+1 vote
84 views
in পবিত্রতা (Purity) by (5 points)
বাথরুমের দরজায় দোআ লিখলে কি কোনো প্রবলেম হবে? কারন দরজা অফ করলে বাথরুমের ভিতরে দোআর কাগজটা থেকে যায়। যেমন আমি যদি লিখি বাথরুম থেকে বের হওয়ার দোয়াঃ গুফরা নাকা। সাধারণত মনে রাখার জন্য এইভাবে লিখে রাখলে কি কোনো গুনাহ হবে?

1 Answer

0 votes
by (80,280 points)
জবাব
بسم الله الرحمن الرحيم 


বাথরুম প্রবেশ এবং বাহির হওয়ার দোয়া পড়ক সুন্নাত।হাদীস শরীফে এসেছেঃ
   
عن أنس بن مالك رضي الله عنه قال كان النبي صلي الله عليه وسلم إذا دخل الخلاء قال اللهم إني أعوذ بك من الخبث والخبائث. ( صحيح البخاري ت-رقم6322-ج16/68)

আনাস বিন মালিক (রাঃ) থেকে বর্ণিত, নবী (ছাঃ) যখন টয়লেটে প্রবেশ করতেন তখন 
اللهم إني أعوذ بك من الخبث والخبائث
পড়তেন।

শরীয়তের বিধান হলো  টয়লেটে কুরআনের আয়াত,হাদীস,আল্লাহ রাসুলের নাম ইত্যাদি নিয়ে যাওয়া মাকরুহে তাহরিমি।      
(জামিউল ফাতওয়া ৩/১১০) 
,
হাদীস শরীফে এসেছেঃ
 
وعن أنس رضي الله عنه قال : كان رسول الله صلي الله عليه وسلم إذا دخل الخلاء نزع خاتمه. (سنن الترمذي -طبعة بشار -ومعها حواشي - رقم1746 ج 3 / ص 281) 

আনাস (রাঃ) থেকে বর্ণিত, নবী (ছাঃ) যখন টয়লেটে প্রবেশ করতেন তখন আংটি খুলে রাখতেন।

(عن أنس رضي الله عنه قال: كان النبي صلي الله عليه وسلم ) : شرح الحديث من المرقات: (عن أنس قال: كان النبي صلي الله عليه وسلم ) (إذا دخل الخلاء) : أي: أراد دخوله (نزع) : أي: أخرج من أصبعه (خاتمه) : بفتح التاء، وقيل بكسرها لأن نقشه، محمد رسول الله صلي الله عليه وسلم ، وفيه دليل على وجوب تنحية المستنجي اسم الله واسم رسوله والقرآن كذا قاله الطيبي. قال الأبهري: ويعم الرسل. وقال ابن حجر: استفيد منه أنه يندب لمريد التبرز أن ينحي كل ما عليه معظم من اسم الله تعالى أو نبي أو ملك فإن خالف كره اهـ. وهو الموافق لمذهبنا (رواه أبو داود، والنسائي، والترمذي، وقال: هذا حديث حسن صحيح غريب)

সারমর্মঃঃ আল্লাহ অথবা রাসুল সাঃ এর নাম,কুরআন সম্বলিত কোনো কিছু নিয়ে টয়লেট যাওয়া যাবেনা।
বাহিরে রেখে আসতে হবে।
অন্যথায় এর খেলাফ করলে মাকরূহ হবে।       
۔
عَنْ أَنَسٍ قَالَ كَانَ النَّبِي صلي الله عليه وسلم 
 إِذَا دَخَلَ الْخَلاَءَ وَضَعَ خَاتَمَهُ.

 আনাস (রাঃ) থেকে বর্ণিত, নবী (ছাঃ) যখন টয়লেটে প্রবেশ করতেন তখন আংটি খুলে রাখতেন।
(আবুদাঊদ হা/১৯; তিরমিযী হা/১৭৪৬; নাসাঈ হা/৫২১৩; মিশকাত হা/৩৪৩; বঙ্গানুবাদ মিশকাত হা/৩১৬, ২/৬২।)

আর একথা স্পষ্ট যে রাসুলুল্লাহ সাঃ এর আংটিতে আল্লাহ, রাসুল সাঃ এর নাম এর নকশা করা ছিলো।

হাদীস শরীফে এসেছেঃ  

عن أنس بن مالك رضي الله عنه ، أن النبي صلي الله عليه وسلم صنع خاتما من ورق ، فنقش فيه محمد رسول الله صلي الله عليه وسلم ، ثم قال: لا تنقشوا عليه.هذا حديث حسن صحيح ومعنى قوله: لا تنقشوا عليه ، نهى أن ينقش أحد على خاتمه محمد رسول الله . (سنن الترمذي -طبعة بشار -ومعها حواشي –رقم 1745- ج3 / ص281)
সারমর্মঃ  রাসুলুল্লাহ সাঃ এর আংটিতে    محمد رسول الله লিখিত নকশা করা ছিলো।

لمافی الھندیۃ(۵۰/۱):ویکرہ ان یدخل فی الخلاء ومعہ خاتم علیہ اسم اﷲ تعالیٰ أو شییٔ من القرآن۔
টয়লেটে আল্লাহত নাম,কুরআনের আয়াত সম্বলিত আংটি নিয়ে প্রবেশ করা মাকরুহ। 
,
★সুতরাং প্রশ্নে উল্লেখিত ছুরতে যেহেতু ""দরজা অফ করলে বাথরুমের ভিতরে দোআর কাগজটা থেকে যায়""
তাই বাথরুমে সেই দোয়া যাওয়ার কারনে এটি মাকরুহে তাহরিমি হবে।
,
সুতরাং এমনটি করা যাবেনা।  


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

------------------------
মুফতী ওলি উল্লাহ
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

ﻓَﺎﺳْﺄَﻟُﻮﺍْ ﺃَﻫْﻞَ ﺍﻟﺬِّﻛْﺮِ ﺇِﻥ ﻛُﻨﺘُﻢْ ﻻَ ﺗَﻌْﻠَﻤُﻮﻥَ অতএব জ্ঞানীদেরকে জিজ্ঞেস করো, যদি তোমরা না জানো। সূরা নাহল-৪৩

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন।

Related questions

...