0 votes
20 views
in পবিত্রতা (Purity) by (31 points)
শীতকালে আমাদের খুবই নিয়মিত একটা সমস্যা দেখা যায়৷ আমি এখন শীতের সময় রাতে মোটা লেপ ব্যবহার করি৷ যার কাভার ধোয়া গেলেও ভিতরে ধোয়া সম্ভব নয়৷
১৷ রাতে স্বপ্নদোষ হল৷ সাথে সাথে ঘুম ভাংগলো৷ লেপে নাপাক লেগেছে কিনা নিশ্চিত নয়৷ তবে লুংগি আর বিছানাতে এমনভাবে লেগেছে যে, লেপ আবার গায়ে জড়ালে ওতে লেগে ছড়িয়ে যাবে। ঘুমের মধ্যে তা গায়ের পরা গরম জামা/সয়েটারেও ছড়িয়ে যাবে৷ এই অবস্থায় শীতের রাতে কি লেপ জড়িয়ে শুতে পারবো না? লেপ ছাড়ায় ঘুমাতে হবে?


২৷ রাতে যদি লেপে নাপাকি লাগে, তবে দিনে যদি লেপ না ধুয়ে রোদে শুকাতে রেখে দেয়া হয়৷ তবে পরদিন সেই লেপ ব্যবহার করা যাবে?


৩৷ রাতে যদি লেপে আর চাঁদরে নাপাকি লাগে, তবে চাদর আর লেপ যদি পরদিন রাত অব্ধি ব্যবহার না করে খাটেই রেখে দেয়া হয়৷ তবে পরদিন রাতে সেটা শুকনা ধরে নিয়ে কি সেখানে শোয়া যাবে, আর লেপ ব্যবহার করা যাবে? এটো মোটা লেপ ছাদে নিয়ে তারে নাড়া খুব মুশকিল ব্যাপার৷

1 Answer

0 votes
by (17,080 points)
edited by

 

بسم الله الرحمن الرحيم

জবাব,

https://ifatwa.info/6762/ নং ফাতওয়াতে আমরা উল্লেখ করেছি যে, শরীয়তের বিধান হলো   চাদরে কিংবা কাপড়ে নাপাকি লাগলে তিনবার পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে এবং প্রত্যেকবার ভালো করে চাপ দিয়ে নিংড়াতে হবে। ভালো করে নিংড়িয়ে ধোয়ার পরও যদি দুর্গন্ধ থেকে যায় কিংবা দাগ থাকে তাতে কোনো দোষ নেই। এতেই চাদর কিংবা কাপড় পবিত্র হয়ে যাবে।  (হাশিয়ায়ে তাহতাবী আলাল মারাকী, পৃষ্ঠা নং ১৬১, বেহেশতি জিওর ২/৭৭ )

وغير المرئية بغسلهاثلاثا والعصر كل مرة

অদৃশ্যমান নাপাক বস্তু তিন বার ধৌত করত্র হবে।এবং প্রত্যেকবার নিংড়াতে হবে।(নুরুল ইযাহ ৫৬)

উল্লেখ্য, তিনবারের কথা বলা হয়, যাতে সন্দেহ না থাকে। অন্যথায় যদি প্রবাহমান পানি যেমন, নদী, পুকুরে বা টেপের পানিতে এত বেশি করে ধোয়া হয়, যাতে নাপাকি দূর হওয়ার ব্যাপারে প্রবল ধারণা হয়ে যায় তাহলে তা পাক হয়ে যায়। এক্ষেত্রে তিনবার নিংড়িয়ে ধোয়া জরুরি নয়। (রদ্দুল মুহতার ১/৩৩৩ আলবাহরুর রায়েক ১/২৩৭ শরহুল মুনইয়া ১৮৩)

নাজাসাত থেকে পবিত্রতা অর্জন করার পদ্ধতি সম্পর্কে জানতে ভিজিট করুন: https://ifatwa.info/118/

সু-প্রিয় প্রশ্নকারী দ্বীনী ভাই!

১.স্বপ্নদোষের কারণে লেপের কভার বা বিছানার চাদর অপবিত্র হলে পুরো লেপ বা চাদর ধৌত করা জরুরি নয়।বরং নাজাসতকে দূর করে দিলেই যথেষ্ট হবে। যদি শুধু মগ থেকে পানি নিয়ে চাদরের যে অংশে নাপাকী লেগেছে,সে অংশটা নখের সাহায্যে ঘষে ধুয়ে ফেলা হয়,তাহলে সেটা পাক হয়ে যাবে।

প্রশ্নেল্লিখিত ছুরতে আপনার জন্য করণীয় হলো, আপনার শরীর ও কাপড়ের যেই স্থানে নাপাকি লেগেছে তা ভালোভাবে ধুয়ে ফেলা এরপর আপনার লেপ ব্যবহার করাতে কোন সমস্যা নেই।

,৩.যদি আপনি নিশ্চিত হোন যে,চাদর বা লেপের কভারের কোন অংশে নাপাকি লেগেছে তাহলে শুধু ঐ অংশটুকু ধূয়ে নিলেই হবে পুরো লেপ বা চাদর রোদে দেওয়ার কোন প্রয়োজন নেই । তবে যদি সেগুলি শুকে এবং নাপাকির কোন আদ্রতা না থাকে তাহলে তা ব্যাবহর করা যাবে তবে যদি উক্ত নাপাক জায়গায় পানি বা অন্য কোন তরল বস্তু লাগে আর তা ছড়িয়ে পড়ে তাহলে তা নাপাক বলেই গন্য হবে । বিধায় সবচেয়ে উত্তম হলো, উক্ত নাপাক অংশটুকু পবিত্র করে নেওয়া।


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী মুজিবুর রহমান
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন। উত্তর না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনি প্রতিমাসে সর্বোচ্চ ৪ টি প্রশ্ন করতে পারবেন।

বি.দ্র: প্রশ্ন করা ও ইলম অর্জনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো সরাসরি মুফতি সাহেবের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করা যেখানে প্রশ্নকারীর প্রশ্ন বিস্তারিত জানার ও বোঝার সুযোগ থাকে। যাদের এই ধরণের সুযোগ কম তাদের জন্য এই সাইট। প্রশ্নকারীর প্রশ্নের অস্পষ্টতার কারনে ও কিছু বিষয়ে কোরআন ও হাদীসের একাধিক বর্ণনার কারনে অনেক সময় কিছু উত্তরে ভিন্নতা আসতে পারে। তাই কোনো বড় সিদ্ধান্ত এই সাইটের উপর ভিত্তি করে না নিয়ে বরং সরাসরি মুফতি সাহেবদের সাথে যোগাযোগ করলে ভালো হয়। অন্যদিকে প্রতিমাসে একাধিকবার আমাদের মুফতি সাহেবগন জুমের মাধ্যমে সরাসরি প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন। সেই ক্লাসগুলোতেও জয়েন করার জন্য অনুরোধ করা গেল। ক্লাসের সিডিউল: fb.com/iomedu.org

Related questions

...