0 votes
24 views
in কুরবানী (Slaughtering) by (59 points)
১. ২২৮৯৭ নং প্রশ্নের জবাবে ১ বছর বয়সী বকরির দাম সদকাহ করতে বলা হয়েছে।

বকরির দাম কি যখন সদকাহ করবো তখনকার বাজারদর অনুযায়ী হিসেব করবো নাকি যে বছরের কুরবানীর কাজা আদায় করছি সেই বছরের বাজারদর অনুযায়ী হিসেব করবো?

দেশের বাইরে থাকলে কোন দেশের বাজারদর অনুযায়ী হিসেব করবো? যে দেশে বর্তমানে আছি ঐ দেশের নাকি নিজ দেশের?

২. সদকার জন্য নির্ধারিত খাতগুলো কী কী?

৩. মসজিদ, মাদ্রাসা, হাসপাতাল ইত্যাদি স্থায়ী খাতে কি সদকাহ করা যাবে?

৪. সদকার টাকা কি কর্জে হাসানা দেওয়া যাবে বা এমন কোনো প্রতিষ্ঠানে সদকাহ করা যাবে যারা কর্জে হাসানা প্রজেক্ট চালায়?

1 Answer

0 votes
by (203,920 points)
জবাব
بسم الله الرحمن الرحيم 


(০১)
প্রশ্নে উল্লেখিত ছুরতে টাকা সদকাহ করতে চাইলে যে বছরের কুরবানীর কাজা আদায় করা হয়েছে, সেই বছরের বাজারদর অনুযায়ী হিসেব করতে হবে।
,
কুরবানী ওয়াজিব হওয়ার সময় যে দেশে ছিলো,সেই  দেশের বাজারদর অনুযায়ী হিসেব করবে।

ফাতাওয়ায়ে আলমগীরীতে আছেঃ
  
تعتبر القيمة عند حولان الحول  اذا كان له مائتا قفيز حنطة للتجارة تساوی مائتی درهم فتم  الحول ثم زاد السعر أو انتقص فان أدى من عينها أدى خمسة أقفزة وان أدى القيمة تعتبر قيمتها يوم الوجوب “ 
 ( الفتاویٰ الھندیہ ، کتاب الزکوٰۃ ، الفصل فی العروض ، جلد 1 ، صفحہ 179 ، مطبوعہ بیروت )
সারমর্মঃ
যাকাতের ক্ষেত্রে বছর পূর্ণ হলে যাকাত ওয়াজিব হওয়ার মূল্য গ্রহনযোগ্য হবে।   
.

(০২)
এ সম্পর্কে আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তা'আলা বলেন,

إِنَّمَا الصَّدَقَاتُ لِلْفُقَرَاء وَالْمَسَاكِينِ وَالْعَامِلِينَ عَلَيْهَا وَالْمُؤَلَّفَةِ قُلُوبُهُمْ وَفِي الرِّقَابِ وَالْغَارِمِينَ وَفِي سَبِيلِ اللّهِ وَابْنِ السَّبِيلِ فَرِيضَةً مِّنَ اللّهِ وَاللّهُ عَلِيمٌ حَكِيمٌ

যাকাত হল কেবল (১)ফকির, (২)মিসকীন, (৩)যাকাত উসূলকারী ও (৪)যাদের চিত্ত আকর্ষণ প্রয়োজন তাদের হক (৫)এবং তা দাস-মুক্তির জন্যে ও (৬)ঋণগ্রস্তদের জন্য, (৭)আল্লাহর পথে জেহাদকারীদের জন্যে এবং(৮) মুসাফিরদের জন্যে, এই হল আল্লাহর নির্ধারিত বিধান। আল্লাহ সর্বজ্ঞ, প্রজ্ঞাময়।(সূরা আত-তাওবাহ-৬০)
,
(০৩)
এমনিতেই নফল সদকাহ করা যাবে।
তবে ওয়াজিব সদকাহ যেমন মান্নত,কুরবানীর চামড়ার মূল্য ইত্যাদি, ফরজ সদকাহ যেমন যাকাত,এই জাতীয় সদকাহ উল্লেখিত খাতে করা যাবেনা।
তবে লিল্লাহ বোর্ডিং এ ফকির মিসকিনকে দিতে পারবে।
হাসপাতালের কোনো ফকির মিসকিনকে মালিক বানিয়ে দিতে পারবে।
,
(০৪)
করজ হিসেবে দিলে করজ আদায়ের পর তাহা কোনো গরিব মিসকিনকে দান করে দিতে হবে। 
করজের দ্বারা তার সদকাহ আদায় হবেনা।          


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

------------------------
মুফতী ওলি উল্লাহ
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন। উত্তর না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনি প্রতিমাসে সর্বোচ্চ ৪ টি প্রশ্ন করতে পারবেন।

বি.দ্র: প্রশ্ন করা ও ইলম অর্জনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো সরাসরি মুফতি সাহেবের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করা যেখানে প্রশ্নকারীর প্রশ্ন বিস্তারিত জানার ও বোঝার সুযোগ থাকে। যাদের এই ধরণের সুযোগ কম তাদের জন্য এই সাইট। প্রশ্নকারীর প্রশ্নের অস্পষ্টতার কারনে ও কিছু বিষয়ে কোরআন ও হাদীসের একাধিক বর্ণনার কারনে অনেক সময় কিছু উত্তরে ভিন্নতা আসতে পারে। তাই কোনো বড় সিদ্ধান্ত এই সাইটের উপর ভিত্তি করে না নিয়ে বরং সরাসরি মুফতি সাহেবদের সাথে যোগাযোগ করলে ভালো হয়। অন্যদিকে প্রতিমাসে একাধিকবার আমাদের মুফতি সাহেবগন জুমের মাধ্যমে সরাসরি প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন। সেই ক্লাসগুলোতেও জয়েন করার জন্য অনুরোধ করা গেল। ক্লাসের সিডিউল: fb.com/iomedu.org

Related questions

...