0 votes
301 views
in পরিবার,বিবাহ,তালাক (Family Life,Marriage & Divorce) by (3 points)
আসসালামু-আলাইকুম।আমার ইচ্ছা কোন দীনদার মেয়ে বিয়ে করা।কিন্তু বাবা-মার দীনের ব্যাপারে অতটা বুজ না থাকায়,তারা যদি অন্য কাউকে বিয়ে করার জন্য আমাকে জোর করে যাকে আমার পছন্দ নয়।সে ক্ষেত্রে আমি যদি তাদের মতের বিরুদ্ধে গিয়ে কোন সিদ্ধান্ত নেই,সেটা কি শরীয়াহ সম্মত হবে?

1 Answer

0 votes
by (40,960 points)

বিসমিহি তা'আলা

জবাবঃ-

মাতাপিতার অসম্মতিতে পুরুষ যেকোনো ধরণের পাত্রীকে বিয়ে করতে পারবে।তবে মহিলা শুধুমাত্র কু'ফুতে(সমান সমান) বিয়ে করতে পারবে।যদিও এভাবে করলে সেটা জায়েয হয়ে যায়, তথাপি অবশ্যই অবশ্যই ইহা উত্তমতার খেলাফ। মাতাপিতার সন্তুষ্টিতে রয়েছে সন্তানের জন্য দুনিয়া ও আখেরাতের সকল প্রকার কল্যাণের ঝর্ণাধারা।হ্যা শরীয়ত বিরোধী কোনো কাজে কখনো কারো বশ্যতা স্বীকার করা যাবে না।

নেককার স্ত্রী পৃথিবীর সর্বোত্তম সম্পদ।

হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রাযি থেকে বর্ণিত,

عن ﻋَﺒْﺪِ ﺍﻟﻠَّﻪِ ﺑْﻦِ ﻋَﻤْﺮٍﻭ ﺃَﻥَّ ﺭَﺳُﻮﻝَ ﺍﻟﻠَّﻪِ ﺻَﻠَّﻰ ﺍﻟﻠَّﻪُ ﻋَﻠَﻴْﻪِ ﻭَﺳَﻠَّﻢَ ﻗَﺎﻝَ : ( ﺍﻟﺪُّﻧْﻴَﺎ ﻣَﺘَﺎﻉٌ ﻭَﺧَﻴْﺮُ ﻣَﺘَﺎﻉِ ﺍﻟﺪُّﻧْﻴَﺎ ﺍﻟْﻤَﺮْﺃَﺓُ ﺍﻟﺼَّﺎﻟِﺤَﺔُ )

রাসূলুল্লাহ সাঃ বলেন,দুনিয়া হল সম্পদ।আর দুনিয়ার শ্রেষ্ট সম্পদ হলো,নেককার স্ত্রী।(সহীহ মুসলিম-১৪৬৭)

 ( ﺇِﻧَّﻤَﺎ ﺍﻟﺪُّﻧْﻴَﺎ ﻣَﺘَﺎﻉٌ ﻭَﻟَﻴْﺲَ ﻣِﻦْ ﻣَﺘَﺎﻉِ ﺍﻟﺪُّﻧْﻴَﺎ ﺷَﻲْﺀٌ ﺃَﻓْﻀَﻞَ ﻣِﻦْ ﺍﻟْﻤَﺮْﺃَﺓِ ﺍﻟﺼَّﺎﻟِﺤَﺔِ )

নিশ্চয় দুনিয়াটা সম্পদ সমূহে ভরপুর।আর দুনিয়ার কোনো জিনিষ নেককার স্ত্রী থেকে উত্তম হতে পারে না।(সুনানে ইবনে মা'জা ১৮৫৫)

আপনি নেককার স্ত্রীর খোজে রয়েছেন। আপনি যথার্থই আছেন।তবে মাতাপিতার অজান্তে নয়।বরং মাতাপিতার অবগতিতে তাদের সম্মতি আদায় করেই বিয়ে করবেন।তাদের সম্মতি আদায় করতে সর্বোচ্ছ চেষ্টা করবেন।আল্লাহর কাছে সাহায্য প্রার্থনা করবেন।যদি দেখেন মাতাপিতা এমন কোনো মেয়ে আপনার জন্য নিয়ে আসতেছে,যার কারণে আপনার দ্বীন-ধর্ম সবকিছুই ধংস হয়ে যাবে,তাহলে এমতাবস্থায় মাতাপিতার প্রতি যথাযথ শ্রদ্ধা রেখে পরবর্তীতে তাদেরকে খুশী করার নিয়ত রেখে আপনি নেককারকে বিয়ে করবেন।

কেননা এমতাবস্থায় মাতাপিতার আদেশ মান্য করা আপনার প্রতি ওয়াজিব নয়।

বিস্তারিত জানতে ভিজিট করুন- 18

অাল্লাহ-ই ভালো জানেন।

উত্তর লিখনে

মুফতী ইমদাদুল হক

ইফতা বিভাগ, Iom.

পরিচালক

ইসলামিক রিচার্স কাউন্সিল বাংলাদেশ


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

ﻓَﺎﺳْﺄَﻟُﻮﺍْ ﺃَﻫْﻞَ ﺍﻟﺬِّﻛْﺮِ ﺇِﻥ ﻛُﻨﺘُﻢْ ﻻَ ﺗَﻌْﻠَﻤُﻮﻥَ অতএব জ্ঞানীদেরকে জিজ্ঞেস করো, যদি তোমরা না জানো। সূরা নাহল-৪৩

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন।

Related questions

0 votes
1 answer 70 views
...