+1 vote
28 views
in বিবিধ মাস’আলা (Miscellaneous Fiqh) by (2 points)
السلام عليكم ورحمه الله وبركاته
১.অযু ছাড়া কুরআন স্পর্শের বিধান কি?
ক.যে কুরআনে আরবি আছে শুধু তার ক্ষেত্রে?
খ.যে কুরআনে বাংলা আরবি দুটোই আছে
(যেমন- তাফসির)।

২.নতুন সিম কেনার পর -
১০টাকা ও ৩ জিবি ফ্রি পেয়েছি।
এটা ইউজ ও করেছি।এটা যেহেতু সুদী কোম্পানির পক্ষ থেকে প্রাপ্ত হাদিয়া(গ্রামীনফোন) তাই এই পরিমাণ টাকা কি সাওয়াবের নিয়ত বাদে সদকা করতে হবে কিনা?

৩.তাগুতের ও (কুফরি সংবিধানের ভিত্তিতে)
অধীনে পুলিশ, প্রসাশন,[বিচার বিভাগ,ওকালতি{যে আল্লাহর আইন ছাড়া অন্য কোনো আইন দিয়ে বিচার করে, সে কাফির এর ভিত্তিতে }] এই চারটি সেক্টরে আমাদের দেশের প্রেক্ষিতে চাকরির বিধান কি? তাদের বেতন থেকে কোনো খাদ্য হাদিয়া পেলে করনীয় কি?

৪.সফর অবস্থায় সুন্নাত নামায ছেড়ে দেওয়া সুন্নাত -এমন বলেছিলেন এক আলিম।সফরে সুন্নাত ও নফলের বিধান কি? নবীজি (স) ও সাহাবা (রা) কি আদায় করতেন না ছেড়ে দিতেন?

جزاكم الله خيرا

1 Answer

0 votes
by (127,480 points)
জবাব
وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته 
بسم الله الرحمن الرحيم 


(০১)
অজু ব্যতীত কুরআনকে স্পর্শ করা যায় না,তবে বিনা অজুতে কুরআনকে স্পর্শ করা ব্যতীত পড়া যাবে। 

চার মাযহাবের সিদ্বান্ত মতে বিনা অজুতে কোরআন শরীফকে স্পর্শ করা যাবে না।
,
হাদীস শরীফে এসেছে-

عَنْ عَبْدِ اللَّهِ بْنِ أَبِي بَكْرِ بْنِ حَزْمٍ أَنَّ فِي الْكِتَابِ الَّذِي كَتَبَهُ رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ لِعَمْرِو بْنِ حَزْمٍ أَنْ لَا يَمَسَّ الْقُرْآنَ إِلَّا طَاهِرٌ

হযরত আব্দুল্লাহ বিন আবু বকর বিন হাযম বলেনঃ রাসূল সাঃ আমর বিন হাযম এর কাছে এই মর্মে চিঠি লিখেছিলেন যে, পবিত্র হওয়া ছাড়া কুরআন কেউ স্পর্শ করবে না”।
 {মুয়াত্তা মালিক, হাদীস নং-৬৮০, কানযুল উম্মাল, হাদীস নং-২৮৩০, মারেফাতুস সুনান ওয়াল আসার, হাদীস নং-২০৯, আল মুজামুল কাবীর, হাদীস নং-১৩২১৭, আল মুজামুস সাগীর, হাদীস নং-১১৬২, মিশকাতুল মাসাবীহ, হাদীস নং-৪৬৫, সুনানে দারেমী, হাদীস নং-২২৬৬}

عن عبد الله بن عمر أن رسول الله صلى الله عليه وسلم قال:”لا يمس القرآن إلا طاهر“.
رواه الطبراني في الكبير والصغير ورجاله موثقون.

হযরত আব্দুল্লাহ বিন ওমর রাঃ থেকে বর্ণিত। রাসূল সাঃ ইরশাদ করেছেনঃ পবিত্র ব্যক্তি ছাড়া কেউ কুরআন স্পর্শ করবে না। {মাযমাউজ যাওয়ায়েদ, হাদীস নং-১৫১২}

 قال ابن عبد البر في الاستذكار (8/10): ((أجمع فقهاء الأمصار الذين تدور عليهم الفتوى وعلى أصحابهم بأن المصحف لا يمسه إلا طاهر

আল্লামা ইবনে আব্দিল বার রহঃ বলেনঃ সমগ্র পৃথিবীর সকল ফক্বীহগণ ও তাদের অনুসারীগণ একমত এবং এর উপরই সকলে ফাতওয়া প্রদান করে থাকেন যে, কুরআনে কারীম পবিত্র হওয়া ছাড়া স্পর্শ করা জায়েজ নেই। {আল ইসতিজকার-১০/৮}

আরো জানুনঃ 
,
অযু ছাড়া কুরআনের তাফসীর গ্রন্থ পড়ার বিধান জানুনঃ 
,
(০২)
এটি হারাম/সুদের টাকা নয়,এটি হালাল।
সুতরাং তাহা গ্রহন করা জায়েজ আছে। 
,
(০৩)
এসব চাকুরী করা জায়েজ আছে,তবে কোনো গুনাহের আদেশ মানা যাবেনা।
,
বিস্তারিত জানুনঃ
,
(০৪)
সফর অবস্থায় সুন্নাত নামাজ ছেড়ে দেওয়া জায়েজ আছে।
শরীয়ত রুখছত দিয়েছে।    
তবে সময় সুযোগ হলে সফর অবস্থায় সুন্নাত নামাজ পড়াই উত্তম।   
,
রাসুলুল্লাহ সাঃ সফর অবস্থায় সুন্নাত নামাজ পড়েছেন।     
বিস্তারিত জানুনঃ   


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

------------------------
মুফতী ওলি উল্লাহ
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

ﻓَﺎﺳْﺄَﻟُﻮﺍْ ﺃَﻫْﻞَ ﺍﻟﺬِّﻛْﺮِ ﺇِﻥ ﻛُﻨﺘُﻢْ ﻻَ ﺗَﻌْﻠَﻤُﻮﻥَ অতএব জ্ঞানীদেরকে জিজ্ঞেস করো, যদি তোমরা না জানো। সূরা নাহল-৪৩

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন।

Related questions

...