0 votes
30 views
in সালাত(Prayer) by (2 points)
আমার স্বামি আলহামদুলিল্লাহ  ইসলাম মেনে চলার চেস্টা করে। আমরা যে বাসায় থাকি এখন সেই বাসাটি ৫ তলায় এবং  কোন লিফট ও নেই। বাহিরে যখন থাকে তখন মসজিদে /জাময়াতে সলাত আদায় করে কিন্তু যখন বাসায় থাকে তখন রুমে আমরা একসাথে নামাজ পড়ি জাময়াতে। রুমে উনি যেহেতু নামাজ পড়েন এক্ষেতে  উনার কি পাপ হবে???

1 Answer

0 votes
by (411,360 points)

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।
জবাবঃ-
জামাত ত্যাগ সম্পর্কে চমৎকার একটি আলোচনা, মনোযোগ সহকারে শুনুন।
لأن الصلاة بالجماعة ألحقت بالفرائض، ولهذا لو ترك أهل بلدة الصلاة بجماعة قوتلوا عليهم بالسلاح، كما لو تركوا فرضاً من الفرائض، وقد صح أن رجلاً سأل ابن عباس عن رجل يصوم النهار ويقوم بالليل ولا يحضر الجماعات، فقال ابن عباس: هو في النار، فاختلف إليه ذلك الرجل شهراً، وكان سأله، فكان يقول: هو في النار.
জামাতের সাথে নামায আদায় করা ফরাঈয সমূহের মধ্য থেকে একটি।তথা সুন্নাতে মু'আক্কাদা।এজন্য যদি কোনো এলাকাবাসী জামাতের সাথে নামাযকে পরিত্যাগ করে ফেলে তাহলে তাদের সাথে তরবানী দ্বারা জিহাদ করা অন্যসব মুসলমানদের দায়িত্ব ও কর্তব্য। যেমন অন্যান্য ফরয তরক করলে জিহাদের বিধান চলে আসে।সহীহ সনদে বর্ণিত রয়েছে,একদা একব্যক্তি হযরত ইবনে আব্বাস রাযি. কে এমন এক ব্যক্তি সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করল যে,কিনা সর্বদা দিনে রোজা রাখে এবং রাত্রে নফল ইবাদতে ব্যস্ত থাকে,কিন্তু ঘরে নামায পড়ে।মসজিদে যায় না।তখন ইবনে আব্বাস রাযি. বললেন,ঐ ব্যক্তি জাহান্নামে নিক্ষিপ্ত হবে।এক মাসব্যাপী ঐ ব্যক্তি ইবনে আব্বাস রাযি. এর কাছে মুরাজা'আহ করার পরও শেষ পর্যন্ত ইবনে আব্বাস রাযি. উনার বক্তব্যর উপর অটল থাকলেন।(আল-মুহিতুল বুরহানী- ৮/৩১১)এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানুন-https://www.ifatwa.info/449

সু-প্রিয় প্রশ্নকারী দ্বীনী ভাই/বোন!
কেউ যদি ইচ্ছা করে জামায়াত ত্যাগ করে বাড়িতে নামাজ পড়ে নেয়,তাহলে সুন্নত তরকের গোনাহ হলেও তার নামাজ হয়ে যাবে।আল্লাহ কার ইবাদত কখন কবুল করবেন সেটা বলা যায় না।বাড়িতে পড়লে তার জন্য উচিৎ জামাতে নামায পড়া,তাহলে সওয়াবে তারতম্য হলেও জামাতের সুন্নত আদায় হয়ে যাবে।বিস্তারিত জানুন-https://www.ifatwa.info/1365
(শেষ)

সু-প্রিয় প্রশ্নকারী দ্বীনি ভাই/বোন!
আপনার স্বামীর উচিৎ মসজিদে গিয়েই নামায পড়া।একটু কষ্টকরে হলেও মসজিদে গিয়ে নামায আদায় করা উনার উচিৎ।


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন। উত্তর না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনি প্রতিমাসে সর্বোচ্চ ৪ টি প্রশ্ন করতে পারবেন।

বি.দ্র: প্রশ্ন করা ও ইলম অর্জনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো সরাসরি মুফতি সাহেবের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করা যেখানে প্রশ্নকারীর প্রশ্ন বিস্তারিত জানার ও বোঝার সুযোগ থাকে। যাদের এই ধরণের সুযোগ কম তাদের জন্য এই সাইট। প্রশ্নকারীর প্রশ্নের অস্পষ্টতার কারনে ও কিছু বিষয়ে কোরআন ও হাদীসের একাধিক বর্ণনার কারনে অনেক সময় কিছু উত্তরে ভিন্নতা আসতে পারে। তাই কোনো বড় সিদ্ধান্ত এই সাইটের উপর ভিত্তি করে না নিয়ে বরং সরাসরি মুফতি সাহেবদের সাথে যোগাযোগ করলে ভালো হয়। অন্যদিকে প্রতিমাসে একাধিকবার আমাদের মুফতি সাহেবগন জুমের মাধ্যমে সরাসরি প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন। সেই ক্লাসগুলোতেও জয়েন করার জন্য অনুরোধ করা গেল। ক্লাসের সিডিউল: fb.com/iomedu.org

Related questions

...