আইফতোয়াতে ওয়াসওয়াসা সংক্রান্ত প্রশ্নের উত্তর দেওয়া হবে না। ওয়াসওয়াসায় আক্রান্ত ব্যক্তির চিকিৎসা ও করণীয় সম্পর্কে জানতে এখানে ক্লিক করুন

0 votes
70 views
in হালাল ও হারাম (Halal & Haram) by (4 points)
১/ কোনো মেয়ে যখন কোনো ছেলেকে বিয়ে করে তখনই ছেলের বাবার সাথে ওই মেয়ের হুরমত সাবিত হয়ে যায়। কারন তার স্বামীর বাবা তার জন্য হারাম। এখন পুত্রবধূ যদি অসুস্থ শ্বশুরের খেদমত করতে গিয়ে হঠাৎ শ্বশুরের মধ্যে শাহওয়াত চলে আসে এখানে ওই পুত্রবধু এবং ওই পুত্র তাদের সম্পর্ক নষ্ট হবে কেনো? এখানে জেনার পাপ হলে শ্বশুরের হবে। কিন্তু একটা বিবাহিত দম্পতি যারা সূখে আছে, ভালো আছে তালাক দেয়ার কোনো প্রশ্ন আসে না, তাদের ছেলে মেয়ে আছে তাদের সম্পর্কটা হারাম হবে কোন কারনে? একজনের পাপের ভার অন্যজন কেন বহন করবে?  বাবার পাপে বা শ্বশুরের ভুল বা পাপে তারা কেন শাস্তি পাবে? দরকার পরলে শ্বশুরের গুনাহ হোক জেনার।  পুত্রবধু আর পুত্রের কি দোষ? তাও মানা যেত যদি পুত্রবধু ও শ্বশুর তাদের উভয়ের সম্মতিতে হতো, কিন্তু শর্ত হলো যে কোনো একজনের শাহওয়াত বা উত্তেজনা আসলেই হলো। এটা কি আদৌ শরীয়তের বিধান নাকি শুধু হানাফি মাজহাবেই এমন সংস্কার বানানো?

২। এখানে সহবাস হলেও একটা কথা ছিল সহবাস ব্যাতিরেকে সামান্য স্পর্শের দ্বারা ও দৃষ্টিপাতে দ্বারা হুরমত সাব্যস্ত করা এটা কি অমানবিক নয়?
৩। হুরমতে মুসাহারা দ্বারা মনে হচ্ছে বিবাহ না করে জেনা করা উত্তম কারন জেনাকারী সারাক্ষণ জেনা করবে না। এতো বড় সংসার তো আর একটা শ্বশুরের ভুলে কেউ ভেঙে দিবে না সো এভাবে থাকলে সারাজীবন জেনার গুনাহ হতে থাকবে, সেই সাথে সন্তানদের ভবিষ্যৎ, সামাজিক মূল্যবোধ ও সম্মানহানি। এর দ্বারা মনে হয় বিবাহ মৃত্যুর থেকেও ঠুনকো ( নাউজুবিল্লাহ) উদাহরন মাত্র।

৪।  আরেকটা রেওয়াত হলো কেউ যদি শাহওয়াত বা উত্তেজনাসহ স্ত্রীকে বা হাজব্যান্ডকে স্পর্শ করতে চায় কিন্তু ভুলে বা অন্ধকারে বা অনিচ্ছায় তার মেয়ের বা ছেলের শরীর স্পর্শ করে ফেলে এবং এক সেকেন্ডের মধ্যে হাত সরিয়ে ফেলে তাহলের হুরমতে মুসাহারা হয়ে ওই স্বামী স্ত্রী একে অপরের জন্য হারাম হয়ে যাবে। এখন কথা হলো ইসলাম বা শরীয়ত কি এতো কঠোর?  এতোটা অমানবিক।
৫/ কেনায়া তালকের বিধান ও হুরমতে মুসাহারা মিলিয়ে বিশ্ব মুসলিমদের ৯৮% বৈবাহিক সম্পর্ক হালাল আছে কি?

৬/ এই ব্যাপারটা শুধু হানাফী মাঝহাবেই দেখা যায়। স্পর্শ ও দৃষ্টিপাতের মাধ্যমে হুরমতের যে ব্যাপারটা এটা কি আসলেই শরীয়ত ও কুরআন হাদিস সম্মত নাকি অতিরঞ্জিত বাড়াবাড়ি?

এ ব্যাপারে মুফতী সাহেব কি করবেন? ধরেন আপানার একটা মিসটেক হয়ে গেলো আপনি আপনার সংসারকে ভেঙে দিবেন?

আসলেই কি এটা ইসলামের বিধান নাকি বাড়াবাড়ি

1 Answer

0 votes
by (746,320 points)
ওয়া আলাইকুমুস-সালাম ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু। 
বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।
জবাবঃ-
আলহামদুলিল্লাহ!
যিনা ব্যভিচার দ্বারাও হুরমতে মুসাহারাহ প্রমাণিত হয়। এটা শরীয়তের বিধান। জরুরী নয় যে, প্রত্যেকটি বিধানের হেকমত মানুষের বুঝে আসবে। বরং শরীয়তের প্রত্যেকটি বিধান ও বিধানের বৈরিতার অবশ্যই যুক্তিসংগত হেকমত রয়েছে। আমাদের দায়িত্ব হল, হেকমতের দিকে না থাকিয়ে শরীয়তের বিধানকে মেনে চলা। চায় আমার বুঝে আসুক বা না আসুক।এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন- https://www.ifatwa.info/100395


