0 votes
38 views
in বিবিধ মাস’আলা (Miscellaneous Fiqh) by (117 points)
  1. জাদুর মাধ্যমে কোন কিছু করলে আসলে সেটা কি শিরক হয় ?

  2. বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই জাদু বলতে কালা জাদু  কে বুঝানো হয় আসলে ভালো জাদু  কি রয়েছে  অর্থাৎ সাদা জাদু ?

  3. জাদু করার মাধ্যমে কেউ কি কাউকে মৃত্যু পর্যন্ত দিতে পারে কারণ কোরআনে যা যা পাওয়া যায় সেটা হলো যে জাদুর মাধ্যমে মানুষ বিবাহ বিচ্ছেদ এবং মানুষের মধ্যে সম্পর্ক কে খারাপ করতে পারে ?

  4.  বর্তমান বাংলাদেশে অনেক ধরনের কবিরাজ রয়েছে এখানে আসলে বোঝার উপায় কি যে কোন কবিরাজ আল্লাহর কালামকে ব্যবহার করছে এবং কোন কবিরাজ জাদু ব্যবহার করছে ?

1 Answer

0 votes
by (145,240 points)
ওয়া আলাইকুমুস-সালাম ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু। 
বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।
জবাবঃ-
(১) 
black magic বা জাদু যদি কুফরী কালাম দ্বারা করা হয়, তাহলে এটাই তার ঈমান-আমল বরবাদের যথেষ্ট হয়ে যাবে।
কুফরী কালাম দিয়ে জাদু করা হারাম এবং তা ঈমান বিধ্বংসী।
যাকে কোরআনের পরিভাষায় কুফর বলা হয়। এবং উক্ত জাদুকর কাফির হয়ে যাবেন।
এত্থেকে বেচে থাকা প্রত্যেক মুসলমানের অত্যাবশ্যকীয় দায়িত্ব ও কর্তব্য।
তবে প্রয়োজনে বৈধ কাজে বৈধ আ'মলের মাধ্যমে আল্লাহ তা'আলার কাছে বিভিন প্রকার দু'আ দুরুদ করার অনুমতি রয়েছে।
জাদুর আছর বুঝার বিভিন্ন পদ্ধতি রয়েছে।
সবচেয়ে নিরাপদ এবং গ্রহণযোগ্য মাধ্যম হলো,
জীবনের স্বাভাবিক চলাচলে ব্যাঘাত ঘটলে অতি তারাতারি কোনো বিজ্ঞ  মুদাব্বিরের শরণাপন্ন হওয়া।
*জাদুর ক্রিয়া/প্রভাব নষ্ট করার জন্য সুরা নাস এবং সুরা ফালাক বেশী বেশী করে পড়তে হবে।

(২) মানুষের ক্ষতির জন্য যে যাদু করা হয়, সেটার নাম কালো যাদু । আর মানুষের ভালোর জন্য যদি কিছু করা হয়, তাহলে সেটার নামই সাদা যাদু হওয়া উচিৎ। তবে এরকম প্রচলন সাধারণত নেই। 

(৩) মৃত্যু আল্লাহর হুকুমেই হয়ে থাকে, যাদু দ্বারা মানুষকে মৃত্যুর দ্বারপ্রান্তে পৌছানোর অনেক ঘটনা ইতিহাসে পাওয়া যায়। মূলত আল্লাহর হুকুমে যাদু দ্বারা মৃত্যু হয়ে থাকে। যেমন বন্দুকের গুলি দ্বারা আল্লাহর হুকুমেই মৃত্যু হয়ে থাকে। 

(৪) বুঝা বড়ই মুশকিল । এজন্য দ্বীনদার দেখেই এ বিষয়ে প্রদক্ষেপ গ্রহণ করা উচিৎ। 


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

ﻓَﺎﺳْﺄَﻟُﻮﺍْ ﺃَﻫْﻞَ ﺍﻟﺬِّﻛْﺮِ ﺇِﻥ ﻛُﻨﺘُﻢْ ﻻَ ﺗَﻌْﻠَﻤُﻮﻥَ অতএব জ্ঞানীদেরকে জিজ্ঞেস করো, যদি তোমরা না জানো। সূরা নাহল-৪৩

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন।

Related questions

...