+1 vote
21 views
in বিবিধ মাস’আলা (Miscellaneous Fiqh) by (26 points)
edited by
আমি দুঃখিত।  এই বিষয়ে আবার প্রশ্ন করতে হলো- হতে পারে এটা শেষ প্রশ্ন- উক্ত ফাতওয়া ২ নং প্রশ্নের উত্তরে বলা হয়েছিলো- কারো গুনাহের আশংকা থাকলে পাসওয়ার্ড না দিতে। এক্ষেত্রে অভিভাবকসহ সবাইকে নিয়ে বসলে গুনাহের আশংকা থাকলেও পাসওয়ার্ড দিতেই হবে। তাহলে কি তাদেরকে পাসওয়ার্ড দিয়ে বলে দিবো যে, কেহ্ গুনাহ্ করলে এর দায়ভার আমার নয়?    এতে হবে কি?

২) আরেকজনের প্রশ্নঃ
আমাদের বাসায় আমি ওয়াইফাই আনি, এরপরে আমরা ৪ জনে যৌথভাবে ওয়াইফাই ব্যবহার করি। চারজনে যথাক্রমে ৩০০, ৩০০,  ১০০, ১০০ টাকা দিয়ে মোট ৮০০ টাকা বিল পরিশোধ করি। এখন এই ৪জনের যে কেউ যদি ওয়াইফাই ব্যবহার করে হারাম কোনো কাজে লিপ্ত থাকে তবে আমারও কি গুনাহ হবে?

1 Answer

0 votes
by (50,640 points)
বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।
জবাবঃ-
(১)
আপনার যদি বিশ্বাস থাকে যে,তাকে বারণ করার পরও সে গোনাহের কাজে ব্যবহার করবে,তাহলে আপনার জন্য তাকে লাইন দেয়া জায়েয হবে না।কিন্তু যদি আপনার বিশ্বাস থাকে যে,সে কেনো প্রকার গোনাহের কাজে লিপ্ত হবে না।তারপর সে যদি ঘটনাক্রমে কোনো গোনাহের কাজে লিপ্ত হয়েও যায়,তাহলে সে দায়ভাড় সম্পূর্ণ তারই হবে।

(২)
যারা গোনাহের কাজে লিপ্ত হবে বলে ধারণা হবে,তাদের সাথে মিলে যৌথভাবে ওয়াইফাই নেয়া বিশেষ জরুরত ব্যতীত জায়েয হবে না।চায় কমবেশ হেক বা সমান সমান হোক।তবে জরুরত হলে ভিন্ন কথা।
আর যদি ধারণা হয় যে,তারা কোনো গোনাহের কাজে লিপ্ত হবে না।তাহলে তাদের সাথে মিলে ওয়াইফাই নেয়া জায়েয হবে।


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

ﻓَﺎﺳْﺄَﻟُﻮﺍْ ﺃَﻫْﻞَ ﺍﻟﺬِّﻛْﺮِ ﺇِﻥ ﻛُﻨﺘُﻢْ ﻻَ ﺗَﻌْﻠَﻤُﻮﻥَ অতএব জ্ঞানীদেরকে জিজ্ঞেস করো, যদি তোমরা না জানো। সূরা নাহল-৪৩

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন।

Related questions

...