0 votes
13 views
in পরিবার,বিবাহ,তালাক (Family Life,Marriage & Divorce) by (30 points)
মুফতী সাহেব,

বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষা অর্জনকালীন সময়ে দুজন ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে পরিচয় ও প্রেমের সম্পর্ক হয়। সামান্য ধর্মীয় জ্ঞান থাকায় তারা প্রেমের সম্পর্ক কে বিয়ে তে রুপ দেয়। কাজী অফিসে স্বাক্ষীদের উপস্থিতিতে পরিবারকে না জানিয়ে ৩,০০,০০০/- মহরে বিয়ে করে। পরবর্তীতে আবার পরিবারের সকল সদস্য কে নিয়ে ফাতেমী মোহরে বিয়ে করে। আমার প্রশ্ন হচ্ছে, পরিবারকে দেখানোর জন্য দ্বিতীয় বিয়ে যে করেছে তাতে কোনো সমস্যা হয়েছে কিনা? এবং স্বামী কে কোন মহর আদায় করতে হবে, প্রথম, দ্বিতীয় নাকী উভয়টি?

1 Answer

0 votes
by (32.2k points)

বিসমিহি তা'আলা

জবাবঃ-

প্রাপ্ত বয়স্ক ছেলে-মেয়ে অভিবাবকের অনুমতি ব্যতীত বিয়ে করে নিলে, সে বিয়ে শুদ্ধ হয়ে যায়।তবে ছেলে গায়রে কু'ফু হলে অভিবাবকের অনুমতির উপর মওকুফ থাকবে।এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে ভিজিট করুন-408

এবং কু'ফু সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে ভিজিট করুন- 780

সু-প্রিয় প্রশ্নকারী দ্বীনী ভাই/বোন!

যদি ছেলের সাথে আপনার কু'ফুর মিল থাকে,তাহলে আপনার প্রথম বিয়েই শুদ্ধ হয়ে গেছে।

দ্বিতয় বিয়েটা লোকদেখানো ছাড়া আর কিছুই নয়।শরীয়তে এর কোনো প্রভাব নেই।

মহর হচ্ছে ক্রয়-বিক্রয়ের মত একটি আর্থিক চুক্তি ও লেনদেন। বিয়ের সময় যা নির্ধারণ করা হয়,পরবর্তীতে স্বামী-স্ত্রী উভয় বা উভয় পক্ষের সম্মতিতে কমানো ও বাড়ানো যায়।

ফাতাওয়ায়ে হিন্দিয়ায় বর্ণিত রয়েছে,

. فَإِذَا زَادَهَا فِي الْمَهْرِ بَعْدَ الْعَقْدِ لَزِمَتْهُ الزِّيَادَةُ،

স্বামী যদি সে তার স্ত্রীর নির্ধারিত মহরের চেয়ে অতিরিক্ত কিছু দিতে চায়, তাহলে এই অতিরিক্ত মহর প্রদাণ করা স্বামীর উপর ওয়াজিব হয়ে যাবে।

وَإِنْ حَطَّتْ عَنْ مَهْرِهَا صَحَّ الْحَطُّ، كَذَا فِي الْهِدَايَةِ. وَلَا بُدَّ فِي صِحَّةِ حَطِّهَا مِنْ الرِّضَا حَتَّى لَوْ كَانَتْ مُكْرَهَةً لَمْ يَصِحَّ
যদি স্ত্রী সন্তুষ্টচিত্তে তার মহর থেকে কিছু কমিয়ে দেয়।তাহলে সে কমিয়ে দেয়াও বিশুদ্ধ হবে।যদি স্ত্রী চাপে পড়ে কমায় তাহলে সেই কমানো বৈধ হবে না।

(ফাতাওয়ায়ে হিন্দিয়া-১/৩১২-৩১৩)

যদি শেষোক্ত মহরটা পরিবার নির্ধারণ করে থাকে, এবং স্বামী-স্ত্রী উভয় বা কোনো একজন সেই নতুন মহরকে মেনে না নেয়,তাহলে প্রথমটাই কার্যকরী ও গ্রহণযোগ্য হবে।আর যদি স্বামী-স্ত্রী উভয় শেষোক্ত মহরকে আন্তরিকভাবে  মেনে নেয়,তাহলে সে অধিকারও তাদের রয়েছে।

স্বামী-স্ত্রী উভয়ের মধ্য থেকে শেষোক্ত মহর সম্পর্কে কারো অসম্মতি থাকলে প্রথম মহরই কার্যকরী ও গ্রহণযোগ্য হিসেবে বিবেচিত হবে।

আল্লাহ-ই ভালো জানেন।

উত্তর লিখনে

মুফতী ইমদাদুল হক

ইফতা বিভাগ, Iom.

ﻓَﺎﺳْﺄَﻟُﻮﺍْ ﺃَﻫْﻞَ ﺍﻟﺬِّﻛْﺮِ ﺇِﻥ ﻛُﻨﺘُﻢْ ﻻَ ﺗَﻌْﻠَﻤُﻮﻥَ অতএব জ্ঞানীদেরকে জিজ্ঞেস করো, যদি তোমরা না জানো। সূরা নাহল-৪৩

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনার দ্বীন সম্পর্কীয় প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার জন্য রয়েছে আমাদের  অভিজ্ঞ ওলামায়কেরাম ও মুফতি সাহেবগনের একটা টিম যারা ইনশাআল্লাহ প্রশ্ন করার ২৪-৪৮ ঘন্টার সময়ের মধ্যেই প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন।

...