0 votes
37 views
in সালাত(Prayer) by (22 points)
রাতে তাহাজ্জুদ নামায পড়ার চেষ্টা করি তাই বিতর নামায এশার পর পড়া হয় না। মাঝে মাঝে তাহাজ্জুদ ্এর জন্য ঘুম থেকে ওঠতে পারি না। ফলে বিতর নামায ও মিস হয়ে যায়। এক্ষেত্রে কি করতে পারি ?

1 Answer

0 votes
by (37.6k points)
বিসমিহি তা'আলা

জবাবঃ-
বিতির নামায ওয়াজিব।এবং ওয়াজিবের কাযা করতে হয়।

যদি সুবহে সাদিকের আগে আপনার ঘুম ভেঙ্গে যায়, তাহলে  তাহাজ্জুদ এবং বিতির পড়বেন।

কিন্তু যদি সুবহে সাদিকের আগে আপনার ঘুম না ভাঙ্গে, অন্যদিকে সময় এ পরিমাণ বাকী থাকে যে, ফজর পড়া ছাড়া আরো ও কিছু নামায পড়া যাবে,ওয়াক্ত বাকী রয়েছে, তাহলে প্রথমে বিতিরকে কাযা করবেন।তারপর ফজরের নামায পড়বেন।তবে তাহাজ্জুদেরকে কাযা করতে হবে না।কেননা নফলের কোনো কাযা নেই।

তবে যদি সময় এতটুকু বাকী  না থাকে যে,ফজরের নামায ছাড়া আরো কিছু নামায পড়া যাবে, তাহলে এমতাবস্থায় শুধু্ ফজরের নামায পড়বেন।বিতিরের নামাযকে পরবর্তীতে কাযা করে  নিবেন।

আবকে মাসাঈল-২/৩৩৬

আল্লাহ-ই ভালো জানেন।

উত্তর লিখনে

মুফতী ইমদাদুল হক

ইফতা বিভাগ, IOM.

ﻓَﺎﺳْﺄَﻟُﻮﺍْ ﺃَﻫْﻞَ ﺍﻟﺬِّﻛْﺮِ ﺇِﻥ ﻛُﻨﺘُﻢْ ﻻَ ﺗَﻌْﻠَﻤُﻮﻥَ অতএব জ্ঞানীদেরকে জিজ্ঞেস করো, যদি তোমরা না জানো। সূরা নাহল-৪৩

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনার দ্বীন সম্পর্কীয় প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার জন্য রয়েছে আমাদের  অভিজ্ঞ ওলামায়কেরাম ও মুফতি সাহেবগনের একটা টিম যারা ইনশাআল্লাহ প্রশ্ন করার ২৪-৪৮ ঘন্টার সময়ের মধ্যেই প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন।

...