0 votes
18 views
in ঈমান ও বিশ্বাস (Faith and Belief) by (2 points)
edited by
আমার এক আপু প্রেগনেন্ট। ছেলে হওয়ার জন্য তার স্বামী মাদরাসার এক হুজুর এর কাছে বলছে আর ওই হুজুর কুর'আন এর আয়াত লিখে একটা তাবিজ দিল আর বললো সেটা ইউস করলে নাকি ছেলে বাচ্চা হবে। কিন্তু আমার ওই আপু তাবিজ না পড়া নিয়ে একদম Strict. যেহেতু শিরক এর ভয় থেকে যায়। এখন উনার স্বামী উনাকে তাবিজ পড়ার জন্য খুব জোর করতেছে। কিন্তু আপু মানা করেই যাচ্ছে। ঝগড়া বেশি লাগবে এই ভয়ে আপু ভাবলো যে ভাইয়া যে দু'দিন থাকবে ওইদিন তাবিজ পড়বে যেহেতু ঝগড়া হওয়ার ভয় থাকে। আর তার স্বামী না থাকলে পড়বে নাহ। এইখানে কি আপুর গুনাহ হওয়ার সম্ভাবনা আছে?

1 Answer

0 votes
by (51,160 points)

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।

জবাবঃ-
আল্লাহ সবকিছুর খালিক ও মালিক,জগতের সব কিছু উনার হুকুমেই সংগঠিত হয়,তাবিজ বা ঔষধের অদ্য কোনো ক্ষমতা নেই।এমন আক্বিদা পোষণ করে জায়েয ও বৈধ কালামের মাধ্যমে চিকিৎসা হিসেবে ঝাড়-ফুক ও তাবিজ ব্যবহার বৈধ আছে।
তবে গর্ভবর্তী মহিলার জন্য তাবিজ ব্যবহার জরুরী বা উত্তম বলে ইসলামী শরীয়তে কোনো কিছু নেই।
তাবিজকে বিভিন্ন টিকামূলক ইনজেকশনের মত মনে করতে পারেন।যা দেওয়া বা না দেওয়া সম্পূর্ণ আপনার ব্যক্তিগত বিষয়। বিস্তারিত জানুন- 226


সু-প্রিয় প্রশ্নকারী দ্বীনী ভাই/বোন!
আপনার আপু আকিদা বিশুদ্ধ রেখে তাবিজ পড়তে পারবেন।আকিদা বিশুদ্ধ থাকলে উনার কোনো গোনাহ হবে না।


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

ﻓَﺎﺳْﺄَﻟُﻮﺍْ ﺃَﻫْﻞَ ﺍﻟﺬِّﻛْﺮِ ﺇِﻥ ﻛُﻨﺘُﻢْ ﻻَ ﺗَﻌْﻠَﻤُﻮﻥَ অতএব জ্ঞানীদেরকে জিজ্ঞেস করো, যদি তোমরা না জানো। সূরা নাহল-৪৩

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন।

Related questions

...