0 votes
71 views
in বিবিধ মাস’আলা (Miscellaneous Fiqh) by (1 point)
আসসালামু আলাইকুম

আমি গতদিন ফজরের পরে একটা স্বপ্ন দেখি। দেখি একটা মেয়ে একটা চিঠি পাঠিয়েছে। মেয়েটাকে বাস্তবে আমি চিনি। চিঠির খামের ভিতরে তার দুই কপি সাধারণ ছবি [একটা ছবি বেশ পুরানো, আরেকটা স্কুল-কলেজে যেমন ফরমাল ছবি ব্যবহার হয় তেমন] সহ তার বিয়ের বায়োডাটা। সরাসরি প্রস্তাব দেয় নি। তবে বায়োডাটা এমনভাবে লিখেছে যে সে আমাকে বিবাহ করতে ইচ্ছুক; তবে লজ্জায় সরাসরি লিখতে পারেনি । এর আগেও একদিন স্বপ্নে এই মেয়েটাই আমাকে বিয়ের প্রস্তাব দিয়েছিল। তো স্বপ্নের মধ্যে আমার বিশ্বাস হচ্ছিলো না যে ওই মেয়েটা আমাকে প্রস্তাব দিয়েছে আর আগের দিন স্বপ্ন দেখার কথাটাও মনে পড়ে যায় আর স্বপ্নের মধ্যেই ভাবতে থাকি এখন এটা আবার স্বপ্ন নাতো। তাই আমি সেই চিঠির কাগজ একটু ছিড়ে মুখ নিয়ে চাবাই, দেখার জন্য এটা কি বাস্তবেই হচ্ছে নাকি স্বপ্নই। এরপর কাগজের যেমন টেস্ট সেই টেস্ট বুঝতে পেরে নিশ্চিত হই যে আমি স্বপ্ন দেখছি না [যদিও আসলে সেটা স্বপ্নই ছিলো]। তারপর বেশ খুশি ছিলাম.. এরপর ঘুম ভেঙে যায়।

আমি জানতে চাচ্ছি এই স্বপ্নটা কি আল্লাহর তরফ থেকে নাকি শয়তান সেই মেয়েকে টোপ হিসেবে ইউজ করে আমাকে ফিতনায় ফেলতে চাচ্ছে।

আর উল্লেখ্য যে, বাস্তবে মেয়েটার ব্যাপারে আমি খুব একটা আগ্রহী না আবার অপছন্দও না।

1 Answer

0 votes
by (82,360 points)
জবাব
وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته
بسم الله الرحمن الرحيم 

যদি স্বপ্নে কেউ বিয়ে করতে দেখে, তার দ্বারা আসন্ন বিবাহ বুঝায়। স্বপ্নের সময় যদি বিয়ের পরিকল্পনা না থাকে তাহলে হয়তো যার যঙ্গে বিয়ে হতে দেখেছে তাদের বিয়ের প্রস্তাব দিতে পারে।
.
 নিম্নোক্ত ঘটনাটি ইহা নির্দেশ করে:
হয়রত আয়েশা (রাঃ) বলেছেন, রাসূল (সাঃ) ইরশাদ করেন, (স্বপ্নে) তোমাকে আমার নিকট দুবার দেখানো হয়েছে তোমাকে আমি বিয়ে করার পূর্বেই। আমি দেখলাম একজন ফেরেশতা কাউকে রেশমী কাপড়ের মধ্যে বহন করে নিয়ে যাচ্ছে, আমি তাকে বললাম: তাকে উন্মুক্ত করুন এবং আমি আশ্চর্য হয়ে দেখলাম ইহা তুমি। আমি নিজে নিজে বললাম: যদি ইহা আল্লাহর পক্ষ থেকে হয় তাহলে অবশ্যই হবে। অতঃপর, তোমাকে পুনরায় দেখানো হলো। 

পরবর্তীতে আমি একই ফেরেশতাকে স্বপ্নে দেখলাম কাউকে রেশমী কাপড়ের মধ্যে বহন করে নিয়ে যাচ্ছেন এবং তাকে বললাম তাকে উন্মুক্ত করুন এবং আমি আশ্চর্য হয়ে দেখলাম পুনরায় ইহা তুমিই। আমি নিজে নিজে বললাম: যদি ইহা আল্লাহর পক্ষ থেকে হয় তাহলে অবশ্যই ইহা ঘটবে। 
,
حَدَّثَنَا مُعَلًّى حَدَّثَنَا وُهَيْبٌ عَنْ هِشَامِ بْنِ عُرْوَةَ عَنْ أَبِيْهِ عَنْ عَائِشَةَ رَضِيَ اللهُ عَنْهَا أَنَّ النَّبِيَّ صلى الله عليه وسلم قَالَ لَهَا أُرِيْتُكِ فِي الْمَنَامِ مَرَّتَيْنِ أَرَى أَنَّكِ فِيْ سَرَقَةٍ مِنْ حَرِيْرٍ وَيَقُوْلُ هَذِهِ امْرَأَتُكَ فَأَكْشِفُ فَإِذَا هِيَ أَنْتِ فَأَقُوْلُ إِنْ يَكُ هَذَا مِنْ عِنْدِ اللهِ يُمْضِهِ

 ‘আয়িশাহ (রাঃ) হতে বর্ণিত যে, নাবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তাঁকে বলেন, দু’বার তোমাকে আমায় স্বপ্নে দেখানো হয়েছে। আমি দেখলাম, তুমি একটি রেশমী কাপড়ে আবৃতা এবং আমাকে বলছে ইনি আপনার স্ত্রী, আমি তার ঘোমটা সরিয়ে দেখলাম, সে মহিলা তুমিই। তখন আমি ভাবছিলাম, যদি তা আল্লাহর পক্ষ হতে হয়ে থাকে, তবে তিনি তা বাস্তবায়িত করবেন।
 (বুখারী শরীফ ৫০৭৮, ৫১২৫, ৭০১১, ৭০১২, মুসলিম ৪৪/১৩, হাঃ নং ২৪৩৮, আহমাদ ২৪১৯৭, ইসলামিক ফাউন্ডেশনঃ ৩৬১৩)
,
আরো জানুনঃ  
.
★সুতরাং প্রশ্নে উল্লেখিত ছুরতে যদি আপনি উক্ত মেয়েকে নিয়ে জাগ্রত অবস্থায় না ভাবেন, তারপরেও বারবার স্বপ্নে এটা দেখেন,তাহলে স্বপ্ন সত্যি হওয়ার অনেকটাই আশংকা রয়েছে।
,
তবে তার প্রতি আপনার আগ্রহ  না থাকলে তার সাথে বিবাহ নিয়ে এগোনোর কোনো প্রয়োজন নেই।
কারন জরুরি নয় যে আপনাকে তাকেই বিবাহ করতে হবে।
সে বাস্তবে প্রস্তাব দিতে পারে,তবে আপনি না চাইলে তাকে বিবাহ করবেননা।
এটি সম্পূর্ণ আপনার ইখতিয়ার রয়েছে।     


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

------------------------
মুফতী ওলি উল্লাহ
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

ﻓَﺎﺳْﺄَﻟُﻮﺍْ ﺃَﻫْﻞَ ﺍﻟﺬِّﻛْﺮِ ﺇِﻥ ﻛُﻨﺘُﻢْ ﻻَ ﺗَﻌْﻠَﻤُﻮﻥَ অতএব জ্ঞানীদেরকে জিজ্ঞেস করো, যদি তোমরা না জানো। সূরা নাহল-৪৩

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন।

Related questions

...