0 votes
145 views
in হালাল ও হারাম (Halal & Haram) by (41 points)
গায়রে মাহরাম এর মৃতদেহ মহিলার দেখা জায়েজ কি?

1 Answer

0 votes
by (32.1k points)

বিসমিহি তা'আলা

সমাধানঃ-
গায়রে মাহরাম নারী-পুরুষ পরস্পর পরস্পরকে দেখার যেমন বিধান জীবিত অবস্থায় রয়েছে।মৃত অবস্থায় ও ঠিক সেরকম বিধানই প্রযোজ্য হবে।তথা জীবিত অবস্থায় পুরুষের জন্য নারীকে দেখা যেমন সম্পূর্ণ হারাম।এবং ফিতনার আশংকা না থাকলে নারীর জন্য গায়রে মাহরাম পুরুষকে দেখা জরুরুত পর্যন্ত যেমন জায়েয।যেমনটা আমরা 586 নং ফাতাওয়ায় উল্লেখ করেছি।
ঠিক তেমনিভাবে মৃত্যুর পর নারীকে দেখা পুরুষের জন্য সম্পূর্ণ হারাম।কিন্তু নারীদের জন্য গায়রে মাহরাম পুরুষকে দেখা ফিতনার আশংকা না থাকার শর্তে অনুমোদিত।

ফিতনার অাশংকা না থাকার অর্থ হচ্ছে,
নিজের যন্নে গালিব তথা যদি নিজের মনের মধ্যে এই বিশ্বাস থাকে যে উক্ত পুরুষকে দেখলে আমার মনের ভিতর কোনোপ্রকার ফিতনার উদ্ভব হবে না।তাহলে নারীর জন্য উক্ত মৃত গায়রে মাহরামকে দেখার অনুমোদন রয়েছে।কিন্তু যদি নিজের ধারণায় ফিতনায় পড়া বা না পড়া- উভয়ের সম্ভাবনা বিদ্যমান থাকে, তাহলে এমতাবস্থায় উক্ত মৃত গায়রে মাহরাম পুরুষকে দেখা কখনো জায়েয হবে না।

মৃত মানুষের মুখ দেখার যে রুসুম আমাদের সমাজে প্রচলিত তা বিদআত।যা রাসূলুল্লাহ সাঃ এবং তার পরবর্তী কোনো যুগেই ছিলনা।প্রয়োজনে দেখার অনুমোদন রয়েছে।তবে না দেখাই উত্তম ও মঙ্গল জনক।কেননা মৃত্যুর পর কার মূখের অবস্থা কেমন হবে,সেটাতো  বলা যায় না।কিন্তু হয়তো দেখার পর লোকজন বলাবলি শুরু করে দিবে যে,অমুকের মূখ বাঁকা ছিলো,অমুকের মুখ কালো হয়ে গিয়েছিলো,ইত্যাদি, ইত্যাদি, নানান কথাবার্তা তখন জনসম্মুখে চলে আসবে।অথচ মৃত ব্যক্তির ভালো গুণাগুণ আলোচনার কথা হাদীসে এসেছে।এজন্য না দেখাই উত্তম।

আল্লাহ-ই ভালো জানেন।

উত্তর লিখনে

মুফতী ইমদাদুল হক

ইফতা বিভাগ, IOM.

ﻓَﺎﺳْﺄَﻟُﻮﺍْ ﺃَﻫْﻞَ ﺍﻟﺬِّﻛْﺮِ ﺇِﻥ ﻛُﻨﺘُﻢْ ﻻَ ﺗَﻌْﻠَﻤُﻮﻥَ অতএব জ্ঞানীদেরকে জিজ্ঞেস করো, যদি তোমরা না জানো। সূরা নাহল-৪৩

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনার দ্বীন সম্পর্কীয় প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার জন্য রয়েছে আমাদের  অভিজ্ঞ ওলামায়কেরাম ও মুফতি সাহেবগনের একটা টিম যারা ইনশাআল্লাহ প্রশ্ন করার ২৪-৪৮ ঘন্টার সময়ের মধ্যেই প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন।

Related questions

...