0 votes
24 views
in পরিবার,বিবাহ,তালাক (Family Life,Marriage & Divorce) by (33 points)
আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহ, হযরত
১। ছেলে/মেয়ে জ্বীনের সাথে বিবাহ কি জায়েজ?

২। জায়েজ হলে মানুষ আর জ্বীনের যে সন্তান হবে সে কি জ্বীন হবে নাকি মানুষ?

৩। মেয়ে জ্বীনের সাথে বিবাহ করার কোন বিশেষ উপায় আছে কি?

1 Answer

0 votes
by (40,920 points)
বিসমিহি তা'আলা
জবাবঃ-

আল্লাহ তা'আলার কত বড় অনুগ্রহ যে,আল্লাহ তা'আলা মানুষের মধ্যে নর-নারী সৃষ্টি করেছেন।নর সে প্রশান্তি খুজে পেতে সক্ষম তার তার মতই তার জাত থেকে স্ত্রী লিংঙ্গের মধ্যে।এবং নর-নারীর মধ্যে মহব্বত ভালবাসা সৃষ্টি হওয়া সেটাও কত বড়ই না এক নিয়ামত।যার ফালাফল স্বরূপ একজন পুরুষ ও একজন মহিলা থেকে আজ পৃথিবী ভর্তি মানুষ।
আল্লাহ তা'আলা বলেন,
وَاللّهُ جَعَلَ لَكُم مِّنْ أَنفُسِكُمْ أَزْوَاجًا وَجَعَلَ لَكُم مِّنْ أَزْوَاجِكُم بَنِينَ وَحَفَدَةً 
আল্লাহ তোমাদের জন্যে তোমাদেরই শ্রেণী থেকে জোড়া পয়দা করেছেন এবং তোমাদের যুগল থেকে তোমাদেরকে পুত্র ও পৌত্রাদি দিয়েছেন।(সূরা নাহল-৭২)

وَمِنْ آيَاتِهِ أَنْ خَلَقَ لَكُم مِّنْ أَنفُسِكُمْ أَزْوَاجًا لِّتَسْكُنُوا إِلَيْهَا وَجَعَلَ بَيْنَكُم مَّوَدَّةً وَرَحْمَةً إِنَّ فِي ذَلِكَ لَآيَاتٍ لِّقَوْمٍ يَتَفَكَّرُونَ
আর এক নিদর্শন এই যে, তিনি তোমাদের জন্যে তোমাদের মধ্য থেকে তোমাদের সংগিনীদের সৃষ্টি করেছেন, যাতে তোমরা তাদের কাছে শান্তিতে থাক এবং তিনি তোমাদের মধ্যে পারস্পরিক সম্প্রীতি ও দয়া সৃষ্টি করেছেন। নিশ্চয় এতে চিন্তাশীল লোকদের জন্যে নিদর্শনাবলী রয়েছে।(সূরা রূম-২১)

জ্বীন আর মানুষের মধ্যে বিবাহ সম্পর্কে উলামে কেরামদের মতবিরোধ রয়েছে।ইমাম আহমদ রাহ এর মতে নাজায়েয।ইমাম মালিক সহ আরো কিছু ফুকাহায়ে কেরামের মতে মাকরুহ।এ মাকরুহ দ্বারা তাদের অনেকেই মাকরুহে তাহরিমী উদ্দেশ্য নিয়ে থাকেন।এবং এটাই অধিকাংশ আলেমের মত।

ইমাম শা'ফেয়ী রাহ এর মতে মুবাহ।

ফাতাওয়ায়ে সিরাজিয়্যাহ এর ভাষ্যমতে হানাফি মাযহাবের সিদ্ধান্ত হলো,নাজায়েয।

সু-প্রিয় পাঠকবর্গ!
যেহেতু আল্লাহ কুরআনে বিয়ে শাদি সম্পর্কে মানুষের মধ্যে নর-নারীর কথা উল্লেখ করেছেন।তাই জ্বীন এবং মানুষের মধ্যে বিবাহ জায়েয হবে না।কেননা এখানে বিয়ের মাকসাদ পূর্ণ হবে না।শুধুমাত্র জৈবিক চাহিদা পূরণের নাম বিয়ে নয়।বরং বিয়ের আরো অনেক মাকসাদ রয়েছে। যা এখানে অনুপস্থিত থাকবে।

আল্লাহ-ই ভালো জানেন।


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

ﻓَﺎﺳْﺄَﻟُﻮﺍْ ﺃَﻫْﻞَ ﺍﻟﺬِّﻛْﺮِ ﺇِﻥ ﻛُﻨﺘُﻢْ ﻻَ ﺗَﻌْﻠَﻤُﻮﻥَ অতএব জ্ঞানীদেরকে জিজ্ঞেস করো, যদি তোমরা না জানো। সূরা নাহল-৪৩

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন।

Related questions

...