আইফতোয়াতে ওয়াসওয়াসা সংক্রান্ত প্রশ্নের উত্তর দেওয়া হবে না। ওয়াসওয়াসায় আক্রান্ত ব্যক্তির চিকিৎসা ও করণীয় সম্পর্কে জানতে এখানে ক্লিক করুন

0 votes
122 views
in হালাল ও হারাম (Halal & Haram) by (14 points)
আসসালামু আলাইকুম ওরাহমাতুল্লাহি ওয়াবারাকাতুহ।

১.আমার বোনজামাই একজন ব্যাংকার।তিনি ঈদ উপলক্ষে আমাকে এবং আমার শ্বশুর বাড়ির কয়েকজনকে পোশাক হাদিয়া দেন।আমি বুঝতে পারছি এই পোশাক টা হারাম কিন্তু সাদকাহ করার উপায় নেই কারণ এতে আমার বোনের সাথে সম্পর্ক ছিন্ন হওয়ার আশঙ্কা থাকতে পারে।যেহেতু পোশাকের দাম কত আমি জানিনা তাই কত  টাকা সদকা করব?আনুমানিক হিসাব করে?
২.আমি নিজে বুঝলেও শশুড়বাড়ির বাকিদের সাদকাহ র কথাটা বলতে পারব না,,এতে তাদের পোশাক এর সমপরিমাণ টাকা দেয়া সম্ভব না,,এই কাজের ফলে কি আমার গুনাহ হবে?

৩.তাদের বাসায় অনেক সময় দাওয়াত এ যেতে হয়,সেক্ষেত্রেও কি আনুমানিক কিছু টাকা সাদকাহ করে দিব?নাকি তাদের জন্য অধিক পরিমানে হাদিয়া নিয়ে যাব বিনা সওয়াব এর আশায়,,কোনটা উত্তম হবে?

আমার নিজের বা আমার স্বামীর নিসাব পরিমাণ কোনো সম্পদ নেই।আমরা নিম্নমধ্যবিত্ত

1 Answer

0 votes
by (681,160 points)
ওয়া আলাইকুমুস-সালাম ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু। 
বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।
জবাবঃ-
আলহামদুলিল্লাহ!
হারাম টাকার বিধান হল, তা প্রাথমিকভাবে মূল মালিকের কাছে ফেরত দেয়া।নতুবাজনকল্যাণ মূলক কাজে ব্যবহার করবেন(জাদীদ ফেকহি মাসাঈল-৪/৫২) কিংবা সওয়াবের নিয়ত ছাড়া গরীবদের মাঝে সদকা করে দেয়া।
 من ملك بملك خبيث ولم يمكنه الرد الى المالك فسبيله التصدق على الفقراء
যদি কারো নিকট কোনো হারাম মাল থাকে,তাহলে সে ঐ মালকে তার মালিকের নিকট ফিরিয়ে দেবে।যদি ফিরিয়ে দেয়া সম্ভব না হয়,তাহলে গরীবদেরকে সদকাহ করে দেবে।(মা'রিফুস-সুনান১/৩৪) 
এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন- https://www.ifatwa.info/1900

في الشامية:
والحاصل: أنه إن علم أرباب الأموال وجب رده عليهم، وإلا فإن علم عين الحرام لايحل له ويتصدق به بنية صاحبه''. (5/99،مَطْلَبٌ فِيمَنْ وَرِثَ مَالًا حَرَامًا، ط: سعید)   فقط واللہ اعلم

সু-প্রিয় প্রশ্নকারী দ্বীনী ভাই/বোন!
(১)
অনুমান করে পোষাকের সমপরিমাণ টাকা সদকাহ করে দিবেন।
(২)
ফিতনার আশংকা না থাকলে আপনার স্বামীর মাধ্যমে পরিবারের সবাইকে অবগত করে দিবেন।যদি ফিতনার আশংকা থাকে, তাহলে পরিবারের কাউকে অবগত করার কোনো প্রয়োজনিয়তা নাই বরং আপনারা স্বামী স্ত্রী সেই পরিমাণ টাকা সদকাহ করে দিবেন।আর সামর্থ্য না থাকলে ভবিষ্যতে সদকাহ করার নিয়ত রাখবেন।

(৩)
তাদের বাসায় যাওয়ার সময় যা নিবেন, সেটা তো সদকাহ হবে না। 


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

by (681,160 points)
+1
সংযোজন ও সংশোধন করা হয়েছে।

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন। উত্তর না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনি প্রতিমাসে সর্বোচ্চ ৪ টি প্রশ্ন করতে পারবেন। এই প্রশ্ন ও উত্তরগুলো আমাদের ফেসবুকেও শেয়ার করা হবে। তাই প্রশ্ন করার সময় সুন্দর ও সাবলীল ভাষা ব্যবহার করুন।

বি.দ্র: প্রশ্ন করা ও ইলম অর্জনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো সরাসরি মুফতি সাহেবের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করা যেখানে প্রশ্নকারীর প্রশ্ন বিস্তারিত জানার ও বোঝার সুযোগ থাকে। যাদের এই ধরণের সুযোগ কম তাদের জন্য এই সাইট। প্রশ্নকারীর প্রশ্নের অস্পষ্টতার কারনে ও কিছু বিষয়ে কোরআন ও হাদীসের একাধিক বর্ণনার কারনে অনেক সময় কিছু উত্তরে ভিন্নতা আসতে পারে। তাই কোনো বড় সিদ্ধান্ত এই সাইটের উপর ভিত্তি করে না নিয়ে বরং সরাসরি স্থানীয় মুফতি সাহেবদের সাথে যোগাযোগ করতে হবে।

Related questions

...