আইফতোয়াতে ওয়াসওয়াসা সংক্রান্ত প্রশ্নের উত্তর দেওয়া হবে না। ওয়াসওয়াসায় আক্রান্ত ব্যক্তির চিকিৎসা ও করণীয় সম্পর্কে জানতে এখানে ক্লিক করুন

0 votes
71 views
in বিবিধ মাস’আলা (Miscellaneous Fiqh) by (17 points)
edited by
আসসালামু আলাইকুম

★কেউ যদি মাসাঈল পড়ে অই শব্দ( বুঝে নিবেন একটু দয়া করে) উচ্চারণ ব্যতীত যেমন ,
"কেউ যদি বলে আমি তোমাকে দিলাম,তাহলে হবে আর দিবো বললে হবে না "  অথবা  "অইটা দিবো বললে হবে না ,অইটা দিলাম বললে হয়ে যাবে " । এখানে ডিরেক্ট শব্দ উচ্চারণ না করে মাসাঈল পড়লে বা ডিরেক্ট উচ্চারণ এর পরিবর্তে "অইটা "বলে ঊচ্চারন করে পড়ে।
কিন্তু স্ত্রীকে উদ্দেশ্য  করে বলা হয়নি এই ব্যাপারে একদম সিউর।

★ প্রশ্ন করার জন্য লিখতে গেলে অনেক সময় মনের মধ্যে প্রবল ওয়াসাওয়াসা থাকার কারনে  সন্দেহ হ্য়। কিন্তু আসল উদ্দেশ্য হচ্ছে প্রশ্ন করে উত্তর জানা। এখন আমি প্রশ্ন না করলে উত্তর পাবো কিভাবে তাই মাসাঈল জানতে প্রশ্ন আলোচনা তো করতেই হবে,মাসাঈল না জানা পর্যন্ত মনের মধ্যে ভয় কাজ করে।এখানে কি মনের মধ্যে আসা  ওয়াসওয়াসা প্রাধান্য পাবে নাকি আসল উদ্দেশ্য যেটা সেটা প্রাধান্য পাবে ? অনেক প্রশ্ন করেছিলাম আগে এবং এখন এসব প্রশ্ন করার জন্য আমাদের বৈবাহিক জীবনে সমস্যা হবে কি?

★আমি প্রায় সময় ঘুমানোর পূর্বে মাথার মধ্যে অনেক শব্দ বাক্য আমার কল্পনায় ঘুরতে থাকে। আমার কাছে মনে হয় যে সেগুলো মনে হয় আমি উচ্চারনও করিনা।যেমন গতকাল রাতে "দিবো" অথবা "দিবা" শব্দ মাথায় ঘুরছিলো ,সেগুলো মুখে উচ্চারণ করেছিলাম কিনা মনে নেই মনে হয়না উচ্চারণ করেছিলাম,তারপর যখন আমি ঘুমিয়ে পড়ি, ঘুম থেকে ঊঠে শব্দ গুলোও মনে করতে পারিনা এবং সেগুলো শুধুই কল্পনাত নাকি বাস্তবে ঘুমানোর পূর্বে এমন ঘটেছিলো সেটাই বুঝত পারিনা,শব্দ মনে থাকা তো দূরের কথা । ঘুম থেকে ঊঠে সারাদিন চিন্তা করতে থাকি "দিবো" বা "দিবা" কি  আসলেই বলেছিলাম নাকি শুধু কল্পনায় চিন্তা।আর শয়তান শুধু ধোকা দেয় যে খারাপ কিছু বলেছি মানে অই ধরনের কিছু। আমার তো মনেই থাকে না কারন আমি ওয়াসাওয়াসার রোগী। কোন নিয়তে বলি সেটা অনেক দূরের কথা ,,,আমি বলেছি কিনা ,যদি বলে থাকি কি বলেছি আসলেই,মুখে বলেছি নাকি মনে মনে,আসলে এমন ঘটনা হয়েছে কিনা নাকি নিছক কল্পনা সেগুলোই তো বুঝতে পারিনা ঘুম থেকে ঊঠে? প্রায়ই এই রকম হয়ে থাকে ,সারাটাদিন চিন্তায় থাকি।

