0 votes
28 views
in পরিবার,বিবাহ,তালাক (Family Life,Marriage & Divorce) by (3 points)
স্বামীর কাছ থেকে ১ মাস একা অন্য মুসলিম দেশে ভ্রমণ এবং থাকা, উদ্দেশ্য হল ইসলামিক কারণে একটি নিরাপদ দেশ এবং পরিবেশে থাকা। ভবিষ্যতে বাচ্চাদের জন্যও ইসলামিক শিক্ষার আগ্রহ। স্ত্রী কি এতদিন (১/২ মাস) স্বামী থেকে দূরে থাকতে পারবে?

আসসালামু আলাইকুম ওয়া রহমাতুল্লাহ, শায়েক, ইসলামিক চিন্তাধারার তাগিদে স্ত্রী  কি একা অন্য দেশ ভ্রমণ করতে পারেন? ১ বা ২ মাস পরে স্বামী চাকরির উদ্দেশ্যে স্ত্রীর সাথে যোগদান করবে। স্বামী স্ত্রীর সাথে যেতে পারেনি। স্ত্রী কি সম্পূর্ণ সঠিক পোশাকের সাথে চাকুরি করতে পারে? এবং সন্তানের ভবিষ্যতের জন্য স্বামীকে ইসলামিক দেশে থাকতে সাহায্য করতে পারে? কারণ তারা আরও ভাল ইনস্টিটিউট থেকে ইসলামিক শিক্ষা দিতে চায়। স্ত্রী কি দুর দেশে আরও ১োমাস একা থাকতে পারেন? বা তার দেশে আসা উচিত যদিও তাদের এখনও কোন সন্তান নেই। কি করা উচিত?

1 Answer

0 votes
by (469,840 points)
edited by

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।
জবাবঃ-
ফিৎনার আশংকা না থাকলে সফরের দূরত্বের চেয়ে কম (অর্থাৎ তিনদিন তিনরাত দূরত্বের জায়গা অথবা ৭৭(এক বর্ণনায় ৮২.৫) কিলোমিটারের চেয়ে কম) দূরত্ব মহিলার জন্য মাহরাম ব্যতীত সফর করা বৈধ রয়েছে। শায়খাইন রাহ তথা ইমাম আবু হানিফা রাহ ও ইমাম আবু ইউসুফ রাহ থেকে বর্ণিত রয়েছে,একদিন একরাত দূরত্বের জায়গা থেকে কম হলে তথা (৭৭÷৩=২৫.৬)২৫.৬ কিলোমিটার বা তার চেয়ে কম পরিমাণ জায়গা হলে মহিলা মাহরাম ব্যতীত সফর করতে পারবে।অন্যথায় পারবে না। বর্তমান এই ফিতনার যুগে  নিম্নোক্ত মতামত-ই ফাতাওয়া তথা শরয়ী সিদ্ধান্ত নেয়ার যোগ্য।তবে এখানেও ফিতনার আশঙ্কা না থাকা চাই।আল্লাহ-ই ভালো জানেন।(কিতাবুন-নাওয়াযিল;১৫/৪১৭)এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন-https://www.ifatwa.info/212

মহিলাদের সর্বোত্তম পর্দা হচ্ছে ঘরের চার দেয়ালের ভিতর অবস্থান করা।এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন-https://www.ifatwa.info/572

সু-প্রিয় প্রশ্নকারী দ্বীনি ভাই/বোন!
বিশেষ প্রয়োজনে মহিলারা মাহরাম ব্যতিত কাছাকাছি  জায়গা তথা একদিন এক রাতের দূরত্ব সমপরিমাণ জায়গা সফর করতে পারবে। অবশ্যই সম্পূর্ণ পর্দাকে রক্ষা করে যেতে হবে। তবে এর চেয়ে বেশী মাহরাম ব্যতিত পারবে না। হ্যা, বিশেষ জরুরত হলে, তথা ভিন্ন কোনো রাস্তা না থাকলে এবং সেখানে যাওয়া জরুরী হলে তখন নেককার মহিলাদের এক জামাতের সাথে মাহরাম ব্যতিত সফর করার অনুমোদন থাকবে। আপনার নিকট এ ছাড়া ভিন্ন কোনো রাস্তা না থাকলে, ইস্তেগফারের সাথে যেতে পারেন।সদা সর্বদা সতর্ক থাকবেন।এবং সেখানকার পরিবেশ সম্পর্কে অবগত থাকবেন।নিরাপদ হলে সফর শুরু করবেন অন্যথায় পরিহার করবেন।


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

by (469,840 points)
সংযোজন ও সংশোধন করা হয়েছে।

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন। উত্তর না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনি প্রতিমাসে সর্বোচ্চ ৪ টি প্রশ্ন করতে পারবেন।

বি.দ্র: প্রশ্ন করা ও ইলম অর্জনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো সরাসরি মুফতি সাহেবের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করা যেখানে প্রশ্নকারীর প্রশ্ন বিস্তারিত জানার ও বোঝার সুযোগ থাকে। যাদের এই ধরণের সুযোগ কম তাদের জন্য এই সাইট। প্রশ্নকারীর প্রশ্নের অস্পষ্টতার কারনে ও কিছু বিষয়ে কোরআন ও হাদীসের একাধিক বর্ণনার কারনে অনেক সময় কিছু উত্তরে ভিন্নতা আসতে পারে। তাই কোনো বড় সিদ্ধান্ত এই সাইটের উপর ভিত্তি করে না নিয়ে বরং সরাসরি মুফতি সাহেবদের সাথে যোগাযোগ করলে ভালো হয়। অন্যদিকে প্রতিমাসে একাধিকবার আমাদের মুফতি সাহেবগন জুমের মাধ্যমে সরাসরি প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন। সেই ক্লাসগুলোতেও জয়েন করার জন্য অনুরোধ করা গেল। ক্লাসের সিডিউল: fb.com/iomedu.org

Related questions

...