0 votes
46 views
in বিবিধ মাস’আলা (Miscellaneous Fiqh) by (17 points)
edited by

১.সিজদাতে কি কুরআনে বর্ণিত আয়াত গুলো দুয়া হিসেবে পড়া যাবে? 

 

 যেমন - বাবা মায়ের জন্য দোয়া বা অন্য যেসব কুরআনের আয়াত দুয়া হিসেবে পড়ি। 

 

২. সালাত ফিরাবার আগে কি কুরআনের যেসব আয়াত দুয়ার অর্থ ইন্ডিকেট করে সেগুলো পড়া যাবে?  

 

৩.আল্লাহর শুকরিয়া আদায়ের জন্য কিংবা ইস্তেগফার এর জন্য তাৎক্ষণিক সলাত ছাড়া সিজদা দেয়া কি জায়িজ?

 

৪.আসরের সালাতের পর সূরা নাবা পড়ার কোন দলিল আছে?

 

৫. ফরজ সালাতের সিজদায় তাসবিহ পাঠরত অবস্থায় কি দুয়া করব নাকি শুধু দুয়া করব তাসবিহ পাঠ শেষ হলে? সালাম ফিরাবার আগে কি কি দুয়া পড়া যাবে?

1 Answer

0 votes
by (306,320 points)


বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহাম।
জবাবঃ-
জবাবঃ-
দু'আ অন্যান্য ইবাদতের ন্যয় একটি ইবাদত।
হযরত নু'মান বিন বশির রাযি থেকে বর্ণিত রয়েছে
ﻋﻦ ﺍﻟﻨﻌﻤﺎﻥ ﺑﻦ ﺑﺸﻴﺮ ﻋﻦ ﺍﻟﻨﺒﻲ ﺻﻠﻰ ﺍﻟﻠﻪ ﻋﻠﻴﻪ ﻭﺳﻠﻢ ﻗﺎﻝ ﺍﻟﺪﻋﺎﺀ ﻫﻮ ﺍﻟﻌﺒﺎﺩﺓ ﺛﻢ ﻗﺮﺃ ﻭﻗﺎﻝ ﺭﺑﻜﻢ ﺍﺩﻋﻮﻧﻲ ﺃﺳﺘﺠﺐ ﻟﻜﻢ ﺇﻥ ﺍﻟﺬﻳﻦ ﻳﺴﺘﻜﺒﺮﻭﻥ ﻋﻦ ﻋﺒﺎﺩﺗﻲ ﺳﻴﺪﺧﻠﻮﻥ ﺟﻬﻨﻢ ﺩﺍﺧﺮﻳﻦ
ﺍﻟﻜﺘﺐ » ﺳﻨﻦ ﺍﻟﺘﺮﻣﺬﻱ » ﻛﺘﺎﺏ ﺍﻟﺪﻋﻮﺍﺕ » ﺑﺎﺏ ﻣﻨﻪ

নবীজী সাঃ বলেন, দু'আ-ই একটি ইবাদত।অতঃপর নবীজী সাঃ সূরা আল-মু'মিনের ৬০ নং আয়াত তেলাওয়াত করেন।যার ভাবার্থ হল,
"তোমাদের পালনকর্তা বলেন, তোমরা আমাকে ডাক, আমি সাড়া দেব। যারা আমার এবাদতে অহংকার করে তারা সত্বরই জাহান্নামে লাঞ্ছিত হয়ে দাখিল হবে।
{সুনানে তিরমিযি-৩৩৭২}
সর্বাবস্থায় আল্লাহকে ডাকা, আল্লাহর কাছ থেকে সাহায্য চেয়ে নেয়া,দু'আ করা একজন মুসলমানের একান্ত দায়িত্ব ও কর্তব্য।এমনকি হাদীস শরীফে এসেছে যদি কারো জুতার ফিতা খুলে যায় তাহলে যেন সে প্রথমে আল্লাহর কাছে সাহায্য চায় এবং ফিতা বাধে।
নামায,রোযা,হজ্ব,যাকাত,ইত্যাদি পৃথক পৃথক ইবাদত।দু'আ ও একটি ইবাদত,তবে দু'আ নির্দিষ্ট  পৃথক কোনো ইবাদত নয় বরং কখনো উপরোক্ত ইবাদত সমূহের সাথে সংযুক্ত হয়ে আসে।আবার দু'আকে পৃথক ভাবেও করা যায়।

