0 votes
20 views
in বিবিধ মাস’আলা (Miscellaneous Fiqh) by (5 points)
হায়েজ অবস্থায় আযানের উত্তর দেয়া যাবে কি?

হায়েজ অবস্থায় আযানের উত্তর দেয়া যাবে কি?

1 Answer

0 votes
by (42,360 points)
বিসমিহি তা'আলা
জবাবঃ-
উম্মে আতিয়্যাহ (রাযি.) হতে বর্ণিত
عن أم عطية، قالت: «كنا نؤمر أن نخرج يوم العيد حتى نخرج البكر من خدرها، حتى نخرج الحيض، فيكن خلف الناس، فيكبرن بتكبيرهم، ويدعون بدعائهم يرجون بركة ذلك اليوم وطهرته»
তিনি বলেন, ‘ঈদের দিন আমাদেরকে বের হবার আদেশ দেয়া হত। এমন কি আমরা কুমারী মেয়েদেরকেও অন্দর মহল হতে বের করতাম এবং ঋতুমতী মেয়েদেরকেও। তারা পুরুষদের পিছনে থাকতো এবং তাদের তাকবীরের সাথে তাকবীর বলতো এবং তাদের দু‘আর সাথে দু‘আ করত- সে দিনের বরকত এবং পবিত্রতা তারা আশা করত। 

হায়েয বা নেফাসগ্রস্ত মহিলার উপর যেহেতু নামায ফরয নয় তথা আযানের আ'মলী জবাব ওয়াজিব নয়,তাই সেটার কওলী জবাব ও ওয়াজিব নয়।

ফাতাওয়ায়ে শামীতে(২/৬৫-যাকারিয়া) বলা হয়,
لانها ليسا من اهل الإجابة بالفعل فكذا بالقول،
কেননা তারা দুনুজনের  (হায়েয ও নেফাস বিশিষ্ট মহিলা) আ'মলের মাধ্যমে আযানের জবাব প্রদান ওয়াজিব নয়।

যদিও তারা দুজনের উপর ওয়াজিব নয়।তবে আবার নাজায়েযও নয়।সুতরাং তারা আযানের জবাব দিতে পারবে।তাছাড়া হায়েয অবস্থায় কুরআন তেলাওয়াত নিষিদ্ধ, দু'আ,যিকির নিষিদ্ধ নয়।আরো জানুন- https://ifatwa.info/389
আল্লাহ-ই ভালো জানেন।

উত্তর লিখনে
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ, IOM.


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

ﻓَﺎﺳْﺄَﻟُﻮﺍْ ﺃَﻫْﻞَ ﺍﻟﺬِّﻛْﺮِ ﺇِﻥ ﻛُﻨﺘُﻢْ ﻻَ ﺗَﻌْﻠَﻤُﻮﻥَ অতএব জ্ঞানীদেরকে জিজ্ঞেস করো, যদি তোমরা না জানো। সূরা নাহল-৪৩

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন।

Related questions

...