আইফতোয়াতে ওয়াসওয়াসা সংক্রান্ত প্রশ্নের উত্তর দেওয়া হবে না। ওয়াসওয়াসায় আক্রান্ত ব্যক্তির চিকিৎসা ও করণীয় সম্পর্কে জানতে এখানে ক্লিক করুন

0 votes
763 views
in পরিবার,বিবাহ,তালাক (Family Life,Marriage & Divorce) by (17 points)
edited by
১) কেউ যদি স্বাভাবিক ভাবে শুয়ে শুয়ে তার স্ত্রীর ভাল গুণের কথা চিন্তা করে এবং কোন কারণ ছাড়াই হঠাৎ তালাক শব্দটি উচ্চারণ করে (তার স্ত্রী তার পাশেই ছিল)। তাহলে কি তালাক পতিত হবে?

২)তালাক দেওয়ার সময় কি বলতে হবে যে,আমি তোমাকে তালাক দিলাম নাকি স্ত্রীর দিকে তাকিয়ে শুধু "তালাক" উচ্চারণ করলেই তালাক হয়ে যাবে?

৩)তালাক নিয়ে অধ্যেয়ন করার সময়, তার স্ত্রীর কথা স্মরণ করে তালাক শব্দটি উচ্চারণ করে, তাহলে কি তালাক হবে?

৪) স্ত্রীর সামনে শুধু তালাক শব্দটি মজার ছলে উচ্চারণ করলেও কি তালাক হবে?

৫) কেউ,যদি বলে সে জীবনে যত মেয়ে বিয়ে করবে সব তালাক তার ক্ষেত্রে বিধান কি হবে?

৬) স্ত্রীর অনুপস্থিতি একা রুমে নিজে নিজে স্ত্রীকে মুখে উচ্চারণ করে তালাক দিলে  তালাক হবে? (স্ত্রী বাসায় ছিল না।)

1 Answer

0 votes
by (681,160 points)


ওয়া আলাইকুমুস-সালাম ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু। 
বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।
জবাবঃ-
(১) তালাক কাকে দিচ্ছে, সেই জিনিষটা উল্লেখ থাকতে হবে। চায় বাস্তবে উল্লেখ থাকুক বা মৌনভাবে উল্লেখ থাকুক। যাকে তালাক দেয়া হবে, তার দিকে তালাককে সম্বন্ধযুক্ত করতে হবে। সুতরাং 
কেউ যদি স্বাভাবিক ভাবে শুয়ে শুয়ে তার স্ত্রীর ভাল গুণের কথা চিন্তা করে এবং কোন কারণ ছাড়াই হঠাৎ তালাক শব্দটি উচ্চারণ করে, তাহলে এদ্ধারা তার স্ত্রীর উপর কোনো প্রকার তালাক পতিত হবে না। 
(২) স্ত্রীর দিকে তালাককে সম্বন্ধযুক্ত করতে হবে। চায় সরাসরি স্ত্রীর দিকে সম্বন্ধযুক্ত করা হোক বা পরিবেশ পরিস্থিতি একথা বুঝাক যে, তালাক স্ত্রীকেই দেয়া হচ্ছে, যেমন ঝগড়ার এক পর্যায়ে স্বামী কর্তৃক এমন বাক্য উচ্ছারণ হওয়া, তখন স্ত্রীর দিকে সরাসরি সম্বন্ধযুক্ত করার কোনো প্রয়োজনিয়তা নাই। বরং তখন এমনিতেই তালাক পতিত হবে। 
(৩)  তালাক নিয়ে অধ্যেয়ন করার সময়, তার স্ত্রীর কথা স্মরণ করে তালাক শব্দটি উচ্চারণ করলে, তালাক পতিত হবে না। তবে ইচ্ছাকৃত স্ত্রীর কথা স্বরণ করে তালাক শব্দ বললে, তালাক পতিত হবে। 

(৪)  স্ত্রীর সামনে শুধু তালাক শব্দটি মজার ছলে উচ্চারণ করলে তালাক পতিত হবে। 

(৫) তার নিয়তে যদি তিন তালাক থাকে, তাহলে সে আর কখনো বিয়ে করতে পারবে না। যখনই সে কোনো মেয়ে বিয়ে করবে, সে সাথে সাথেই তালাক প্রাপ্ত হয়ে যাবে। আর যদি নিয়তে এক তালাক থাকে, তাহলে বিয়ে করার সাথে সাথেই এক তালাক পতিত হবে। তবে সে উক্ত স্ত্রী ফিরিয়ে নিয়ে এসে তার সাথে সংসার করতে পারবে। 

(৬) স্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে একা একা তালাক উচ্ছারণ করলেও তালাক পতিত হবে। তালাক পতিত হওয়ার জন্য স্ত্রীর শ্রবণ শর্ত নয়।


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন। উত্তর না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনি প্রতিমাসে সর্বোচ্চ ৪ টি প্রশ্ন করতে পারবেন। এই প্রশ্ন ও উত্তরগুলো আমাদের ফেসবুকেও শেয়ার করা হবে। তাই প্রশ্ন করার সময় সুন্দর ও সাবলীল ভাষা ব্যবহার করুন।

বি.দ্র: প্রশ্ন করা ও ইলম অর্জনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো সরাসরি মুফতি সাহেবের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করা যেখানে প্রশ্নকারীর প্রশ্ন বিস্তারিত জানার ও বোঝার সুযোগ থাকে। যাদের এই ধরণের সুযোগ কম তাদের জন্য এই সাইট। প্রশ্নকারীর প্রশ্নের অস্পষ্টতার কারনে ও কিছু বিষয়ে কোরআন ও হাদীসের একাধিক বর্ণনার কারনে অনেক সময় কিছু উত্তরে ভিন্নতা আসতে পারে। তাই কোনো বড় সিদ্ধান্ত এই সাইটের উপর ভিত্তি করে না নিয়ে বরং সরাসরি স্থানীয় মুফতি সাহেবদের সাথে যোগাযোগ করতে হবে।

Related questions

...