আইফতোয়াতে ওয়াসওয়াসা সংক্রান্ত প্রশ্নের উত্তর দেওয়া হবে না। ওয়াসওয়াসায় আক্রান্ত ব্যক্তির চিকিৎসা ও করণীয় সম্পর্কে জানতে এখানে ক্লিক করুন

0 votes
28 views
in বিবিধ মাস’আলা (Miscellaneous Fiqh) by (27 points)

আসসালামু আলাইকুম 
 

১) “ক” ব্যক্তি “গ” ব্যক্তির উপর জুলুম করলে এবং তখন “গ” ব্যক্তি রেগে “ক” ব্যক্তির সাথে দুর্ব্যবহার করলে বা পাল্টা জুলুম করে ফেলে। তখন এই দুর্ব্যবহার বা পাল্টা জুলুমের কারণে “ক” ব্যক্তি “গ” ব্যক্তিকে অভিশাপ দেয় সেই অভিশাপ কি “গ” ব্যক্তির লাগবে? 

 

২) ১ নং অনুযায়ী “গ” ব্যক্তির অভিশাপ লাগলে আর পরবর্তীতে “ক” ব্যক্তি “গ” ব্যক্তির উপর জুলুম করলে “গ” ব্যক্তি এবার পাল্টা জুলুম না করে অভিশাপ দেয় যে “ক” ব্যক্তির পূর্বে এমন /এই(নির্দিষ্ট অভিশাপের ক্ষেত্রে) অভিশাপ যেন কবুল না হয় বা কেটে যায় বা বাদ পড়ে যায়। এমনটা করা যাবে ইসলাম অনুযায়ী?  


 

৩) অনেক ক্ষেত্রেই মানুষ আমাকে অযোগ্য প্রমাণ করতে চায়, অন্যদের সামনে দেখাতে চায় আমাকে অযোগ্য হিসেবে, অনেকে এটা না দেখালেও ধারণা বা মনে করে আমি অযোগ্য । যা হয়তো তারা এটা হিংসা থেকে করে বা মূর্খতা থেকে করে এটাও কি জুলুমের অন্তর্ভুক্ত? 

বিঃদ্রঃ অযোগ্য হওয়ার বিষয় মিথ্যা। এমন জিনিসে আমাকে অযোগ্য দেখাতে চায় যা সত্য নয়। 


 

৪) বিধর্মীরা ইমানদারের উপর জুলুম করলে আর ইমানদার তাদের অভিশাপ না দিলে বা জুলুমের প্রতিশোধ না নিলে তারাও কি আখিরাতে ইমানদার থেকে গুনাহের অংশ নিবে? তারা গুনাহ নিলেও জাহান্নামী না নিলেও তো জাহান্নামী হবে। তাই জানতে চাওয়া। এ প্রশ্ন ১ আর ২ নং প্রশ্নের সাথে মিল নেই। 


 

জাযাকাল্লাহু খাইরান

1 Answer

0 votes
by (701,080 points)
জবাবঃ-
وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته 
بسم الله الرحمن الرحيم

মাযলুম যালিমের কাছ থেকে সীমালঙ্ঘন ব্যতীত প্রতিশোধগ্রহণ করতে পারবে বা প্রতিশোধের অপেক্ষায় থাকতে পারবে এতে তার কোন প্রকার গুনাহ হবেনা।এ সম্পর্কে আরোও শুনুন আল্লাহর তা'আলার বাণী.....

ﻭَﺍﻟَّﺬِﻳﻦَ ﺇِﺫَﺍ ﺃَﺻَﺎﺑَﻬُﻢُ ﺍﻟْﺒَﻐْﻲُ ﻫُﻢْ ﻳَﻨﺘَﺼِﺮُﻭﻥَ

যারা আক্রান্ত হলে প্রতিশোধ গ্রহণ করে।(৪২সূরা আশ শূরা-৩৯)
ﻭَﺟَﺰَﺍﺀ ﺳَﻴِّﺌَﺔٍ ﺳَﻴِّﺌَﺔٌ ﻣِّﺜْﻠُﻬَﺎ ﻓَﻤَﻦْ ﻋَﻔَﺎ ﻭَﺃَﺻْﻠَﺢَ ﻓَﺄَﺟْﺮُﻩُ ﻋَﻠَﻰ ﺍﻟﻠَّﻪِ ﺇِﻧَّﻪُ ﻟَﺎ ﻳُﺤِﺐُّ ﺍﻟﻈَّﺎﻟِﻤِﻴﻦَ

আর মন্দের প্রতিফল তো অনুরূপ মন্দই। যে ক্ষমা করে ও আপোষ করে তার পুরস্কার আল্লাহর কাছে রয়েছে; নিশ্চয় তিনি অত্যাচারীদেরকে পছন্দ করেন নাই।(৪২/৪০)

