আইফতোয়াতে ওয়াসওয়াসা সংক্রান্ত প্রশ্নের উত্তর দেওয়া হবে না। ওয়াসওয়াসায় আক্রান্ত ব্যক্তির চিকিৎসা ও করণীয় সম্পর্কে জানতে এখানে ক্লিক করুন

0 votes
55 views
in পরিবার,বিবাহ,তালাক (Family Life,Marriage & Divorce) by (1 point)
আসসালমুআলাইকুম রাহমাতুল্লাহ ওয়া বাাকাতুহু,
শায়েখ কিছু সময় আগের ঘটনা , আমি বিষয় টা সংক্ষেপ এ তুলে ধরছি,  আমাকে দয়া করে জানাবেন কটা তালাক হয়েছে? আমি  ভবিষ্যত্ এ সতর্কতা অবলম্বন করার জন্য জানতে চাই

১. আমার স্ত্রী একটা ভুল করেছে ,  জার জন্য আমাদের আমাদের মধ্যে ঝামেলা সৃষ্টি হয়, এবং ফোনে আমি আমার স্ত্রী কে রেগে ১ তালাক বলে ছিলাম ।  এবং স্ত্রী কে বলছি, তুমি ভেবোনা রাগ করে বলছি , যা বলছি সত্যি সত্যি বলেছি। এ ঘটনা টা রাত্রি তে ঘটেছে। তার পর আমি তালাকের মাসায়েল ইউটিউব এ দেখতে শুরু করেছি। এবং আমি মুফতী সাহেব কে প্রশ্ন ও করেছিলাম কি ভাবে আমি আমার স্ত্রী কে ফিরে পাবো ।  আমি সেই রাত্রিতে ফোন এ  স্ত্রী কে মুখের কথার মাধ্যমে ফিরিয়ে নিয়েছি কি না সেইটা মনে পড়ছে না   ।  ইউটিউব দেখে জেনেছিলাম । আমি তখন তালাকের মাসায়েল সম্পর্কে কোনো ধারণাই ছিল না।

২.  তার পর থেকে আমার খুব আফসোস হতে থাকে, স্ত্রীর অগ্রাহ্য এর জন্য , আমি রাগ করে কি বলে ফেলেছি এই ভেবে খুবই আফসোস হয়। যেহেতু ১ তালাক কথা টা বলেছিলাম পরবর্তী তে স্ত্রী কে আফসোস করে বলেছি তোমার জন্য সব শেষ হয়ে গেলো। আমাদের সম্পর্ক নষ্ট হয়ে গেলো। এই সব বলেছি ।

 পরের দিন ,  সকালে স্ত্রী কে বলছি , সম্পর্ক ঠিক করো, এখনও সময় আছে, আর না হলে ঠিক আছে কোনো ব্যাপার না ।  সকালে , স্ত্রীর সঙ্গে ম্যাসেজ এ কথা হয়, স্ত্রী জিজ্ঞাসা করছে তুমি কি বাড়িতে যা কিছু ঘটেছে সব বলেছ?  তালাকের কথা বলেছ। আমি বলেছি বলেছি মা কে। এবং এটা ও বলেছি আমি বিয়ে করবো তুমি রাজি থাকলেও করবো আর না থাকলেও করবো।  তার পর স্ত্রী কে হোয়াটসঅ্যাপ এ ২ ঘণ্টার ব্লক ছিল।   তার পরের ম্যাসেজ এ লেখা ছিল দেখলাম  , এই কথাটা আমি কি উদ্দেশ্যে  ম্যাসেজ এ লিখেছিলাম  সেইটা মনে পড়ছে না ,  কথা টা তালাকের নিয়ত এ লিখেছিলাম  নাকি যেহেতু আগে ১ তালাক এই কথাটা বলেছি সেই জন্য কি  সম্পর্ক নষ্ট হয়ে গেলো নাকি সেই   , সেই চিন্তাতে আফসোস করে কথা টা বলেছি, সেই টা মনে নেই।

পুরো ম্যাসেজ এর চ্যাট টা পড়ে এটা মনে হলো, যেহেতু আগে ১ তালাক বলেছিলাম ,  তাই আমার মনে ভাবনা হচ্ছিলো  এমন কথার জন্য আমাদের  সম্পর্ক মনে হয় নষ্ট হয়ে গিয়েছে হয়ত ।  এই রকম চিন্তা হয়েছিল,   তাই ম্যাসেজ এ  আফসোস করে লেখা ছিল,
"আমাদের এই  সম্পর্ক শেষ হলো , তুমি সব  ছেলে খেলা করে নিয়ে ছিলে,
এবং আমার স্ত্রী র ম্যাসেজ এর জবাব  ছিল , এই সব কিছু হবে না গো জান । মুফতি সাহেব কি উত্তর দিয়েছে? আমি বলেছি না , এখনও জবাব পায়নি "

আমার মনে হচ্ছে যেহেতু আমি আগে ১  তালাকের কথা বলেছিলাম , তাই আফসোস করে এই কথা টা লিখেছিলাম । পরবর্তী তে কোনো উদ্দেশ্য ছিল না।

***তার ৪ থেকে ৫ ঘণ্টার মধ্যে আমি আমার স্ত্রীর কে সহবাসের মাধ্যমে ও মৌখিক ভাবে ফিরিয়ে নিয়েছি।

দুঃখ করে একদিন বললাম, সবাই কত ভালো থাকে আর আমাদের কত সমস্যা হলো। সবাই বলবে ১ তালাকের বউ এই সব বলবে। দুঃখ করে আফসোস করে বলছিলাম । কোনো তালাকের নিয়ত ছিল না।

আমি জানতে চাইছি কটা তালাক হয়েছে??

