0 votes
20 views
in বিবিধ মাস’আলা (Miscellaneous Fiqh) by (36 points)
আসসালামুয়ালাইকুম ওয়া রহমাতুল্লাহি ওয়া বারকাতুহু। আমার কিছু প্রশ্ন ছিল দয়া করে উত্তর দিবেন।
১/ স্বপ্নের মধ্যে প্রায় ই আমার মা নামাজ পড়তে দেখেন নিজেকে এবং আয়াতুল কুরসি পাঠ করেন। এটার কোন ব্যখ্যা আছে কি?
২/ শয়তান কে রাগিয়ে দিলে কি শয়তান ক্ষতি করে, যেমনঃ ওয়াসওয়াসা বাড়িয়ে দেওয়া কিংবা শারীরিক/মানসিক ক্ষতি করা?
৩/ কি কি কারণে শয়তান রেগে যায় কিংবা এমন কোন কারণ আছে কি যে জন্য শয়তান প্রতিশোধ নেওয়ার চেষ্টা করে??
৪/অন্তস্বত্তা অবস্থায় স্বপ্নে কুরা'আন পড়া এর স্বপ্ন দেখা কিংবা নামাজ পড়া এর স্বপ্ন দেখা কি কোন বিশেষ অর্থ বহন করে??
৫/ আমরা বলে থাকি আল্লাহ যাকে খুশি তাকে হেদায়েত দেন কিংবা যাকে ইচ্ছা তার মর্যাদা বৃদ্ধি করেন, আমরা যেহেতু জানি না সেটা তাহলে নিজের হেদায়েত এর জন্য নিজের আল্লাহ এর কাছে অনেক প্রিয় হওয়ার জন্য কিংবা নিজের মর্যাদা বৃদ্ধির জন্য দুয়া করা কি উত্তম??
৬/ স্বপ্ন যদি ভালো হয় তাহলে কি সেটা এর ব্যাপারে কাওকে (আলীম বা ফকীহ ব্যতীত) বলা যাবে??

জাজাকাল্লাহু খইরন।

1 Answer

0 votes
by (255,440 points)
edited by
বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।
জবাবঃ-
স্বপ্নের আদাব হচ্ছে, স্বপ্ন দেখার পর যে কাউর কাছে ব্যক্ত না করা, বিজ্ঞ কোন হিতাকাঙ্খি জন দেখে বর্ণনা করা।
এ সম্পর্কে হাদীস শরীফে এসেছে.......
سٍ، عَنْ أَبِي رَزِينٍ العُقَيْلِيِّ، قَالَ: قَالَ رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ: «رُؤْيَا المُؤْمِنِ جُزْءٌ مِنْ أَرْبَعِينَ جُزْءًا مِنَ النُّبُوَّةِ، وَهِيَ عَلَى رِجْلِ طَائِرٍ مَا لَمْ يَتَحَدَّثْ بِهَا، فَإِذَا تَحَدَّثَ بِهَا سَقَطَتْ». 
হযরত আবু রাযিন আল-উক্বাইলী রাঃ বলেন নবী কারীম সাঃ বলেছেন
মু'মিনের স্বপ্ন হচ্ছে নবুওতের চল্লিশভাগের এক ভাগ(অর্থাৎ তা সত্যরূপ পরিনত হয়ে থাকে),যে স্বপ্ন দেখেছে স্বপ্নটা তার উপর ঘুর্ণায়মান থাকে যতক্ষণ না কারো কাছে ব্যক্ত করে,অতঃপর যখন সে কারো কাছে ব্যক্ত করে (এবংঐ ব্যক্তি এর কোনো ব্যখ্যা প্রদান করে) তখন ঐ ব্যখ্যা অনুযায়ীই স্বপ্ন বাস্তবায়িত হয়।(তিরমিযি হাদীস নং ২২৭৮)

সুপ্রিয় প্রশ্নকারী দ্বীনি ভাই/বোন!
(১)
স্বপ্নে নামায পড়া বা কুরআন তিলাওয়াত করতে দেখার ব্যখ্যা হল, নিজের আমল ও ঈমানের উন্নতি হবে।
(২)
জ্বী, শয়তান ক্ষতি করার চেষ্টা করে।এবং সে সর্বদাই মানুষকে বিপথগামী করার চেষ্টায় লিপ্ত থাকে।
(৩)
যখন মানুষ বেশী বেশী ইবাদতে লিপ্ত হয়,তখনই শয়তান রেগে যায়।
(৪)
জ্বী , এগুলো রহমত ও বরকতের আলামত।
(৫)
নিজের ভালো জন্য দু'আ করা শুধু উত্তম নয় বরং জরুরীও বটে।
(৬)
জ্বী, ভালো কোনো আলেমের নিকট স্বপ্নবৃত্তান্ত বর্ণনা করা যাবে।এবং উনার নিকট থেকে তা'বির তথা ব্যখ্যা গ্রহণ করা যাবে।


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

by (255,440 points)
সংযোজন ও সংশোধন করা হয়েছে।

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন। উত্তর না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনি প্রতিমাসে সর্বোচ্চ ৪ টি প্রশ্ন করতে পারবেন।

বি.দ্র: প্রশ্ন করা ও ইলম অর্জনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো সরাসরি মুফতি সাহেবের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করা যেখানে প্রশ্নকারীর প্রশ্ন বিস্তারিত জানার ও বোঝার সুযোগ থাকে। যাদের এই ধরণের সুযোগ কম তাদের জন্য এই সাইট। প্রশ্নকারীর প্রশ্নের অস্পষ্টতার কারনে ও কিছু বিষয়ে কোরআন ও হাদীসের একাধিক বর্ণনার কারনে অনেক সময় কিছু উত্তরে ভিন্নতা আসতে পারে। তাই কোনো বড় সিদ্ধান্ত এই সাইটের উপর ভিত্তি করে না নিয়ে বরং সরাসরি মুফতি সাহেবদের সাথে যোগাযোগ করলে ভালো হয়। অন্যদিকে প্রতিমাসে একাধিকবার আমাদের মুফতি সাহেবগন জুমের মাধ্যমে সরাসরি প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন। সেই ক্লাসগুলোতেও জয়েন করার জন্য অনুরোধ করা গেল। ক্লাসের সিডিউল: fb.com/iomedu.org

Related questions

...