+1 vote
6 views
in ঈমান ও বিশ্বাস (Faith and Belief) by (1 point)
আস সালামু আলাইকুম।
হুজুর, একজন বিবাহিত ভাই, বিবাহের প্রায় চার বছর হয়ে গেছে কিন্তু কোন সন্তান নেই।  মেডিকেল টেস্ট করিয়েছেন তারা উভয়েই। কিন্তু কোন সমস্যা ধরা পড়ে নি।
তারা যে ঘরে থাকেন সে ঘরে কয়েকটা অস্বাভাবিক ঘটনা ঘটেছে।  তাদের ধারনা তাদের ঘরে জিনের আছর আছে। যার কারনে তাদের সন্তান হয় নি। অন্য এক ব্যক্তি ও তাদের এই কথা বলেছে।
দীর্ঘদিন বাইরে থাকার পর তার স্ত্রী এখন অন্তস্বত্তা। তারা এখন এলাকায় ফিরে এসেছে।  তাদের ধারনা যে পুনরায় সেই ঘরে থাকলে তাদের গর্ভস্ত সন্তানের ক্ষতি হতে পারে। তাই তারা প্রচলিত ' ঘর বন্ধ ' করে নিতে চায়।
এই ঘর বন্ধ করার হুকুম কি?

এমতাবস্থায় জিনের আছর থেকে বাচতে তারা কি করতে পারে যা শরীয়াহ সম্মত?

1 Answer

+1 vote
by (145,240 points)
ওয়া আলাইকুমুস-সালাম ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু। 
বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।
জবাবঃ-
https://www.ifatwa.info/3469 নং ফাতাওয়ায় জীনের আসর জাতীয় সমস্যার সমাধান কল্পে  আমরা বলেছিলাম যে,
সর্বপ্রথম পরামর্শ দিবো,ভালো কোনো বিশুদ্ধ আকিদার মুদাব্বিরের শরণাপন্ন হওয়ার।মুদাব্বির মানে যিনি কুরআন হাদীস থেকে সেহেরের চিকিৎসা করে থাকেন।যাকে রুকইয়ায়ে শরঈয়্যাহ বলা হয়।
তাছাড়া আপনাকে ঘরোয়া ভাবে কিছু রুকইয়ার পরমার্শ দিচ্ছি,
(১)সকল প্রকার ফরয ওয়াজিব ইবাদত যত্নসহকারে পালন করা।এবং সকল প্রকার হারাম ও নাজায়ে কাজ হতে বেঁচে থাকা।
(২) অধিক পরিমাণ কুরআন তেলাওয়াত করা।
(৩)দু'আ, জায়েয তাবীয ও যিকিরের মাধ্যমে নিজেকে হেফাজতের চেষ্টা করা।

নিম্নোক্ত দু'আকে সকাল সন্ধ্যা তিনবার করে পড়া।
بِسْمِ اللَّهِ الَّذِي لَا يَضُرُّ مَعَ اسْمِهِ شَيْءٌ، فِي الْأَرْضِ، وَلَا فِي السَّمَاءِ، وَهُوَ السَّمِيعُ الْعَلِيمُ، 
দেখুন-১০৯৩
প্রত্যক নামাযের পর ঘুমাইবার সময় এবং সকাল সন্ধ্যা আয়াতুল কুরসী পড়া।এবং ঘুমাইবার সময় ও সকাল সন্ধ্যা তিনবার করে সূরা নাস,সূরা ফালাক্ব ও সূরা ইখলাস তিনবার করে পড়া।এবং প্রতিদিন নিম্নোক্ত দু'আটি একশতবার করে পড়া।
لا اله الا الله وحده لا شريك له له الملك وله الحمد وهو على كل شيئ قدير،
প্রতিদিন সকাল সাতটা করে খেজুর খাওয়া।মদিনার খেজুর হলে ভালো।দেখুন- বিস্তারিত জানতে ভিজিট করুন- https://www.ifatwa.info/1816
(এলাজে কুরআনী-০৩)


সু-প্রিয় প্রশ্নকারী দ্বীনী ভাই/বোন!
হ্যা,জ্বীনরা মানুষকে ক্ষতি করে থাকে, অনেক সময় গর্ভের সন্তানের জন্য ক্ষতির কারণ তারা হয়ে থাকে, তারা মানুষের ক্ষতি করে থাকে। ভালো কোনো মুদাব্বির দ্বারা ঘর বন্ধ করার আ’মল করতে পারেন। মনে রাখতে হবে, সবকিছুই আল্লাহর হুকুমেই হয়।


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

ﻓَﺎﺳْﺄَﻟُﻮﺍْ ﺃَﻫْﻞَ ﺍﻟﺬِّﻛْﺮِ ﺇِﻥ ﻛُﻨﺘُﻢْ ﻻَ ﺗَﻌْﻠَﻤُﻮﻥَ অতএব জ্ঞানীদেরকে জিজ্ঞেস করো, যদি তোমরা না জানো। সূরা নাহল-৪৩

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন।

Related questions

...