0 votes
127 views
in খাদ্য ও পানীয় (Food & Drink) by (65 points)
আসসালামু আলাইকুম ওয়া রহমাতুল্লাহ!
১.পাউরুটি/ বাটার বানে ইস্ট থাকে! এই ইস্ট কি হালাল? বাটার বান বা পাউরুটি খাওয়া যাবে?! কিছু পাউরুটিতে বা বাটার বানে যে বাটার বা ক্রিম দেয়া থাকে সেই ক্রিম/ বাটারও খাওয়া যাবে? ক্রিমগুলো হালাল কিনা জানি না যেহেতু!
২.রেস্টুরেন্ট/ হোটেলের  খাবারে বিভিন্ন কালার,মশলা ইউজ করা হয়, কি কি ইনগ্রেডিয়েন্টস ব্যবহৃত হয় জানা না থাকায় হালাল কিনা বুঝতে পারি না! এছাড়াও নুডুলস/ চাউমিন/,পাস্তা/কফি/ চিজ /মেয়োনিজ/ চকলেট    হালাল কোম্পানির গুলো ইউজ করছে কিনা বা হালাল ভাবে তৈরি করছে কিনা  না জানায় রেস্টুরেন্ট বা হোটেলের খাবার  খাওয়া যাবে?!

1 Answer

0 votes
by (255,440 points)
ওয়া আলাইকুমুস-সালাম ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু।
বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।
জবাবঃ-
হারাম কি কি আল্লাহ তা’আলা তা পরিস্কার করে উল্লেখ করে দিয়েছেন, এছাড়া বাদবাকী সব কিছুই হালাল-যতক্ষণ না হারামের কোনো দলীল পাওয়া যাবে।
قُل لاَّ أَجِدُ فِي مَا أُوْحِيَ إِلَيَّ مُحَرَّمًا عَلَى طَاعِمٍ يَطْعَمُهُ إِلاَّ أَن يَكُونَ مَيْتَةً أَوْ دَمًا مَّسْفُوحًا أَوْ لَحْمَ خِنزِيرٍ فَإِنَّهُ رِجْسٌ أَوْ فِسْقًا أُهِلَّ لِغَيْرِ اللّهِ بِهِ فَمَنِ اضْطُرَّ غَيْرَ بَاغٍ وَلاَ عَادٍ فَإِنَّ رَبَّكَ غَفُورٌ رَّحِيمٌ
আপনি বলে দিনঃ যা কিছু বিধান ওহীর মাধ্যমে আমার কাছে পৌঁছেছে, তন্মধ্যে আমি কোন হারাম খাদ্য পাই না কোন ভক্ষণকারীর জন্যে, যা সে ভক্ষণ করে; কিন্তু মৃত অথবা প্রবাহিত রক্ত অথবা শুকরের মাংস এটা অপবিত্র অথবা অবৈধ; যবেহ করা জন্তু যা আল্লাহ ছাড়া অন্যের নামে উৎসর্গ করা হয়। অতপর যে ক্ষুধায় কাতর হয়ে পড়ে এমতাবস্থায় যে অবাধ্যতা করে না এবং সীমালঙ্গন করে না, নিশ্চয় আপনার পালনকর্তা ক্ষমাশীল দয়ালু।( সূরা আনআম-১৪৫)

সতরাং
পাউরুটি/ বাটারে যে ইস্ট থাকে! এই ইস্ট হালাল।  বাটার বা পাউরুটি খাওয়া যাবে। পাউরুটিতে বা বাটারে যে বাটার বা ক্রিম দেয়া থাকে সেই ক্রিম/ বাটারও খাওয়াও হালাল। ক্রিমগুলো হালাল তবে দেখা যায় যে, তাতে হারাম কিছুর সন্নিবেশ ঘটানো হয়েছে,তাহলে তা হালাল হবে না।

(২) রেস্টুরেন্ট/ হোটেলের  খাবারে বিভিন্ন কালার,মশলা ইউজ করা হয়,সে গুলোরও সাধারণ বিধান হালাল। এছাড়াও নুডুলস/ চাউমিন/,পাস্তা/কফি/ চিজ /মেয়োনিজ/ চকলেট  হালাল। তবে হারাম কিছুর সন্নিবেশ ঘটানো হয়েছে,তাহলে তা হালাল হবে না।


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন। উত্তর না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনি প্রতিমাসে সর্বোচ্চ ৪ টি প্রশ্ন করতে পারবেন।

বি.দ্র: প্রশ্ন করা ও ইলম অর্জনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো সরাসরি মুফতি সাহেবের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করা যেখানে প্রশ্নকারীর প্রশ্ন বিস্তারিত জানার ও বোঝার সুযোগ থাকে। যাদের এই ধরণের সুযোগ কম তাদের জন্য এই সাইট। প্রশ্নকারীর প্রশ্নের অস্পষ্টতার কারনে ও কিছু বিষয়ে কোরআন ও হাদীসের একাধিক বর্ণনার কারনে অনেক সময় কিছু উত্তরে ভিন্নতা আসতে পারে। তাই কোনো বড় সিদ্ধান্ত এই সাইটের উপর ভিত্তি করে না নিয়ে বরং সরাসরি মুফতি সাহেবদের সাথে যোগাযোগ করলে ভালো হয়। অন্যদিকে প্রতিমাসে একাধিকবার আমাদের মুফতি সাহেবগন জুমের মাধ্যমে সরাসরি প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন। সেই ক্লাসগুলোতেও জয়েন করার জন্য অনুরোধ করা গেল। ক্লাসের সিডিউল: fb.com/iomedu.org

Related questions

...