0 votes
397 views
in বিবিধ মাস’আলা (Miscellaneous Fiqh) by
আসসালামু আলাইকুম।

আমি আমার বাবা-মায়ের একমাত্র মেয়ে, আর কোন ভাই-বোন নেই।  তিনি একটি বেসরকারি ব্যাংকে জব করতেন, এখন রিটায়ার্ড। আমার বাবারা ২ ভাই, ২ বোন। বর্তমানে আমার বাবা ও এক ফুপু বেচে আছেন। আমার বাবার পৈত্রিক সম্পত্তি তিনভাগ করা হয়েছে। এবং ওয়ারিশদের মাঝে ভাগ করে দেয়া হয়েছে। এখন অনেক ওয়ারিশ আমার বাবাকে তার পৈত্রিক বাড়ির অংশ দিতে চাচ্ছেন না, বা অনেকে বলছেন তার কোন পুত্রসন্তান না থাকার কারণে তিনি সম্পত্তিতে তার প্রাপ্য অংশ পাবেন না। এই ব্যাপারে ইসলাম কি বলে? পুত্রসন্তান না থাকার কারণে কি তিনি সম্পত্তিতে কম ভাগীদার হবেন?      আমার বাবার উত্তরাধিকার সূত্রে পাওয়া জায়গা-জমি কি তিনি আমার নামে লিখে দিতে পারবেন? আমার বাবার সম্পত্তিতে আমি কত অংশের হকদার?

1 Answer

0 votes
by (51,360 points)

বিসমিহি তা'আলা

সমাধানঃ-

মানুষ মারা যাবার পর তার জীবিত ওয়ারিছগণের  মধ্যে সম্পত্তিকে বন্টন করা দেয়া হবে।এটাই শরিয়তের ফায়সালা।

ওয়ারিছ অনেকেই হতে পারেন।কে কে ওয়ারিছ?

সে সম্পর্কে পৃথক পৃথক কিতাব রচয়িত হয়েছে।

সব এই অল্পপরিসরে সবকিছুকে একত্রিত করা সম্ভব না।

যাইহোক,

আপনি বলেছেন, আপনার দাদার মৃত্যুর পর উনার দুই ছেলে ও এক মেয়ে রেখে গেছেন ।

বর্তমানে আপনার পিতা ও ১ ফুফু বেছে আছেন।

আপনার চাচা যদি আপনার দাদার মৃত্যুর পর মারা যান তবে তিনিও আপনার দাদার সম্পত্তিতে ওয়ারিছ হবেন।নতুবা শুধুমাত্র আপনার বাবা এবং ফুফু এ দুজনই একমাত্র ওয়ারিছ।

আপনার কোনো ভাই না থাকার ধরুণ আপনার বাবা ওয়ারিছ হবেনা। কথাটা নিতান্তই ভূল এবং শরিয়ত বিরোধী।

বরং আপনার বাবা ওয়ারিছ হবেন।

আপনার চাচা আপনার দাদার মৃত্যুর পর মারা গেলে সম্পত্তিকে নিম্নোক্ত পদ্ধিতিতে বন্টন করা হবে।

সম্পত্তিকে সর্বমোট পাঁচ ভাগ করে ২ভাগ আপনার পিতা ২ভাগ আপনার চাচা এবং ১ভাগ আপনার ফুফু পাবেন।

আর আপনার চাচা আপনার দাদার মৃত্যুর পূর্বে মারা গেলে, সম্পত্তিকে তিনভাগ করে বন্টন করা হবে।

২ভাগ আপনার পিতা এবং ১ভাগ আপনার ফুফু।চাচা এক্ষেত্রে আগে মারা যাবার ধরুণ কিছুই পাবেন না।

আপনার পিতার মৃত্যর পর আপনার পিতার পূর্ণ সম্পত্তির অর্ধেকের মালিক আপনিই।

অন্যকোনো ওয়ারিছ না থাকলে সবকিছুই আপনি পাবেন।

আল্লাহ-ই ভালো জানেন।

উত্তর লিখনে
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ, IOM.
পরিচালক
ইসলামিক রিচার্স কাউন্সিল বাংলাদেশ।


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

ﻓَﺎﺳْﺄَﻟُﻮﺍْ ﺃَﻫْﻞَ ﺍﻟﺬِّﻛْﺮِ ﺇِﻥ ﻛُﻨﺘُﻢْ ﻻَ ﺗَﻌْﻠَﻤُﻮﻥَ অতএব জ্ঞানীদেরকে জিজ্ঞেস করো, যদি তোমরা না জানো। সূরা নাহল-৪৩

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন।

Related questions

...