( আগেই ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি আপনার কাছে।প্রবল ওয়াসাওয়াসার কারনে আমি কিছু শব্দ উচ্চারন করিনা।এক প্রকার ভয় কাজ করে। আশা করি আপনি বুঝতে পারবেন আমি কি বুঝাতে চেয়েছি)

1 Answer

0 votes
by (709,320 points)
edited by

ওয়া আলাইকুমুস-সালাম ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু।
বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।
জবাবঃ-
আলহামদুলিল্লাহ!
হযরত আবু হুরায়রা রাযি থেকে বর্ণিত,তিনি বলেন,
ﻋَﻦْ ﺃَﺑِﻲ ﻫُﺮَﻳْﺮَﺓَ ﺭَﺿِﻲَ ﺍﻟﻠَّﻪُ ﻋَﻨْﻪُ ﻗَﺎﻝَ : ﻗَﺎﻝَ ﺍﻟﻨَّﺒِﻲُّ ﺻَﻠَّﻰ ﺍﻟﻠَّﻪُ ﻋَﻠَﻴْﻪِ ﻭَﺳَﻠَّﻢ : َ ( ﺇِﻥَّ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﺗَﺠَﺎﻭَﺯَ ﻟِﻲ ﻋَﻦْ ﺃُﻣَّﺘِﻲ ﻣَﺎ ﻭَﺳْﻮَﺳَﺖْ ﺑِﻪِ ﺻُﺪُﻭﺭُﻫَﺎ ﻣَﺎ ﻟَﻢْ ﺗَﻌْﻤَﻞْ ﺃَﻭْ ﺗَﻜَﻠَّﻢ
রাসূলুল্লাহ সাঃ বলেছেন,নিশ্চয় আল্লাহ তা'আলা আমার খাতিরে আমার উম্মতের অন্তরে চলে আসা ওয়াসওয়াসা(শয়তানি প্ররোচনা) বিষয়ে কোনো প্রকার হস্তক্ষেপ/শাস্তি প্রদাণ করবেন না।যতক্ষণ না সে কথা বা কাজের মাধ্যমে সেটাকে বাস্তব রূপ দিচ্ছে। (সহীহ বোখারী-২৩৬১,সহীহ মুসলিম-১২৭)এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন-https://www.ifatwa.info/1379

তালাক সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন-https://www.ifatwa.info/835

সু-প্রিয় প্রশ্নকারী দ্বীনী ভাই/বোন!
মাসাঈল জানতে প্রশ্ন করার জন্য তালাক উচ্ছারণ করলে তালাক হবে না।


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

by (709,320 points)
সংযোজন ও সংশোধন করা হয়েছে।

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন। উত্তর না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনি প্রতিমাসে সর্বোচ্চ ৪ টি প্রশ্ন করতে পারবেন। এই প্রশ্ন ও উত্তরগুলো আমাদের ফেসবুকেও শেয়ার করা হবে। তাই প্রশ্ন করার সময় সুন্দর ও সাবলীল ভাষা ব্যবহার করুন।

বি.দ্র: প্রশ্ন করা ও ইলম অর্জনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো সরাসরি মুফতি সাহেবের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করা যেখানে প্রশ্নকারীর প্রশ্ন বিস্তারিত জানার ও বোঝার সুযোগ থাকে। যাদের এই ধরণের সুযোগ কম তাদের জন্য এই সাইট। প্রশ্নকারীর প্রশ্নের অস্পষ্টতার কারনে ও কিছু বিষয়ে কোরআন ও হাদীসের একাধিক বর্ণনার কারনে অনেক সময় কিছু উত্তরে ভিন্নতা আসতে পারে। তাই কোনো বড় সিদ্ধান্ত এই সাইটের উপর ভিত্তি করে না নিয়ে বরং সরাসরি স্থানীয় মুফতি সাহেবদের সাথে যোগাযোগ করতে হবে।

Related questions

...