0 votes
11 views
in হালাল ও হারাম (Halal & Haram) by (4 points)
  1. ছবি আঁকা হারাম শুনেছি,এ সম্পর্কে বিস্তারিত ব্যাখ্যা চাচ্ছি।আমাদের বর্তমান শিক্ষা ব্যবস্থায় বাচ্চাদেরকে ছোটকাল থেকেই জীবন্ত তো সব বস্তুর ছবি আঁকতে দেওয়া হয় এবং এটাকে উৎসাহিত করা হয়। কোন ধরনের ছবি আঁকা যায়েজ।কার্টুনে কিছু অবাস্তব দৃশ্যকল্প দেখানো হয় এবং এটা দেখার প্রবণতা ইসলামী দৃষ্টিকোণ থেকে কেমন?
  2. গান গাওয়া কি হারাম , যদি বাদ্যযন্ত্র হারাম হয়ে থাকে, সে ক্ষেত্রে খালি গলায় গান গাওয়া কি যাবে ,যদি তা কোন নাশিদ/ গজল না হয়?
  3. মৃত ব্যক্তির ছবি কি বারবার দেখা যাবে, লোকমুখে শোনা মৃত ব্যক্তির ব্যবহার্য জিনিস ব্যবহার করা যায় না, মৃত ব্যক্তির নিত্য প্রয়োজনীয় কোন জিনিস গুলো আসলে ব্যবহার করা যায় অথবা জায়না।আবার মৃত ব্যক্তি স্বপ্নে কিছু দেওয়া অথবা নেওয়া নিয়ে কিছু প্রচলিত প্রথা চালু আছে এর সত্যতা সম্পর্কে জানতে চাচ্ছি।

1 Answer

0 votes
by (60,680 points)
বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।
জবাবঃ-
  • (১)ছবি সম্পূর্ণ হারাম।বিস্তারিত জানতে দেখুন- 2253নির্দিষ্ট কয়েকটি বিষয়ে ছবির অনুমোদন রয়েছে।তন্মধ্যে কিছু ক্ষেত্র রয়েছে,যা সর্বসম্মতিক্রমে অনুমোদিত।যেমন পাসপোর্ট ইত্যাদির জন্য ছবি তোলা।এবং কিছু ক্ষেত্র এমন রয়েছে,যাতে  ফুকাহাদের মতবিরোধ রয়েছে।এর মধ্য থেকে একটি হল,শিশুদের জন্য খেলনা ও শিশুদের জন্য শিক্ষা সংশ্লিষ্ট ছবি বিধান।সুতরাং বলা যায় যে,শিশুদের জন্য ছবির বেলায় রুখসত রয়েছে কি না?এ সম্পর্কে ফুকাহাদের মতবিরোধ রয়েছে।অনেকেই পুতুল জাতীয় জিনিষকে শিশুদের জন্য হারাম ঘোষনা দিলেও শিক্ষার স্বার্থে ফটো-ছবি অনুমোদন দিয়ে থাকেন।এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে দেখুন- 2158

সু-প্রিয় পাঠকবর্গ ও প্রশ্নকারী দ্বীনী ভাই/বোন!
যেহেতু আপনার বর্ণিত বিষয়ে ছবির বিষয়টা শিশুদের শিক্ষার সাখে সংশ্লিষ্ট। সুতরাং এক্ষেত্রে ছবির হুকুমে শীতিলতা চলে আসবে। তবে সাবধান! এ ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হবে যে,যাতে করে ছবিতে কোনো প্রকার বেপর্দা ও উলঙ্গপনা চলে না আসে।কার্টুনে কিছু অবাস্তব দৃশ্যকল্প দেখানো হয় এবং এটা দেখা কখনো জায়েয হবে না।এত্থেকে শিশুদেরকে অনেক অনেক দূরে রাখতে হবে। আল্লাহ-ই ভালো জানেন।

  • (২)বাদ্যযন্ত্রী সহকারে গান হারাম।বাদ্যযন্ত্র ব্যতীত ও গান হারাম।কেননা গানের সূরে গাওয়াও হারাম।তবে গানের সূ র ব্যতীত ইসলামি গজল,হামদ,না'ত গাওয়া যাবে।এ বিষয়ে বিস্তারিত জানুন-1898
  • (৩)মৃত ব্যক্তির ছবি রাখা যাবে না।যখন কারো মৃত্যু হয়ে যায়,তখন তার ছবির আর কোনো প্রয়োজন থাকে না।তাই মৃত্যুর সাথে সাথেই উনার ছবি ফেল। দিতে হবে,যদি ঘরে কোথাও থাকে।মৃত ব্যক্তির সকল প্রকার মালামাল ব্যবহার করা যাবে।এতে কোনো বিধিনিষেধ নেই।স্বপ্নে দেয়া নেয়া ভালো খারাপ উভয় ধরণের ব্যাখা হতে পারে।তা স্বপ্নের বিবরণের উপর নির্ভর করবে।


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

ﻓَﺎﺳْﺄَﻟُﻮﺍْ ﺃَﻫْﻞَ ﺍﻟﺬِّﻛْﺮِ ﺇِﻥ ﻛُﻨﺘُﻢْ ﻻَ ﺗَﻌْﻠَﻤُﻮﻥَ অতএব জ্ঞানীদেরকে জিজ্ঞেস করো, যদি তোমরা না জানো। সূরা নাহল-৪৩

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন।

Related questions

...