আইফতোয়াতে ওয়াসওয়াসা সংক্রান্ত প্রশ্নের উত্তর দেওয়া হবে না। ওয়াসওয়াসায় আক্রান্ত ব্যক্তির চিকিৎসা ও করণীয় সম্পর্কে জানতে এখানে ক্লিক করুন

0 votes
61 views
in বিবিধ মাস’আলা (Miscellaneous Fiqh) by (3 points)

Assalamualaikum shaykh

1)I am a boy and a college going student. I've always studied in my life in co educational institutions but never been in any sort of haram activities. From class 4 I have felt attraction towards women but always I tried to control myself thinking for someday better as my wife than the girls in my school or college who will be far better than me. THIS WAS THE ONLY THING THAT PREVENTED ME FROM INDULGING IN ANY SUCH ACTIVITIES.I always avoided friendship with girls as I didn't feel to talk to them as they would mix other boys. I felt like I don't need any women who laughs and gossips with other boys. I was very unhappy of not having a girlfriend or something like that. I was taught Quran at my childhood by an alem that always made me think like I can't do this thing and cannot do that( as I never saw any alem singing,dancing,having female friends). I was happy with that. But when I was 16 I felt like I'm just a looser and most backdated human being on the face of earth. I was severely depressed. During corona, I got to know about our deen much properly and started practising. I even toolk farz e ain course at IOM but I'm recently not studying due to my general studies. I felt practising the deen I will be happy. Most importantly I will have a pious and a virgin(physically) wife in the future as I have never been in an any sort of relationship even though I felt to be friends and having relationship with them. Girls have always been a fitnah from my young age. But recently, when I started going through different fatwa website I came to know that a lot of brothers and sisters get married and find their spouse being non virgin(physically) whereas they didn't even look at opposite gender properly in their life. I also came to know that you can't ask your potential spouse about any relationship they had or not. I have seen the references. I accept it. I have no problem or hatred for any muslim man or a woman having past and now they have repented and changed. But me at my age now don't feel any urge to keep myself virgin or chaste. Majority of my friends around me have a girlfriend or they chat with female friend. It is not destroying their studies. They are not practising but in general good human being. They are totally well in their life. They feel like you can't expect a pious and virgin woman in this age and so you can do whatever you want. In these condition, I am starting to feel depressed and not feeling any urge to protect my gaze or even have haram relationship with woman. I just feel like I can make taubah and keep them secret. Many are doing it. I feel like I can get into some relationship or zinah(serious) when I am at the university as a lot of young men. I am not feeling any kind of urge or motivation of keeping myself chaste and not mixing with girls which i believe can do it thougb it is haram.I don't want to be like this. I want to be a practising man. But I can't keep myself steadfast as I always have thoughts about this and can't sleep properly. I always sought for a pious and a virtuous virgin(physically not according to shariah as shariah says if anybody makes taubah it is gone. But the condition of the body is still intact) wife but can't hope for that now. I am falling into sins that are so disgusting.What can I do now?

2) In islamic law you need four eye witness in proving zinah. But this is kind of impossible that four men will see that activity to be done in so details. So ensuring punishment is tough. So how will islam prevent zinah and adultery in a state where shariah law is there and in countries like ours.

Please consider me as your dear son in answering the question so that I can feel relieved.

by (746,320 points)
আপনি সঠিক নাম ব্যবহার করুন।

1 Answer

0 votes
by (746,320 points)

ওয়া আলাইকুমুস-সালাম ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু।
বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।
জবাবঃ-
আলহামদুলিল্লাহ!
(১)
আল্লাহ তা'আলা বলে,
الْخَبِيثَاتُ لِلْخَبِيثِينَ وَالْخَبِيثُونَ لِلْخَبِيثَاتِ ۖ وَالطَّيِّبَاتُ لِلطَّيِّبِينَ وَالطَّيِّبُونَ لِلطَّيِّبَاتِ ۚ أُولَـٰئِكَ مُبَرَّءُونَ مِمَّا يَقُولُونَ ۖ لَهُم مَّغْفِرَةٌ وَرِزْقٌ كَرِيمٌ
দুশ্চরিত্রা নারীকূল দুশ্চরিত্র পুরুষকুলের জন্যে এবং দুশ্চরিত্র পুরুষকুল দুশ্চরিত্রা নারীকুলের জন্যে। সচ্চরিত্রা নারীকুল সচ্চরিত্র পুরুষকুলের জন্যে এবং সচ্চরিত্র পুরুষকুল সচ্চরিত্রা নারীকুলের জন্যে। তাদের সম্পর্কে লোকে যা বলে, তার সাথে তারা সম্পর্কহীন। তাদের জন্যে আছে ক্ষমা ও সম্মানজনক জীবিকা।