’আলী (রাঃ) হতে বর্ণিত। 
وَعَن عَليّ رَضِي الله عَنهُ قَالَ: لَوْ كَانَ الدِّينُ بِالرَّأْيِ لَكَانَ أَسْفَلُ الْخُفِّ أَوْلَى بِالْمَسْحِ مِنْ أَعْلَاهُ وَقَدْ رَأَيْتُ رَسُولَ اللَّهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ يَمْسَحُ على ظَاهر خفيه 
তিনি বলেন, দ্বীন/শরীয়ত যদি (মানুষের জন্য) বুদ্ধি অনুসারেই হতো, তাহলে মোজার উপরের চেয়ে নীচের দিকে মাসাহ করাই উত্তম হত। আমি রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-কে দেখেছি যে, তিনি তাঁর মোজার উপরের দিক মাসাহ করেছেন। [মিশকাত-৫২৫,সুনানু আবি দাঊদ ১৬২, দারাকুত্বনী ৭৮৩]


সু-প্রিয় প্রশ্নকারী দ্বীনী ভাই/বোন!
(১) 'কোনো মেয়ে যখন কোনো ছেলেকে বিয়ে করে তখনই ছেলের বাবার সাথে ওই মেয়ের হুরমত সাবিত হয়ে যায়। কারন তার স্বামীর বাবা তার জন্য হারাম।' আপনার এই বক্তব্য সঠিক।

পুত্রবধূ যদি অসুস্থ শ্বশুরের খেদমত করতে গিয়ে হঠাৎ শ্বশুরের মধ্যে শাহওয়াত চলে আসে, শুধুমাত্র এদ্বারা হুরমত হবে না। বরং হুরমত হওয়ার জন্য বেশ কিছু শর্ত রয়েছে।সবগুলো পাওয়ার পরই হুরমত হবে।তাছাড়া সন্দেহ দ্বারাও হুরমত হবে না। 

হুরমতরন জন্য বেশ এমন কিছু শর্ত রয়েছে, যা পুত্রবধু ও শ্বশুর উভয়ের সম্মতির মতই। সহবাসের নিয়তে খালি গায়ে পুত্রবধু ও শ্বশুরের স্পর্শ দ্বারাই হুরমত হয়। এখানে পুত্রবধু জন্য উচিৎ ছিলো, শ্বশুরের সাথে পরিপূর্ণ পর্দা করা।কেননা ফিতনার আশংকার মুহূর্তে পুত্রবধুর জন্য শ্বশুড় অন্যান্য গায়রে মাহরামের মতই। কাজেই পরিপূর্ণ পর্দা না করে শ্বশুরের সামনে উপস্থিত হওয়া টাই পুত্রবধুর অপরাধ।

(২) সহবাস ব্যাতিরেকে সামান্য স্পর্শের দ্বারা এবং দৃষ্টিপাত দ্বারাও হুরমত সাব্যস্ত হয়। এটাকে অমানবিক বিবেচনা করা যাবে না।কেননা এমন কিছু শর্ত রয়েছে, যেগুলো একসাথে পাওয়া সাধারণ অসম্ভব মনে হয়ে থাকে।
 
(৩) বিষয়টি সম্পর্কে বুঝে নিতে সক্ষম হলে, এরকম পরিস্থিতে পড়তে হবে না।

(৪) এজন্য শরীয়ত সাবালক ছেলে মেয়েকে পৃথক পৃথক ঘুমানোর নির্দেশ দিয়ে থাকে। এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন- https://www.ifatwa.info/757

(৫) কেনায়া তালকের বিধান ও হুরমতে মুসাহারা মিলিয়ে বিশ্ব মুসলিমদের ৯৮% বৈবাহিক সম্পর্ক হালাল থাকবে না কেন? হুরমতে মুসাহারাম এমনি এমনি হবে না।বরং সবগুলো শর্ত পাওয়া যেতে হবেই। নতুবা হুরমত হবে না। কেননা তালাকের জন্য নিয়ত প্রয়োজন।নিয়ত ব্যতিত কেনায়া তালাক হবে না।

(৬) স্পর্শ ও দৃষ্টিপাতের মাধ্যমে হুরমতের যে ব্যাপারটা রয়েছে। এটা কুরআন-হাদিস থেকে ইজতেহাদ তথা গবেষণা করেই মাস'আলা বের করা হয়েছে। হানাফি মাযহাব ব্যতিত অন্য মাযহাবে বিয়ে ব্যতিত হুরমতে মুসাহারাহ সাব্যস্ত হয় না।এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন- https://www.ifatwa.info/1233


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন। উত্তর না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনি প্রতিমাসে সর্বোচ্চ ৪ টি প্রশ্ন করতে পারবেন। এই প্রশ্ন ও উত্তরগুলো আমাদের ফেসবুকেও শেয়ার করা হবে। তাই প্রশ্ন করার সময় সুন্দর ও সাবলীল ভাষা ব্যবহার করুন।

বি.দ্র: প্রশ্ন করা ও ইলম অর্জনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো সরাসরি মুফতি সাহেবের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করা যেখানে প্রশ্নকারীর প্রশ্ন বিস্তারিত জানার ও বোঝার সুযোগ থাকে। যাদের এই ধরণের সুযোগ কম তাদের জন্য এই সাইট। প্রশ্নকারীর প্রশ্নের অস্পষ্টতার কারনে ও কিছু বিষয়ে কোরআন ও হাদীসের একাধিক বর্ণনার কারনে অনেক সময় কিছু উত্তরে ভিন্নতা আসতে পারে। তাই কোনো বড় সিদ্ধান্ত এই সাইটের উপর ভিত্তি করে না নিয়ে বরং সরাসরি স্থানীয় মুফতি সাহেবদের সাথে যোগাযোগ করতে হবে।

Related questions

...