আইফতোয়াতে ওয়াসওয়াসা সংক্রান্ত প্রশ্নের উত্তর দেওয়া হবে না। ওয়াসওয়াসায় আক্রান্ত ব্যক্তির চিকিৎসা ও করণীয় সম্পর্কে জানতে এখানে ক্লিক করুন

0 votes
164 views
in পবিত্রতা (Purity) by (8 points)
edited by
আসসালামু  আলাইকুম।

১)আমার প্রচুর বায়ু নির্গত হয়। আমার Ocd এর সমস্যা আছে। এক ওয়াক্তে মাঝে মাঝে কয়েকবার  অযু করেও সেই ওয়াক্তের ফরযটা আদায় করাও কষ্টকর হয়ে যায়। বিশেষ করে সালাত বা কুরআন পড়তে গেলে এই সমস্যা বেশি হয়। আমার জীন-যাদুর প্রবলেম আছে। তাই আমার বেশিরভাগ সময় ফোনেই কুরআন তিলাওয়াত করা হয়। আমি ফোনে এপ্স থেকে কুরআন পড়ি অযু ছাড়াই। যেই অংশে আয়াত লিখিত নেই সেই খানে টাচ করে পরবর্তী  আয়াত এ যাই। এভাবে কুরআন পড়াতে কি আমার গুনাহ হচ্ছে?

২) আমার এতটাই গ্য‍াসের সমস্যা হয়েছে সারাদিনে অনেকবার বাথরুমে যেতে হয়। বাথরুমে গেলে অনেক পানি খরচ হয় প্রচুর সময় লাগে। আমার জীন যাদু ওসিডির কারণে আমার দৈনন্দিন জীবন খুবই কষ্টের আলহামদুলিল্লাহ্  আলা কুল্লি হাল।এতদিন আমি সালাত ও পড়তে পারতাম না এই বায়ুর সমস্যা আরো অন্যান্য  সমস্যার কারণে সেটা আমি অন্য আইডি থেকে পোস্ট করে একবার জানিয়েছিলাম। তখন আমাকে বলা হয়েছিল অযুর শুধু ফরয আদায় করলেই হয়ে যাবে। এই রমাদানে আমি সালাত পড়া শরু করেছি আলহামদুলিল্লাহ্। আমার প্রচুর ঠান্ডার সমস্যা। তাও আলহামদুলিল্লাহ্  অযু ছুটে গেলে সালাতের জন্য অযু করে নিচ্ছি। কিন্তু  আমি গত তিন ওয়াক্তের সালাত কিছুতেই আদায় করতে পারছিনা। আমার নামাজে দাড়ালেই বা অযু করাকালীন বা শেষে অযু বারবার ভেঙে যাচ্ছে। বারবার অযু করলে বারবার ই ভেঙে যাচ্ছে। ফরযটুকু ই আদায় করা যাচ্ছেনা।এখন আমি কি করব?  অযু ছাড়া তো সালাত আদায় করা যাবে না। প্লিজ আমাকে করণীয় বলে দিন।

৩) আমার প্রসাব ইনফেকশনর সমস্যা আছে। তার উপর ওসিডি এর সমস্যা তো আছেই। তাই ইসতেঞ্জাতে অতিরিক্ত পানি ব্যাবহার করতে হয়। ইসতেঞ্জার সময় যদি প্রসাবের রাস্তায় (ফিমেলদের ক্ষেত্রে) পানি প্রবেশ করে তাহলে কি রোযা ভেঙে যায়?

1 Answer

0 votes
by (659,600 points)

ওয়া আলাইকুমুস-সালাম ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু।
বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।
জবাবঃ-
আলহামদুলিল্লাহ!
(১)
যে ক্যাসেট বা মেমোরি কার্ডে কুরআনে কারীম সংরক্ষিত রয়েছে,সেই ক্যাসেট বা মেমোরি কার্ড বিনা অজুতে স্পর্শ করা জায়েয।কেননা তাতে তো কুরআন দেখা যাচ্ছে না।(মুহাক্কাক্ব ও মুদাল্লাল জাদীদ মাসাঈল;১০৯-জামেয়া ইসলামিয়া এ'শাআ'তুল উলূম, -মহার্রাষ্ট,ভারত- কর্তৃক প্রকাশিত)

কুরআনে কারীম রেকর্ড/সংরক্ষিত রয়েছে এমন মুবাইলকে বিনা অজুতে স্পর্শ করা জায়েয।কেননা এটা যেমন মানুষের ব্রেইনের মত।তবে যদি কুরআনের কোনো আয়াত স্কীনে ভেসে উঠে তাহলে সে আয়াতকে বিনা অজুতে স্পর্শ করা জায়েয হবে না।(ইমদাদুল ফাতাওয়া ৪/২৪৫)
এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন- https://www.ifatwa.info/145

সু-প্রিয় প্রশ্নকারী দ্বীনী ভাই/বোন!
মুবাইল স্কিনের যেই অংশে কুরআনের আয়াত লিখিত নেই, সেই অংশে  টাচ করে কুরআন পড়ার রুখসত থাকলেও সময় সুযোগ থাকলে অজু করেই কুরআন পড়া উচিৎ।

(২)
প্রশ্নের বিবরণমতে যদি আপনার জন্য একটি নামাযের পূর্ণ ওয়াক্তই এমন হয় যে, নামায আদায় করা সম্ভবপর হয় না, তাহলে আপনি প্রতি ওয়াক্তের জন্য একবার অজু করে নিবেন। এই অজু দ্বারা ওয়াক্তের ভিতর যত সম্ভব নামায আদায় করে নিবেন।

(৩)
ইসতেঞ্জার সময় যদি প্রসাবের রাস্তায় (ফিমেলদের ক্ষেত্রে) পানি প্রবেশ করে তাহলে রোযা ভেঙে যাবে না।তবে লজ্জস্থানের পানি ভিতরে প্রবেশ করলে, তখন রোযা ফাসিদ হয়ে যাবে।


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

by (659,600 points)
সংযোজন ও সংশোধন করা হয়েছে।

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন। উত্তর না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনি প্রতিমাসে সর্বোচ্চ ৪ টি প্রশ্ন করতে পারবেন।

বি.দ্র: প্রশ্ন করা ও ইলম অর্জনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো সরাসরি মুফতি সাহেবের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করা যেখানে প্রশ্নকারীর প্রশ্ন বিস্তারিত জানার ও বোঝার সুযোগ থাকে। যাদের এই ধরণের সুযোগ কম তাদের জন্য এই সাইট। প্রশ্নকারীর প্রশ্নের অস্পষ্টতার কারনে ও কিছু বিষয়ে কোরআন ও হাদীসের একাধিক বর্ণনার কারনে অনেক সময় কিছু উত্তরে ভিন্নতা আসতে পারে। তাই কোনো বড় সিদ্ধান্ত এই সাইটের উপর ভিত্তি করে না নিয়ে বরং সরাসরি মুফতি সাহেবদের সাথে যোগাযোগ করলে ভালো হয়। অন্যদিকে প্রতিমাসে একাধিকবার আমাদের মুফতি সাহেবগন জুমের মাধ্যমে সরাসরি প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন। সেই ক্লাসগুলোতেও জয়েন করার জন্য অনুরোধ করা গেল। ক্লাসের সিডিউল: fb.com/iomedu.org

Related questions

...