নামাযের বাইরে এবং নামাযের ভিতরকার পরিচিত ও প্রসিদ্ধ দু'আ-দুরূদ সমূহকে সবাই পড়ে থাকেন এবং সুন্নাত বা মুস্তাহাব হিসেবে গণ্য করে থাকে।

নামাযের ভিতরকার পরিচিত ও প্রসিদ্ধ দু'আ সমূহ ব্যতীত অন্যান্য দু'আ, এবং নিজ প্রয়োজন উল্লেখপূর্বক দু'আ ও নিজ মাতৃভাষায় দু'আ যাবে কি?বা জায়েয আছে কি?
এমন প্রশ্নের জাবাবে বলা যায় যে,
নামায দ-ুপ্রকার ফরয ও নফল।
আমরা নিম্নে নিম্নে দু'আ সম্পর্কে আলোচনা করব।
ফরয নামাযে নির্ধারিত প্রসিদ্ধ দু'আ সমূহ ব্যতীত কি অন্যান্য দু'আ করা যাবে?
নিজপ্রয়োজন উল্লেখ করে কি দু'আ করা যাবে?
নিজ মাতৃভাষায় কি দু'আ করা যাবে?

এ সমস্ত প্রশ্নের জবাব খুজতেই আমাদের এ প্রচেষ্টা। আল্লাহ কবুল করুক।আমীন।
আসুন প্রথমে নামাযে বর্ণিত দু'আ সমূহ সম্পর্কে আংশিক কিছু ধারণা নিয়ে নেই।....এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন-https://www.ifatwa.info/185

সুপ্রিয় প্রশ্নকারী দ্বীনি ভাই/বোন!
(১)
সিজদাতে কুরআনে বর্ণিত দু'আ সমূহ পড়া যাবে।

(২)
জ্বী, পড়া যাবে।
(৩)
জায়েয।তবে সুন্নত মনে করা যাবে না।
(৪)
বিশুদ্ধ রেওয়াত দ্বারা প্রমাণিত নয়।
(৫)
তাসবিহ পাঠ শেষে দু'আ করা যাবে।


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন। উত্তর না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনি প্রতিমাসে সর্বোচ্চ ৪ টি প্রশ্ন করতে পারবেন।

বি.দ্র: প্রশ্ন করা ও ইলম অর্জনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো সরাসরি মুফতি সাহেবের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করা যেখানে প্রশ্নকারীর প্রশ্ন বিস্তারিত জানার ও বোঝার সুযোগ থাকে। যাদের এই ধরণের সুযোগ কম তাদের জন্য এই সাইট। প্রশ্নকারীর প্রশ্নের অস্পষ্টতার কারনে ও কিছু বিষয়ে কোরআন ও হাদীসের একাধিক বর্ণনার কারনে অনেক সময় কিছু উত্তরে ভিন্নতা আসতে পারে। তাই কোনো বড় সিদ্ধান্ত এই সাইটের উপর ভিত্তি করে না নিয়ে বরং সরাসরি মুফতি সাহেবদের সাথে যোগাযোগ করলে ভালো হয়। অন্যদিকে প্রতিমাসে একাধিকবার আমাদের মুফতি সাহেবগন জুমের মাধ্যমে সরাসরি প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন। সেই ক্লাসগুলোতেও জয়েন করার জন্য অনুরোধ করা গেল। ক্লাসের সিডিউল: fb.com/iomedu.org

Related questions

...