0 votes
13 views
in বিবিধ মাস’আলা (Miscellaneous Fiqh) by (46 points)

আসসালামু আলাইকুম।
১।১৫ দিনের কম সময়ের জন্য সফরের নিয়তে বের হলে যাত্রাপথ এবং গন্তব্যস্থল ২ জায়গাতেই কি কসর করতে হবে?

২।১৫ দিনের বেশি সময়ের জন্য সফরের নিয়তে বের হলে যাত্রাপথে কি কসর করতে হবে?

৩।কলেজ থেকে শিক্ষাসফর বা পিকনিকে যাওয়ার সময় গাড়িতে সাধারণত গান বাজিয়ে হৈ-হুল্লোর করে যাওয়া হয়।প্রত্যেক শিক্ষার্থীর যাওয়া বাধ্যতামূলক বলে না যাওয়ার উপায় নেই।আবার কলেজ পরিবহন বাদে অন্য কোন পরিবহন ব্যবহার করারও অনুমতি নেই। এক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদেরকে গান বাজনার শার'ঈ হুকুম বোঝানোর অনেক চেষ্টা করার পরও যদি তারা বাসে গান বাজায়, যারা নিরুপায় হয়ে অনিচ্ছাকৃত ভাবে এই পরিবহনে যাচ্ছে তাদের কি গুনাহ হবে?

1 Answer

0 votes
by (255,440 points)
edited by

ওয়া আলাইকুমুস-সালাম ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু।
বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।
জবাবঃ-
https://www.ifatwa.info/8508 নং ফাতাওয়ায় আমরা বলেছি যে,
তিন দিন বা তার সমপরিমাণ দূরত্বের অধিক সফর করলে কেউ মুসাফির হিসাবে গণ্য হবে।যেমন ফাতাওয়ায়ে হিন্দিয়ায় বর্ণিত রয়েছে-
أَقَلُّ مَسَافَةٍ تَتَغَيَّرُ فِيهَا الْأَحْكَامُ مَسِيرَةُ ثَلَاثَةِ أَيَّامٍ، كَذَا فِي التَّبْيِينِ، هُوَ الصَّحِيحُ
সর্বনিম্ন দূরত্ব যার দ্বারা শরীয়তের বিধি-বিধানে  পরিবর্তন আসে।(তথা মানুষ মুসাফির হয়)তিন দিনের দূরত্ব।(তাবয়ীন) এটাই বিশুদ্ধ মত।(ফাতাওয়ায়ে হিন্দিয়া-১/১৩৮)বিস্তারিত জানুন-https://www.ifatwa.info/1281

তিনদিনের দূরত্বকে ফুকাহায়ে কেরাম ৭৭কিলো সমপরিমাণ নির্ধারণ করেন।তাই বর্তমানে কেউ ৭৭কিলো সমপরিমাণ সফর করলে সে শরয়ী মুসাফির হিসেবে গণ্য হবে।বিস্তারিত জানতে ভিজিট করুন- https://www.ifatwa.info/4429

সু-প্রিয় প্রশ্নাকারী দ্বীনী ভাই/বোন!
(১)
জ্বী, ১৫ দিনের কম সময়ের জন্য সফরে বের হলে,যাত্রাপথ এবং অবস্থান স্থলে উভয় জায়গাতেই কসর করতে হবে।

(২)
১৫ দিনের বেশী সময়ের জন্য সফর করলে যাত্রাপথে কসর করতে হবে।তবে অবস্থানস্থলে গিয়ে পৌছার পর পূর্ণ নামায পড়তে হবে।
(৩)
গোনাহ হবে না।তবে হেডফোন লাগিয়ে ওয়াজ নসিহত শুনতে হবে।উক্ত গানকে উপভোগ করা যাবে না।
তাদের কে সাউন্ড কমিয়ে রাখার অনুরুধ করতে হবে। এবং যথাসাধ্য না যাওয়ার চেষ্টা করতে হবে।


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

by (255,440 points)
সংযোজন ও সংশোধন করা হয়েছে।

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন। উত্তর না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনি প্রতিমাসে সর্বোচ্চ ৪ টি প্রশ্ন করতে পারবেন।

বি.দ্র: প্রশ্ন করা ও ইলম অর্জনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো সরাসরি মুফতি সাহেবের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করা যেখানে প্রশ্নকারীর প্রশ্ন বিস্তারিত জানার ও বোঝার সুযোগ থাকে। যাদের এই ধরণের সুযোগ কম তাদের জন্য এই সাইট। প্রশ্নকারীর প্রশ্নের অস্পষ্টতার কারনে ও কিছু বিষয়ে কোরআন ও হাদীসের একাধিক বর্ণনার কারনে অনেক সময় কিছু উত্তরে ভিন্নতা আসতে পারে। তাই কোনো বড় সিদ্ধান্ত এই সাইটের উপর ভিত্তি করে না নিয়ে বরং সরাসরি মুফতি সাহেবদের সাথে যোগাযোগ করলে ভালো হয়। অন্যদিকে প্রতিমাসে একাধিকবার আমাদের মুফতি সাহেবগন জুমের মাধ্যমে সরাসরি প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন। সেই ক্লাসগুলোতেও জয়েন করার জন্য অনুরোধ করা গেল। ক্লাসের সিডিউল: fb.com/iomedu.org

Related questions

...