0 votes
116 views
in বিবিধ মাস’আলা (Miscellaneous Fiqh) by (73 points)
আসসালামু আলাইকুম,
১- আমরা তো জানি কেউ অন্যায় বা জুলুম করলেও, তাকে মাফ করে দেওয়া উচিত।
কিন্তু একজন মানুষ আমার সাথে বার বার অন্যায়/জুলুম করেই যাচ্ছে।

মানে আমার জন্য মাফ করাও কষ্ট হয়ে যাচ্ছে। এতটা কষ্ট পাচ্ছি।

কিন্তু তারপরও কি মাফ করে দেওয়া উচিত?
মাফ করলে ফজিলত কি? আর না মাফ করলে কি হবে?

২- আমরা তো জানি, কেউ যখন আমার নামে গীবত করে, তখন তার সওয়াব গুলা আমি পেয়ে যাব।

কিন্তু আমি তাকে মাফ করে দিলেও কি সওয়াব পাব?

বা মাফ করে দিলে আমি আসলে কি পাব?

নাকি মাফ না করলেই ভালো, যেহেতু আমি তাদের আমলের এক্সট্রা সওয়াব পাব।

1 Answer

0 votes
by (441,920 points)

ওয়া আলাইকুমুস সালাম ওয়া রাহমাতুল্লাহ।
বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।
জবাবঃ-
(১)
https://www.ifatwa.info/27748 নং ফাতাওয়ায় বলেছি যে,
হযরত আবু মুসা রাযি থেকে বর্ণিত,তিনি বলেনঃ
ﻋﻦ ﺃﺑﻲ ﻣﻮﺳﻰ ﺭﺿﻲ ﺍﻟﻠﻪ ﻋﻨﻪ ﻗﺎﻝ ﻗﺎﻝ ﺭﺳﻮﻝ ﺍﻟﻠﻪ ﺻﻠﻰ ﺍﻟﻠﻪ ﻋﻠﻴﻪ ﻭﺳﻠﻢ ﺇﻥ ﺍﻟﻠﻪ ﻟﻴﻤﻠﻲ ﻟﻠﻈﺎﻟﻢ ﺣﺘﻰ ﺇﺫﺍ ﺃﺧﺬﻩ ﻟﻢ ﻳﻔﻠﺘﻪ
নিশ্চয় আল্লাহ তা'আলা জালিমদেরকে অবকাশ দিয়ে থাকেন। অবশেষে যখন তাকে ধরবেন তখন সে আর রেহাই পাবে না।{সহীহ বুখারী-৪৪০৯}

নবীজী সা বলেনঃ
ﻓَﻘُﻠْﺖُ ﻳَﺎ ﺭَﺳُﻮﻝَ ﺍﻟﻠَّﻪِ ﺃَﺧْﺒِﺮْﻧِﻲ ﺑِﻔَﻮَﺍﺿِﻞِ ﺍﻟْﺄَﻋْﻤَﺎﻝِ ﻓَﻘَﺎﻝَ ﻳَﺎ ﻋُﻘْﺒَﺔُ ﺻِﻞْ ﻣَﻦْ ﻗَﻄَﻌَﻚَ ﻭَﺃَﻋْﻂِ ﻣَﻦْ ﺣَﺮَﻣَﻚَ ﻭَﺃَﻋْﺮِﺽْ ﻋَﻤَّﻦْ ﻇَﻠَﻤَﻚَ
হে উক্ববাহ! যে তোমার সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করে, তুমি তার সাথে সম্পর্ক স্থাপন করো, যে তোমাকে বঞ্চিত করে, তুমি তাকে তুষ্ট করো, যে তোমার প্রতি জুলুম করে, তুমি তার সাথে উত্তম ব্যবহার (ক্ষমা) করো। (মুসনাদে আহমদ- ১৭৩৩৪ নং হাদীস)

সুপ্রিয় প্রশ্নকারী দ্বীনি ভাই/বোন!
জ্বী, শত যুলুম নির্যাতন আসলেও, তা সহ্য করা এবং যুলুমকারীকে ক্ষমা করা উচিৎ।

(২)
কেউ গিবত করলেই যে আপনি সওয়াব পাবেন এমন নয়।বরং আখেরাতে গীবতের বিনিময়ে আল্লাহ গীবতকারী থেকে কিছু সওয়াব এনে আপনাকে দান করবেন। তবে যদি কেউ দুনিয়াতে থাকাবস্থায় ক্ষমা করে দেয়, তাহলে আর সওয়াবে কমতি হবে না।


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন। উত্তর না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনি প্রতিমাসে সর্বোচ্চ ৪ টি প্রশ্ন করতে পারবেন।

বি.দ্র: প্রশ্ন করা ও ইলম অর্জনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো সরাসরি মুফতি সাহেবের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করা যেখানে প্রশ্নকারীর প্রশ্ন বিস্তারিত জানার ও বোঝার সুযোগ থাকে। যাদের এই ধরণের সুযোগ কম তাদের জন্য এই সাইট। প্রশ্নকারীর প্রশ্নের অস্পষ্টতার কারনে ও কিছু বিষয়ে কোরআন ও হাদীসের একাধিক বর্ণনার কারনে অনেক সময় কিছু উত্তরে ভিন্নতা আসতে পারে। তাই কোনো বড় সিদ্ধান্ত এই সাইটের উপর ভিত্তি করে না নিয়ে বরং সরাসরি মুফতি সাহেবদের সাথে যোগাযোগ করলে ভালো হয়। অন্যদিকে প্রতিমাসে একাধিকবার আমাদের মুফতি সাহেবগন জুমের মাধ্যমে সরাসরি প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন। সেই ক্লাসগুলোতেও জয়েন করার জন্য অনুরোধ করা গেল। ক্লাসের সিডিউল: fb.com/iomedu.org

Related questions

...