আইফতোয়াতে ওয়াসওয়াসা সংক্রান্ত প্রশ্নের উত্তর দেওয়া হবে না। ওয়াসওয়াসায় আক্রান্ত ব্যক্তির চিকিৎসা ও করণীয় সম্পর্কে জানতে এখানে ক্লিক করুন

0 votes
33 views
in বিবিধ মাস’আলা (Miscellaneous Fiqh) by (64 points)
১।হিন্দুদের ধর্মীয় অনুষ্ঠান শেষ তাদের ঘর ফুল দিয়ে সাজিয়ে ছিলো অনুষ্ঠান উপলক্ষে এখন অনুষ্ঠান শেষ ফুল নাকি ফেলে দিবে কিন্তু তার আগে আমরা চুরি করতে গিয়ে দুই তিন গ্রামের মানুষের দৌড়ানি খাই। তারাতো ফেলেই দিতো একারনে কি তাদের কাছে মাফ চাইতে হবে কি?

২।উপরের প্রশ্নে  চুরির বিষয় এইজন্য অন্য একজনকে দিয়ে তাদের পরিবারের সবার বড় মহিলা মুরব্বির কাছে মাফ চাইতে সে বলছে চাইছে

৩।একজন দাওরা ফাস আলেম বলছেন যে অতিতের বান্দার হক ক্ষমা চাইতে হবে না আল্লাহ পাক এর কাছে খাস দিলে তওবা কর এই বিষয় নিয়ে এত পেরেশান হওয়ার কিছু নাই তার বক্তব্য কি সঠিক হইছে?

৪।এখন প্রায় মানুষ গীবত বলে যেখানে যাই সেখানে দেখি অন্যের দোষ চর্চা করে ঘরে বাইরে দুইএকজন মানুষ একসাথে হলেই শুরু হয়ে যায় অমুক এই করছে তমুক এই করছে । এক জায়গায় বসছি তারা শুরু করছে গীবত উঠতে মন চাইতেছে না তাহলে আমার গুনাহ হবে?

৫।আমি শুনছি যে যার নামে গীবত করা হয়েছে সে যদি শুনতে না পায় তার কাছে মাফ চাইতে হবে না সেটা কি যে গিবত শুনছে তার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে

1 Answer

0 votes
by (735,240 points)
বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।
জবাবঃ-
আলহামদুলিল্লাহ!
(১) প্রশ্নের বিবরণ অনুযায়ী তাদের কাছে মাফ চাইতে হবে না।

(২) চুরি পরিত্যাগ করে আল্লাহর কাছে মাফ চাইতে হবে। ঐ সব লোকদের নিকট মাফ চাইতে হবে না।

(৩) জ্বী, উনার বক্তব্য সঠিক।

(৪) কোথাও বসে আছেন,লোকজন গীবত শুরু করে নিয়েছে, উক্ত মজলিস থেকে উঠতে মন না চাইলে, এতেকরে আপনার গুনাহ হবে না। তবে যদি গীবতকে ভালবেসে মন উঠতে না চায়, তাহলে ইচ্ছাকৃত গীবত শ্রবণের গোনাহ হবে।

(৫) যার নামে গীবত করা হয়েছে সে যদি শুনতে না পায়, তাহলে তার কাছে মাফ চাইতে হবে না। যে গিবত শুনছে তাকে কখনোই মাফ চাইতে হবে না।


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন। উত্তর না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনি প্রতিমাসে সর্বোচ্চ ৪ টি প্রশ্ন করতে পারবেন। এই প্রশ্ন ও উত্তরগুলো আমাদের ফেসবুকেও শেয়ার করা হবে। তাই প্রশ্ন করার সময় সুন্দর ও সাবলীল ভাষা ব্যবহার করুন।

বি.দ্র: প্রশ্ন করা ও ইলম অর্জনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো সরাসরি মুফতি সাহেবের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করা যেখানে প্রশ্নকারীর প্রশ্ন বিস্তারিত জানার ও বোঝার সুযোগ থাকে। যাদের এই ধরণের সুযোগ কম তাদের জন্য এই সাইট। প্রশ্নকারীর প্রশ্নের অস্পষ্টতার কারনে ও কিছু বিষয়ে কোরআন ও হাদীসের একাধিক বর্ণনার কারনে অনেক সময় কিছু উত্তরে ভিন্নতা আসতে পারে। তাই কোনো বড় সিদ্ধান্ত এই সাইটের উপর ভিত্তি করে না নিয়ে বরং সরাসরি স্থানীয় মুফতি সাহেবদের সাথে যোগাযোগ করতে হবে।

Related questions

...