেয়ে অতিরিক্ত টাকা দেয়া যাবে।এরূপ নিয়্যাতের কারণে প্যাসেঞ্জার অবশ্যই সাদাকাহর সওয়াব পাবে।

(খ) ৮০/৯০ টাকা দিতে চেয়ে ১০০ টাকা দিলে এক্ষেত্রে বিষয়টি ওয়াদার খেলাফ বলে সাব্যস্ত হবে না।

(৪)
নিজের উপর কথার দ্বারা অত্যাবশ্যকীয় কিছু করাকেই ওয়াদা বলে।তবে সেটা কসমের চেয়ে নিম্নপর্যায়ের।
(ক) আমি আপনাকে আগামীকালকে অমুক বিষয়ে  জানাবো
(খ) আমি আপনাকে আগামীকালকে অমুক বিষয়ে  জানাবো ইনশা আল্লাহ।  এগুলো শক্তিশালী ওয়াদা।

(গ) আশা করছি যে আমি আপনাকে আগামীকালকে অমুক বিষয়ে  জানাবো। এটা নিম্নপর্যায়ের ওয়াদা।

(ঘ) ওয়াল্লাহি/ আল্লাহর শপথ, আমি আপনাকে আগামীকালকে অমুক বিষয়ে  জানাবো। এটা কসম।

(ঙ) শপথ করলাম/ ওয়াদা করলাম, আমি আপনাকে আগামীকালকে অমুক বিষয়ে  জানাবো।এটা শক্তিশালি পর্যায়ের ওয়াদা।

(চ) আমি আপনাকে আগামীকালকে অমুক বিষয়ে  জানাবোই জানাবো । এটা শক্তিশালী পর্যায়ের ওয়াদা।

(৫)
নিউ ইয়ার, থার্টি ফার্স্ট নাইট, ভ্যালেন্টাইন ডে, বাংলা নববর্ষ, পহেলা ফাল্গুন, ব্ল্যাক ফ্রাইডে,এবং মুশরিকদের পুজা ইত্যাদি উপলক্ষে পণ্যের ডিসকাউন্ট গ্রহণ করা জায়েয কি না? সো সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন- https://www.ifatwa.info/1382

(৬)
এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন- https://www.ifatwa.info/1382


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

by (681,160 points)
সংযোজন ও সংশোধন করা হয়েছে।

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন। উত্তর না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনি প্রতিমাসে সর্বোচ্চ ৪ টি প্রশ্ন করতে পারবেন। এই প্রশ্ন ও উত্তরগুলো আমাদের ফেসবুকেও শেয়ার করা হবে। তাই প্রশ্ন করার সময় সুন্দর ও সাবলীল ভাষা ব্যবহার করুন।

বি.দ্র: প্রশ্ন করা ও ইলম অর্জনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো সরাসরি মুফতি সাহেবের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করা যেখানে প্রশ্নকারীর প্রশ্ন বিস্তারিত জানার ও বোঝার সুযোগ থাকে। যাদের এই ধরণের সুযোগ কম তাদের জন্য এই সাইট। প্রশ্নকারীর প্রশ্নের অস্পষ্টতার কারনে ও কিছু বিষয়ে কোরআন ও হাদীসের একাধিক বর্ণনার কারনে অনেক সময় কিছু উত্তরে ভিন্নতা আসতে পারে। তাই কোনো বড় সিদ্ধান্ত এই সাইটের উপর ভিত্তি করে না নিয়ে বরং সরাসরি স্থানীয় মুফতি সাহেবদের সাথে যোগাযোগ করতে হবে।

Related questions

...