0 votes
17 views
in হালাল ও হারাম (Halal & Haram) by (2 points)
আসসালামু আলাইকুম। আমাদের গ্রামে একরকম ভাত বানানো হয়।এর চাল  ৫ থেকে ৬ দিন আগে ভিজিয়ে বানানো হয়। এটি প্রস্তুত করার নিয়মঃ
প্রথমে চাল ধুয়ে মাটির ছোট হাড়িতে চাল দিতে হয়। তারপর হাড়িতে গরম পানি, দুই বা চার কোষ রসুন আর একটা মাটির ভাঙা চাড়া ও হলুদ দিয়ে হাড়িটা চুলার পিঠে রেখে দেওয়া হয়। এটি ৫থেকে ৬ দিন রাখা হয়। ৫/৬দিন পড় এর সাথে ভালো চাল মিশিয়ে এটি রান্না করা হয়। এই ভাত খেতে হাল্কা এক্টু টক আর এর থেকে একরকম গন্ধ বের হয়। এটি নানা রকম ভর্তা দিয়ে খাওয়া হয়। এটি খাওয়া কি জায়েজ?

1 Answer

0 votes
by (8,320 points)

ওয়া আলাইকুমুস সালাম ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু।

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।

জবাবঃ

 আল্লাহ তায়ালা বলেন-

 

فَكُلُوا مِمَّا رَزَقَكُمُ اللَّهُ حَلَالًا طَيِّبًا وَاشْكُرُوا نِعْمَتَ اللَّهِ إِن كُنتُمْ إِيَّاهُ تَعْبُدُونَ

 

অতএবআল্লাহ তোমাদেরকে যেসব হালাল ও পবিত্র বস্তু দিয়েছেনতা তোমরা আহার কর এবং আল্লাহর অনুগ্রহের জন্যে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ কর যদি তোমরা তাঁরই এবাদতকারী হয়ে থাক। (সূরা নাহলআয়াত ১১৪)

 

 তিনি অন্যত্রে বলেন-

 

وَكُلُوا مِمَّا رَزَقَكُمُ اللَّهُ حَلَالًا طَيِّبًا ۚ وَاتَّقُوا اللَّهَ الَّذِي أَنتُم بِهِ مُؤْمِنُونَ

 

আল্লাহ তা’য়ালা যেসব বস্তু তোমাদেরকে দিয়েছেনতন্মধ্য থেকে হালাল ও পবিত্র বস্তু খাও এবং আল্লাহকে ভয় করযার প্রতি তোমরা বিশ্বাসী। (সূরা মায়েদাআয়াত ৮৮)

 

সু-প্রিয় প্রশ্নকারী দ্বীনী ভাই/বোন!

 

যেহেতু উক্ত বিশেষ পদ্ধতি করার দ্বারা  খাবার নাপাক হয়ে যায় না। আবার খাবারে কোনো ধরণের নাপাক জিনিসও মিশ্রণ করা হয় না। তাই

প্রশ্নোক্ত ক্ষেত্রে উক্ত খাবার খাওয়া জায়েজ।


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী আব্দুল ওয়াহিদ
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন। উত্তর না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনি প্রতিমাসে সর্বোচ্চ ৪ টি প্রশ্ন করতে পারবেন।

বি.দ্র: প্রশ্ন করা ও ইলম অর্জনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো সরাসরি মুফতি সাহেবের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করা যেখানে প্রশ্নকারীর প্রশ্ন বিস্তারিত জানার ও বোঝার সুযোগ থাকে। যাদের এই ধরণের সুযোগ কম তাদের জন্য এই সাইট। প্রশ্নকারীর প্রশ্নের অস্পষ্টতার কারনে ও কিছু বিষয়ে কোরআন ও হাদীসের একাধিক বর্ণনার কারনে অনেক সময় কিছু উত্তরে ভিন্নতা আসতে পারে। তাই কোনো বড় সিদ্ধান্ত এই সাইটের উপর ভিত্তি করে না নিয়ে বরং সরাসরি মুফতি সাহেবদের সাথে যোগাযোগ করলে ভালো হয়। অন্যদিকে প্রতিমাসে একাধিকবার আমাদের মুফতি সাহেবগন জুমের মাধ্যমে সরাসরি প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন। সেই ক্লাসগুলোতেও জয়েন করার জন্য অনুরোধ করা গেল। ক্লাসের সিডিউল: fb.com/iomedu.org

Related questions

...