এই আয়াতের সহজ অর্থ হচ্ছে,দুশ্চরিত্র নারীর জন্য দুশ্চিত্র পুরুষই উপযোক্ত এভাবে ঠিক তার উল্টো।এ অর্থ নয় যে,দুশ্চরিত্র নারী দুশ্চরিত্র পরুষকেই পাবে।হতে পারে আবার নাও পেতে পারে।এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন-https://www.ifatwa.info/4612

সু-প্রিয় প্রশ্নকারী দ্বীনী ভাই/বোন!
নিজের চাহিদামত পাত্রী পাওয়ার জন্য প্রথমত নিজেকে গোনাহ থেকে দূরে রাখতে হবে।এবং অত্যাবশ্যকীয় ভাবে আল্লাহর কাছে দু'আ করতে হবে।আল্লাহর কাছে চাইলে আল্লাহ কখনো কাউকে ফিরিয়ে দেননা।
وَقَالَ رَبُّكُمُ ادْعُونِي أَسْتَجِبْ لَكُمْ ۚ إِنَّ الَّذِينَ يَسْتَكْبِرُونَ عَنْ عِبَادَتِي سَيَدْخُلُونَ جَهَنَّمَ دَاخِرِينَ
তোমার প্রতিপালক বলেন- তোমরা আমাকে ডাকো, আমি (তোমাদের ডাকে) সাড়া দেব। আরও তাঁর বাণীঃ যারা অহংকারবশতঃ আমার ’ইবাদাত করে না, নিশ্চিতই তারা লাঞ্ছিত অবস্থায় জাহান্নামে প্রবেশ করবে।’’ (সূরা আল-মু’মিন ৪০/৬০)

(২)
যিনা ব্যভিচার প্রমাণিত হলে, নিশ্চিতভাবে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করতে হবে। তখন আর পিছপা করা যাবে না। যেহেতু মৃত্যুদণ্ড ই নিশ্চিত বিধান। তাই এই বিধান কার্যকর করার পূর্বে সকল প্রকার সন্দেহকে দূর করতে হবে। সকল প্রকার সন্দেহকে দূর করার জন্যই চারজন সাক্ষীর ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। চারজন সাক্ষী পাওয়া না গেলে যদিও মৃত্যুদণ্ডকে কার্যকর করা যাবে না। তথাপি সরকার তা'যির তথা বিভিন্ন শাস্তি কার্যকর করবে।


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন। উত্তর না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনি প্রতিমাসে সর্বোচ্চ ৪ টি প্রশ্ন করতে পারবেন। এই প্রশ্ন ও উত্তরগুলো আমাদের ফেসবুকেও শেয়ার করা হবে। তাই প্রশ্ন করার সময় সুন্দর ও সাবলীল ভাষা ব্যবহার করুন।

বি.দ্র: প্রশ্ন করা ও ইলম অর্জনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো সরাসরি মুফতি সাহেবের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করা যেখানে প্রশ্নকারীর প্রশ্ন বিস্তারিত জানার ও বোঝার সুযোগ থাকে। যাদের এই ধরণের সুযোগ কম তাদের জন্য এই সাইট। প্রশ্নকারীর প্রশ্নের অস্পষ্টতার কারনে ও কিছু বিষয়ে কোরআন ও হাদীসের একাধিক বর্ণনার কারনে অনেক সময় কিছু উত্তরে ভিন্নতা আসতে পারে। তাই কোনো বড় সিদ্ধান্ত এই সাইটের উপর ভিত্তি করে না নিয়ে বরং সরাসরি স্থানীয় মুফতি সাহেবদের সাথে যোগাযোগ করতে হবে।

Related questions

0 votes
1 answer 769 views
...