1 Answer

0 votes
by (637,920 points)
ওয়া আলাইকুমুস-সালাম ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু। 
বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।
জবাবঃ-
আলহামদুলিল্লাহ!
প্রথম ও দ্বিতীয় তালাকের পর রাজআত করা যায়।তথা ইদ্দতের ভিতর স্বামী তার স্ত্রীকে ফিরিয়ে নিয়ে আসবে।এরজন্য কোনো আনুষ্টানিকতার প্রয়োজন নেই।
রাজআতের পদ্ধতি সম্পর্কে ফাতাওয়ায়ে হিন্দিয়ায় উল্লেখ করা হয়,
الرجعة إبقاء النكاح على ما كان ما دامت في العدة كذا في التبيين وهي على ضربين: سني وبدعي (فالسني) أن يراجعها بالقول ويشهد على رجعتها شاهدين ويعلمها بذلك فإذا راجعها بالقول نحو أن يقول لها: راجعتك أو راجعت امرأتي ولم يشهد على ذلك أو أشهد ولم يعلمها بذلك فهو بدعي مخالف للسنة والرجعة صحيحة وإن راجعها بالفعل مثل أن يطأها أو يقبلها بشهوة أو ينظر إلى فرجها بشهوة فإنه يصير مراجعا عندنا إلا أنه يكره له ذلك ويستحب أن يراجعها بعد ذلك بالإشهاد كذا في الجوهرة النيرة.
রাজআত হল,ইদ্দতের ভিতরে বিয়েকে টিকিয়ে রাখা,স্ত্রীকে ফিরিয়ে নিয়ে আসা।রাজআত দুই প্রকার
(ক)সুন্নাহ সম্মত- এর ব্যখ্যা হল, কথার মাধ্যমে রাজআত করা হবে।এবং রাজআত করার সময় দুইজন সাক্ষীকে উপস্থিত রাখা হবে।এবং তাদেরকে রাজাতের বিষয় সম্পর্কে অবগত করা হবে।যখন কথার মাধ্যমে রাজআত করা হবে,তখন স্বামী বলবে-আমি তোমাকে ফিরিয়ে নিলাম,বা বলবে,আমি আমার স্ত্রীকে ফিরিয়ে নিলাম।
(খ)যদি দুজন সাক্ষীর অনুপস্থিতিতে বা উপস্থিত তবে তাদেরকে অবগত না করে কেউ রাজআত করে নেয়,তাহলে এটা রাজাত হবে।তবে বিদআত হবে।

যদি কেউ কথার পরিবর্তে কাজের মাধ্যমে রাজআত করে নেয়।যেমন স্বামী তার ঐ স্ত্রীর সাথে সহবাসে লিপ্ত হয়ে গেল,বা তাকে চুমু দিয়ে দিল,বা তার লজ্জাস্থানের দিকে কামভাব নিয়ে থাকিয়ে রইলো,তাহলে এমতাবস্থায়ও রাজআত হয়ে যাবে।তবে হানাফি মাযহাব মত এমনটা করা মাকরুহ।
মুস্তাহাব হল,তালাক পরবর্তী দুইজন সাক্ষীর উপস্থিতিতে রাজ'আত করা।(ফাতাওয়ায়ে হিন্দিয়া ১/৪৬৮)
এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন- https://www.ifatwa.info/2579


সু-প্রিয় প্রশ্নকারী দ্বীনী ভাই/বোন!
আপনার প্রশ্নের বিবরণ মতে এক তালাক পতিত হয়েছে। আর কোনো তালাক হয়নি।
যেহেতু এক তালাকের পর আপনি সহবাস করে ফেলেছেন, তাই অটোমেটিক রাজ'আত হয়ে গেছে। এখন আপনারা সংসার করতে পারবেন।


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

by (637,920 points)
সংযোজন ও সংশোধন করা হয়েছে।

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন। উত্তর না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনি প্রতিমাসে সর্বোচ্চ ৪ টি প্রশ্ন করতে পারবেন।

বি.দ্র: প্রশ্ন করা ও ইলম অর্জনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো সরাসরি মুফতি সাহেবের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করা যেখানে প্রশ্নকারীর প্রশ্ন বিস্তারিত জানার ও বোঝার সুযোগ থাকে। যাদের এই ধরণের সুযোগ কম তাদের জন্য এই সাইট। প্রশ্নকারীর প্রশ্নের অস্পষ্টতার কারনে ও কিছু বিষয়ে কোরআন ও হাদীসের একাধিক বর্ণনার কারনে অনেক সময় কিছু উত্তরে ভিন্নতা আসতে পারে। তাই কোনো বড় সিদ্ধান্ত এই সাইটের উপর ভিত্তি করে না নিয়ে বরং সরাসরি মুফতি সাহেবদের সাথে যোগাযোগ করলে ভালো হয়। অন্যদিকে প্রতিমাসে একাধিকবার আমাদের মুফতি সাহেবগন জুমের মাধ্যমে সরাসরি প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন। সেই ক্লাসগুলোতেও জয়েন করার জন্য অনুরোধ করা গেল। ক্লাসের সিডিউল: fb.com/iomedu.org

Related questions

...