ﻭَﻟَﻤَﻦِ ﺍﻧْﺘَﺼَﺮَ ﺑَﻌْﺪَ ﻇُﻠْﻤِﻪِ ﻓَﺄُﻭْﻟﺌِﻚَ ﻣَﺎ ﻋَﻠَﻴْﻬِﻢ ﻣِّﻦ ﺳَﺒِﻴْﻞٍ ، ﺇِﻧَّﻤَﺎ ﺍﻟﺴَّﺒِﻴﻞُ ﻋَﻠَﻰْ ﺍﻟّﺬِﻳْﻦَ ﻳَﻈْﻠِﻤُﻮﻥَ ﺍﻟﻨَّﺎﺱَ ﻭَﻳَﺒْﻐُﻮﻥَ ﻓِﻲْ ﺍﻟْﺄَﺭْﺽِ ﺑِﻐَﻴْﺮِ ﺍﻟْﺤَﻖّ ، ﺃُﻭْﻟﺌِﻚَ ﻟَﻬُﻢ ﻋَﺬَﺍﺏٌ ﺃَﻟِﻴﻢٌ

নিশ্চয় যে অত্যাচারিত হওয়ার পর প্রতিশোধ গ্রহণ করে, তাদের বিরুদ্ধেও কোন অভিযোগ নেই।
অভিযোগ কেবল তাদের বিরুদ্ধে, যারা মানুষের উপর অত্যাচার চালায় এবং পৃথিবীতে অন্যায়ভাবে বিদ্রোহ করে বেড়ায়। তাদের জন্যে রয়েছে যন্ত্রণাদায়ক শাস্তি।(৪২/৪১-৪২)

আরো জানুনঃ  

★সু-প্রিয় প্রশ্নকারী দ্বীনি ভাই/বোন,
(০১)
এক্ষেত্রে যদি “গ” ব্যক্তি “ক” ব্যক্তির উপর সীমালঙ্ঘন ছাড়াই প্রতিশোধ নিয়ে ফেলে। তখন এই প্রতিশোধ এর কারণে “ক” ব্যক্তি “গ” ব্যক্তিকে যদি অভিশাপ দেয় সেই অভিশাপ “গ” ব্যক্তির লাগবেনা।


আর যদি প্রতিশোধ নেয়ার ক্ষেত্রে সীমালঙ্ঘন করে ফেলে,সেক্ষেত্রে “ক” ব্যক্তি “গ” ব্যক্তিকে অভিশাপ দিলে সেই অভিশাপ “গ” ব্যক্তির লাগবে।

(০২)
তার অভিশাপ যেনো না লাগে,এমনটি আল্লাহর কাছে দোয়া করা যাবে।

তবে তাকে অভিশাপ দেয়া জায়েজ নেই।

(০৩)
হ্যাঁ, এটাও জুলুমের অন্তর্ভুক্ত।

(০৪)
আল্লাহ তায়ালা চাইলে ও ঐ বান্দা চাইলে সেই ঈমানদারের গুনাহ সেই কাফের নিবে।

এতে কাফেরের শাস্তি তো একই থাকবে,তবে মুমিনের জন্য উপকার হবে যে ঐ গুনাহগুলোর শাস্তি তার আগ ভোগ করতে হলোনা।


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

------------------------
মুফতী ওলি উল্লাহ
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন। উত্তর না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনি প্রতিমাসে সর্বোচ্চ ৪ টি প্রশ্ন করতে পারবেন। এই প্রশ্ন ও উত্তরগুলো আমাদের ফেসবুকেও শেয়ার করা হবে। তাই প্রশ্ন করার সময় সুন্দর ও সাবলীল ভাষা ব্যবহার করুন।

বি.দ্র: প্রশ্ন করা ও ইলম অর্জনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো সরাসরি মুফতি সাহেবের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করা যেখানে প্রশ্নকারীর প্রশ্ন বিস্তারিত জানার ও বোঝার সুযোগ থাকে। যাদের এই ধরণের সুযোগ কম তাদের জন্য এই সাইট। প্রশ্নকারীর প্রশ্নের অস্পষ্টতার কারনে ও কিছু বিষয়ে কোরআন ও হাদীসের একাধিক বর্ণনার কারনে অনেক সময় কিছু উত্তরে ভিন্নতা আসতে পারে। তাই কোনো বড় সিদ্ধান্ত এই সাইটের উপর ভিত্তি করে না নিয়ে বরং সরাসরি স্থানীয় মুফতি সাহেবদের সাথে যোগাযোগ করতে হবে।

Related questions

...