0 votes
18 views
in বিবিধ মাস’আলা (Miscellaneous Fiqh) by (42 points)
ছোট বেলায় কিছু দোকান থেকে না বলে চকলেট খাওয়া হয়েছিল এখন এই ভুলটা বুঝতে পারছি এটা অনেক বড় গুনা হয়েছে এখন আমি তাদের হক কিভাবে আদায় করব,,,,, আমি কি তাদের পক্ষ থেকে দান সদকা করে দিতে পারব?

যে দোকানগুলো থেকে  না বলে চকলেট খাওয়া হয়েছে তার মধ্যে শুধু একটি দোকান এখনো আছে কিন্তু তাকে বলতে লজ্জা হচ্ছে আমি চাচ্ছিলাম উনার পক্ষ থেকে থেকে কিছু দান সদকা করে দিতে এটা কি সঠিক হবে

1 Answer

0 votes
by (79,640 points)
জবাব
بسم الله الرحمن الرحيم 


(০১)
হাদীস শরীফে এসেছেঃ  
عَنْ أَنَسِ بْنِ مَالِكٍ قَالَ قَالَ رَسُولُ اللَّهِ -صلى الله عليه وسلم- « إِذَا رَقَدَ أَحَدُكُمْ عَنِ الصَّلاَةِ أَوْ غَفَلَ عَنْهَا فَلْيُصَلِّهَا إِذَا ذَكَرَهَا فَإِنَّ اللَّهَ يَقُولُ أَقِمِ الصَّلاَةَ لِذِكْرِى

অনুবাদ-যখন তোমাদের কেউ নামায ছেড়ে ঘুমিয়ে পড়ে, বা নামায থেকে গাফেল হয়ে যায়, তাহলে তার যখন বোধোদয় হবে তখন সে যেন তা আদায় করে নেয়। কেননা আল্লাহ তাআলা ইরশাদ করেছেন-আমাকে স্মরণ হলে নামায আদায় কর।
(সহীহ মুসলিম, হাদীস নং-১৬০১
মুসনাদে আহমাদ, হাদীস নং-১২৯৩২
সুনানে বায়হাকী কুবরা, হাদীস নং-৪১৮২)
.
★প্রিয় প্রশ্নকারী দ্বীনি বোন,   
জীবনে কতটি দিন বা মাস কিংবা বৎসরের নামায কা'যা হয়েছে,সে বিষয়ে অধিকাংশ ধারণার উপর ভিত্তি করেই মূলত নামায-কে কা'যা করতে হবে।যখন মনের মধ্যে পূর্ণ ঈয়াক্বিন চলে আসবে যে,এখন থেকে আরো কোনো নামায কা'যা নেই।তখন থেকেই কা'যা নামায কে সমাপ্ত করা হবে।
,
ফুকাহায়ে কেরামগন সহজের দিক লক্ষ্য করে বলেছেন যে এক্ষেত্রে মনে মনে এই ভাবে নিয়ত করতে হবে যে আমার জীবনের সর্বপ্রথম/সর্বশেষ  ফজরের নামাজ,যেটা আমি আদায় করিনি,তার কাজা আদায় করছি।
এই ভাবে সকল নামাজের নিয়ত করবে।
,
উমরি কাযা সংক্রান্ত বিস্তারিত জানুনঃ 

(০২)
শরীয়তের বিধান হলো  কারো নিকট বান্দার হক পাওনা থাকলে,প্রথমে উক্ত হক পরিশোধের জন্য সাধ্যমত চেষ্টা করতে হবে।সাধ্যমত চেষ্টা করার পরও যদি সেই হককে আদায় করা সম্ভব না হয়, তাহলে উক্ত প্রাপ্য হক্বকে সেই ব্যক্তির পক্ষ থেকে সদকাহ করে দিবে।এবং আল্লাহ তা'আলার নিকট খালিছ নিয়তে তাওবাহ করবে। আল্লাহ তা'আলা কারো প্রতি সন্তুষ্ট হয়ে গেলে নিজ পক্ষ্য থেকে বান্দার হককে আদায় করে দিবেন।

,
এক্ষেত্রে কোনো সমস্যা থাকলে জানানোটা আবশ্যকীয় নয়। বরং সম্ভাব্য যে কোন পদ্ধতিতে তাকে সম্পদটা ফিরিয়ে দিবে; যেমন তার একাউন্টে জমা করে দেওয়া কিংবা এমন কাউকে দেওয়া যে তার কাছে পৌঁছিয়ে দিবে কিংবা এ ধরণের অন্য কোন মাধ্যমে।
,
★সুতরাং প্রশ্নে উল্লেখিত ছুরতে উক্ত চকলেট গুলোর টাকা অনুমান করে একটি এমাউন্ট নির্দিষ্ট করবেন,অতঃপর যেই ব্যক্তিকে এখন পাওয়া যায়,তাকে এই বলে দিবেন যে এটি আপনার পাওনা। 
,
নিজে সমস্যা মনে করলে অন্য কাহারো মাধ্যেম দিয়ে দিবেন।
,
আর যেই ব্যাক্তিদের এখন পাওয়া যাচ্ছেনা, 
এই ছুরতে উক্ত চকলেট গুলোর টাকা অনুমান করে একটি এমাউন্ট নির্দিষ্ট করবেন,অতঃপর সেই দোকানদার ব্যক্তিদের পক্ষ থেকে সদকাহ করে দিবেন।
,
আরো জানুনঃ 

বিস্তারিত জানুনঃ 
,


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

------------------------
মুফতী ওলি উল্লাহ
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

ﻓَﺎﺳْﺄَﻟُﻮﺍْ ﺃَﻫْﻞَ ﺍﻟﺬِّﻛْﺮِ ﺇِﻥ ﻛُﻨﺘُﻢْ ﻻَ ﺗَﻌْﻠَﻤُﻮﻥَ অতএব জ্ঞানীদেরকে জিজ্ঞেস করো, যদি তোমরা না জানো। সূরা নাহল-৪৩

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন।

Related questions

...