0 votes
54 views
in সালাত(Prayer) by (22 points)
মাগরিবের নামায পড়ার সময় ২ রাকাত পড়ে আত্তাহিয়াত্যু পড়তে ভুলে গেছি , তারপর সাহু সিজদা দিয়েছি ,এতে কী আমার নামায হবে ?

আর যদি নামায না হয় তবে কী এর কাযা আদায় করতে হবে ?

কেউ যদি ইসলামের হালাল হারাম মেনে চলার চেষ্টা করে, পূর্বের গুনাহের জন্য অনুতপ্ত হয় এটা ভেবে যে আল্লাহ এটা নিষেধ করেছে তাই এটা থেকে দূরে থাকছে, কিন্তু আগের গুনাহগুলো ভেবে কান্না না আসে এবং নিজের যাবতীয় খারাপ সময়গুলোতেই কখনো কান্না না আসে কিন্তু মনে মনে সে অনেক আপসেট থাকে , অনেক চিন্তায় থাকে এবং সবকিছু আল্লাহর কাছে চাই এবং আল্লাহর ফয়সালা মন থেকে মেনে নেয় এটা ভেবে যে আল্লাহ যা করবেন তা ভালোর জন্য যা আপাত দিকে আমাদের চোখে ভালো হলেও তা খারাপ আমাদের জন্য , কিন্তু নামাযে, আল্লাহর কাছে কোনো কিছু চাওয়ার সময় যদি কান্না না আসে তাহলে কী তার অন্তর কঠিন হয়ে গেছে( কিন্তু সে মনে মনে প্রচন্ড আপসেট থাকে,কিন্তু আল্লাহর কাছে চাওয়ার সময় চোখ দিয়ে পানি আসে না)

1 Answer

0 votes
by (254,600 points)
ওয়া আলাইকুমুস-সালাম ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু। 
বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।
জবাবঃ-
(১)সিজদায়ে সাহু তখনই ওয়াজিব হয়, যখন কোনো ওয়াজিব তরক হবে কিংবা ফরযকে তার স্থান ব্যতিত ভিন্ন স্থানে পড়া হবে ।
সাহু সেজদার উত্তম পদ্ধতি সম্পর্কে ফুকাহায়ে কেরামদের অনেক মতবিরোধ রয়েছে।তন্মধ্যে সর্বোত্তম পদ্ধতি সম্পর্কে  ফাতওয়ায়ে হিন্দিয়াতে অত্যান্ত সারগর্ভ আলোচনা করা হয়েছে।
নিম্নে তা উল্লেখ করা হল......
وَالصَّوَابُ أَنْ يُسَلِّمَ تَسْلِيمَةً وَاحِدَةً وَعَلَيْهِ الْجُمْهُورُ وَإِلَيْهِ أَشَارَ فِي الْأَصْلِ، كَذَا فِي الْكَافِي وَيُسَلِّمُ عَنْ يَمِينِهِ، كَذَا فِي الزَّاهِدِيِّ وَكَيْفِيَّتُهُ أَنْ يُكَبِّرَ بَعْدَ سَلَامِهِ الْأَوَّلِ وَيَخِرَّ سَاجِدًا وَيُسَبِّحَ فِي سُجُودِهِ ثُمَّ يَفْعَلَ ثَانِيًا كَذَلِكَ ثُمَّ يَتَشَهَّدَ ثَانِيًا ثُمَّ يُسَلِّمَ، كَذَا فِي الْمُحِيطِ.
وَيَأْتِي بِالصَّلَاةِ عَلَى النَّبِيِّ - صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ - 
অর্থাৎ-সেজদায়ে সাহুর সর্বোত্তম পদ্ধতি হচ্ছে, শেষ বৈঠকে তাশাহুদ পড়ার পর এক সালাম ডানদিকে ফিরাবে, অতঃপর আল্লাহু আকবর বলে সেজদায় চলে যাবে, এবং সেথায় (নামাযের সেজদার তাসবীহের মত)তাসবীহ পাঠ করবে,এবং এভাবে দ্বিতীয় সেজদাও আদায় করবে,অতঃপর তাশাহুদ ও দরুদ শরীফ পড়ে সালাম ফিরাবে,।বিস্তারিত জানতে ভিজিট করুন- https://www.ifatwa.info/897

সু-প্রিয় প্রশ্নকারী দ্বীনী ভাই/বোন! 
তাশাহুদ পড়া ওয়াজিব। আপনি ওয়াজিবকে তরক করেছেন। তবে আপনি যেহেতু সিজদায়ে সাহু দিয়ে দিয়েছেন, তাই আপনার নামায বিশুদ্ধ হয়ে গেছে। 

(২)যদি আপনি মন থেকে আল্লাহর কাছে অতীত জীবনের জন্য লজ্জিত হন, এবং এর জন্য আল্লাহর কাছে খালিছ নিয়তে তাওবাহ করে থাকেন, তাহলে আপনার কান্না না আসলেও কোনো সমস্যা নাই আপনার তাওবাহ অবশ্যই কবুল হবে। 


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন। উত্তর না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনি প্রতিমাসে সর্বোচ্চ ৪ টি প্রশ্ন করতে পারবেন।

বি.দ্র: প্রশ্ন করা ও ইলম অর্জনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো সরাসরি মুফতি সাহেবের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করা যেখানে প্রশ্নকারীর প্রশ্ন বিস্তারিত জানার ও বোঝার সুযোগ থাকে। যাদের এই ধরণের সুযোগ কম তাদের জন্য এই সাইট। প্রশ্নকারীর প্রশ্নের অস্পষ্টতার কারনে ও কিছু বিষয়ে কোরআন ও হাদীসের একাধিক বর্ণনার কারনে অনেক সময় কিছু উত্তরে ভিন্নতা আসতে পারে। তাই কোনো বড় সিদ্ধান্ত এই সাইটের উপর ভিত্তি করে না নিয়ে বরং সরাসরি মুফতি সাহেবদের সাথে যোগাযোগ করলে ভালো হয়। অন্যদিকে প্রতিমাসে একাধিকবার আমাদের মুফতি সাহেবগন জুমের মাধ্যমে সরাসরি প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন। সেই ক্লাসগুলোতেও জয়েন করার জন্য অনুরোধ করা গেল। ক্লাসের সিডিউল: fb.com/iomedu.org

Related questions

...