আইফতোয়াতে ওয়াসওয়াসা সংক্রান্ত প্রশ্নের উত্তর দেওয়া হবে না। ওয়াসওয়াসায় আক্রান্ত ব্যক্তির চিকিৎসা ও করণীয় সম্পর্কে জানতে এখানে ক্লিক করুন

0 votes
168 views
in পবিত্রতা (Purity) by (8 points)
আমার বিগত তিনদিন অর্থাৎ ২৬ তম রোজা থেকে ২৮ তম রোজা পর্যন্ত মাসিক অব্যাহত ছিল। আমি গতকাল সেহেরির সময় জাগনা ছিলাম। তো আমার মাসিক পুরোপুরি ভালো হয়েছে কিনা দেখার জন্য আমি লজ্জাস্থানের ভিতরে কিঞ্চিত পরিমাণ আঙুল ঢুকিয়ে দেখলাম যে পুরোপুরি ভাবে ভালো হয়েছে কিনা। কিন্তু তখন আমার আঙুলে আমি হালকা রক্ত দেখতে পাই। যার কারনে আমি পূর্বের প্যাডটি পরিবর্তন করে নতুন প্যাড ব্যবহার করে ঘুমিয়ে যাই। আমি সেহরিতে তেমন কিছুই খাইনি। ‌ সেহরির সময় শেষ হওয়ার অনেক আগেই সামান্য তেতুল জল এবং পানি খেয়েছিলাম। পরে যেটা হল সকালে উঠলাম এবং আমি দেখলাম আমি সেহরির সময় যে নতুন প্যাডটি ব্যবহার করেছি তাতে কোন রক্ত নেই। পরে আমি আঙ্গুল দিয়েও নিশ্চিত হলাম যে রক্ত নেই। পরে আর আমি কোন পানাহার করিনি। আমি অপেক্ষা করতে করতে প্রায় চারটা বেজে যায়। কিন্তু তখনও আমি কোন রক্তের আলামত পাইনি। আমার অপেক্ষা করার কারণ এটা ছিল যে আমার প্রায়ই মাসিকের রক্ত থেমে যাওয়ার পরে কয়েক ঘন্টা পর আবার দেখতে পেয়েছি। যেমন সকালে বন্ধ হয়ে গিয়েছে কিন্তু বিকেলে আবার দেখতে পেয়েছি এমন। তো আমি চারটা বাজে ফরজ গোসল সেরে ফেলি এবং আসরের নামাজের প্রস্তুতি গ্রহণ করি।
এখন এক্ষেত্রে আমার কি করনীয়? আমার রোজাটা কি স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়েছে নাকি আমার রোজা হয়নি? আমাকে কি এই রোজা আবার কাজা থাকতে হবে? আমি তো ইচ্ছাকৃতভাবে রোজাটি ছাড়িনি । ফরজ গোসল দেরিতে করার কারণে কি আমার রোজা বাতিল হয়ে যাবে? যার দরুন কি আমাকে একটি রোজার বদলে ষাটটি রোজা এই বিধান আমার উপরে আরোপিত হবে?

1 Answer

0 votes
by (746,320 points)
ওয়া আলাইকুমুস-সালাম ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু। 
বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।
জবাবঃ-
রোযার নিয়ত করার ব্যাপারে রোযাগুলি দুই প্রকার,
(ক)
সুবহে সাদিক থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত হল রোযা রাখার সময়সীমা। ফরয রোযার নিয়ত করার সময়সীমা হল, দিনের মধ্যভাগ পর্যন্ত। অর্থাৎ দিনের মধ্যভাগের আগ পর্যন্ত নিয়ত করলে তা শুদ্ধ হবে।
স্মর্তব্য যে, আরবী দিনের সূচনা হয় সুবহে সাদিক থেকে। তাই সুবহে সাদিক থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত যতটুকু সময় হয়, এর মাঝামাঝি সময়ের আগে রোযার নিয়ত করলেই রোযা রাখা শুদ্ধ হবে।যেমন যদি সেহরীর সময় তথা সুবহে সাদিক শুরু হয় ৫টায়। আর সূর্যাস্ত হয়ে থাকে সন্ধ্যা ৭টায়। তাহলে একদিন হচ্ছে কত ঘন্টায়? ১৪ঘন্টায়।

সুতরাং সুবহে সাদিক থেকে ৭ ঘন্টা অতিক্রান্ত হওয়ার আগে রোযার নিয়ত করলেই রোযা রাখা শুদ্ধ হয়ে যাবে। অর্থাৎ উক্ত হিসাব মতে দুপুর ১২টার আগে রোযার নিয়ত করলে সেদিনের রোযা রাখা শুদ্ধ হবে। যদি এর পর নিয়ত করে তাহলে শুদ্ধ হবে না।

এই রোযা হল, (১) রমজানের রোযা, (২)নির্দিষ্ট নযরের রোযা (৩) এবং সাধারণ নফল রোযা।
এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন- https://www.ifatwa.info/11221

সু-প্রিয় প্রশ্নকারী দ্বীনী ভাই/বোন!
যেহেতু আপনি দিনের মধ্যভাগের পূর্বে রোযার নিয়ত করেননি, তাই আপনার রোযা বিশুদ্ধ হয় নাই। অাপনি ঐ দিনের রোযাকে পরবর্তীতে কাযা করে নিবেন।


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

by (746,320 points)
সংযোজন ও সংশোধন করা হয়েছে।

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন। উত্তর না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনি প্রতিমাসে সর্বোচ্চ ৪ টি প্রশ্ন করতে পারবেন। এই প্রশ্ন ও উত্তরগুলো আমাদের ফেসবুকেও শেয়ার করা হবে। তাই প্রশ্ন করার সময় সুন্দর ও সাবলীল ভাষা ব্যবহার করুন।

বি.দ্র: প্রশ্ন করা ও ইলম অর্জনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো সরাসরি মুফতি সাহেবের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করা যেখানে প্রশ্নকারীর প্রশ্ন বিস্তারিত জানার ও বোঝার সুযোগ থাকে। যাদের এই ধরণের সুযোগ কম তাদের জন্য এই সাইট। প্রশ্নকারীর প্রশ্নের অস্পষ্টতার কারনে ও কিছু বিষয়ে কোরআন ও হাদীসের একাধিক বর্ণনার কারনে অনেক সময় কিছু উত্তরে ভিন্নতা আসতে পারে। তাই কোনো বড় সিদ্ধান্ত এই সাইটের উপর ভিত্তি করে না নিয়ে বরং সরাসরি স্থানীয় মুফতি সাহেবদের সাথে যোগাযোগ করতে হবে।

Related questions

...