0 votes
273 views
in দাফন ও জানাজা (Burial & Janazah) by (22 points)
আমাদের এখানের হুজুররা বলেছে জানাজা ছাড়াই দাফন করতে হবে। কিন্তু, আহলে হাদীস আলেমরা বলেন ৪ মাস পর রুহ্ দিয়ে দেওয়া হয়। ৪ মাস পর মারা গেলে জানাজা দিতে হবে, আকীকা দিয়ে নাম রাখতে হবে। কোনটা মানব? আমার ভাতিজি মারা গিয়েছে গর্ভাবস্থায় ৯ মাসের সময়। তাকে দাফন করে ফেলেছি তো। জানাজা ছাড়া দাফন করলে কী আকীকা দেয়া যাবে? জানাজা ছাড়া দাফন করলে তারা কি হাশরের ময়দানে তাদের মা-বাবার নামে সুপারিশ করবে? হানাফি মাজহাবের মত কোনটি?

1 Answer

0 votes
by (37.6k points)
বিসমিহি তা'আলা

জবাবঃ-

সন্তান যদি মৃত ভুমিষ্ট হয়,তবে সেই সন্তানের নাম রাখারও প্রয়োজন নেই।এবং উক্ত মৃত সন্তানের জানাযার নামায পড়ারও নিয়ম নেই।নিয়মমাফিক কাফন পরিধান করানোরও কোনো প্রয়োজন নেই।

শুধুমাত্র একটি কাপড় দিয়ে পেছিয়ে তাকে দাফন করা হবে।এবং আক্বিকারও কোনো দরকার নেই।

হযরত জাবির রাযি, থেকে বর্ণিত

ﻋﻦ ﺟﺎﺑﺮ ﻋﻦ ﺍﻟﻨﺒﻲ ﺻﻠﻰ ﺍﻟﻠﻪ ﻋﻠﻴﻪ ﻭﺳﻠﻢ ﻗﺎﻝ ﺍﻟﻄﻔﻞ ﻻ ﻳﺼﻠﻰ ﻋﻠﻴﻪ ﻭﻻ ﻳﺮﺙ ﻭﻻ ﻳﻮﺭﺙ ﺣﺘﻰ ﻳﺴﺘﻬﻞ

(ﺑﺎﺏ ﻣﺎ ﺟﺎﺀ ﻓﻲ ﺗﺮﻙ ﺍﻟﺼﻼﺓ ﻋﻠﻰ ﺍﻟﺠﻨﻴﻦ ﺣﺘﻰ ﻳﺴﺘﻬﻞ)

রাসূলুল্লাহ সাঃ বলেন-

নবজাতক শিশু ভুমিষ্ট হওয়ার পর যদি আওয়াজ না দেয়(তথা মৃত হলে) তবে তার জানাযার নামায পড়া যাবে না।সে কারো ওয়ারিছও হবে এবং কাউকে ওয়ারিছও বানাবে না।

সুনানে তিরমিযি-১০৩২
আল্লাহ-ই ভালো জানেন।

উত্তর লিখনে

মুফতী ইমদাদুল হক

ইফতা বিভাগ, IOM.

পরিচালক

ইসলামিক রিচার্স কাউন্সিল বাংলাদেশ
by
জাডাকাল্লহ। চিন্তিত ছিলাম
by (37.6k points)
জাযাকুমুল্লাহ

ﻓَﺎﺳْﺄَﻟُﻮﺍْ ﺃَﻫْﻞَ ﺍﻟﺬِّﻛْﺮِ ﺇِﻥ ﻛُﻨﺘُﻢْ ﻻَ ﺗَﻌْﻠَﻤُﻮﻥَ অতএব জ্ঞানীদেরকে জিজ্ঞেস করো, যদি তোমরা না জানো। সূরা নাহল-৪৩

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনার দ্বীন সম্পর্কীয় প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার জন্য রয়েছে আমাদের  অভিজ্ঞ ওলামায়কেরাম ও মুফতি সাহেবগনের একটা টিম যারা ইনশাআল্লাহ প্রশ্ন করার ২৪-৪৮ ঘন্টার সময়ের মধ্যেই প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন।

...