0 votes
50 views
in ব্যবসা ও চাকুরী (Business & Job) by (100 points)
আসসালামুআলাইকুম,

১) আমি একটা ব্যবসা শুরু করতে চাচ্ছি এবং ব্যবসাটি করতে আমি পার্টনার নিচ্ছি যারা সমান শেয়ারে থাকবে কিন্তু প্রথম মূল ইনভেস্টমেন্ট আমি করতেছি এবং তারা অনেক অল্প ইনভেস্ট করতেছে আমার তুলনায়।তো লাভ হইলে আমরা তিনজন সমানভাগে ভাগ করে নেয়ার সিদ্ধান্ত নিছি এবং লস হইলে আমাদের টাকার অনুপাতে লস হবে এবং আমরা ব্যবসার যাবতীয় কাজ ও ভাগ করে নিছি পরস্পর  এবং সিদ্ধান্তগুলো সন্তুষ্টচিত্তে আমরা পরস্পর নিয়েছি।এভাবে ব্যবসা কি জায়েজ হবে? আমার পার্টনার রা তো লাভ হলে আমার সমান ই পাবে আর লস হলে টাকার অনুপাতে লস হবে।এটা কি আবার সুদ হয়ে যাবে কি?তারা পরবর্তীতে সমান ইনভেস্টমেন্ট ই করবে কিন্তু আপাতত তাদের টাকা কম তাই এই পদ্ধতি অবলম্বন করতে চাচ্ছি।

২) আর  লাভ হলে তারা যদি আমাকে আমাদের প্রথম ইনভেস্টমেন্ট তিনভাগ করলে হিসাব অনুযায়ী মুলধনে যে অতিরিক্ত টাকা আমি দিছি তা যদি ফেরত দিতে চায় তাহলে তা নেয়া জায়েজ হবে কি?
জাযাকাল্লাহ।

1 Answer

0 votes
by (382,000 points)
edited by
ওয়া আলাইকুমুস-সালাম ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু। 
বিসমিল্লাহির রহমানির রহিম।
জবাবঃ-


ব্যবসার ক্ষেত্রে এক পক্ষের মাল,অপর পক্ষের শ্রম দেওয়াকে মুদারাবা বলা হয়।
এটি জায়েজ আছে। 
,
মুদারাবার ক্ষেত্রে শরীয়তের উসুল হলো যাহা লাভ হবে,তাহা শতকরা হারে উভয়ের মাঝে বন্টন করার চুক্তি করতে হবে।
কোনো নির্দিষ্ট টাকার চুক্তি করা যাবেনা,লোকসান হলে সকলেই শরীক থাকতে হবে।
,
হাদীস শরীফে এসেছেঃ     

بَاب الشَّرِكَةِ وَالْمُضَارَبَةِ
حَدَّثَنَا أَبُو السَّائِبِ، سَلْمُ بْنُ جُنَادَةَ حَدَّثَنَا أَبُو دَاوُدَ الْحَفَرِيُّ، عَنْ سُفْيَانَ، عَنْ أَبِي إِسْحَاقَ، عَنْ أَبِي عُبَيْدَةَ، عَنْ عَبْدِ اللَّهِ، قَالَ اشْتَرَكْتُ أَنَا وَسَعْدٌ، وَعَمَّارٌ، يَوْمَ بَدْرٍ فِيمَا نُصِيبُ فَلَمْ أَجِئْ أَنَا وَلاَ عَمَّارٌ بِشَىْءٍ وَجَاءَ سَعْدٌ بِرَجُلَيْنِ .

শারীকাত (অংশিদারী) ও মুদারাবা ব্যবসা
আবদুল্লাহ (রাঃ) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, বদর যুদ্ধের দিন সাদ (রাঃ) , আম্মার (রাঃ) ও আমি গানীমাতের মালের ব্যাপারে অংশীদার হই (এই মর্মে যে, আমরা যা পাবো তা তিনজনে ভাগ করে নিবো)। আম্মার ও আমি কিছুই আনতে পারিনি। অবশ্য সাদ (রাঃ) দু’জন যুদ্ধবন্দী নিয়ে আসেন।
নাসায়ী ৪৬৯৭, আবূ দাউদ ৩৩৮৮, বায়হাকী ফিস সুনান ৪/১৯৪, ইরওয়া ১৪৭৪। 

আরো জানুনঃ- 

★প্রিয় প্রশ্নকারী দ্বীনি ভাই/বোন,
(০১)
প্রশ্নে উল্লেখিত চুক্তি বৈধ,আলহামদুলিল্লাহ। 
আপনারা এভাবে ব্যবসা করতে পারবেন।

(০২)
লাভ হলে তারা যদি হিসাব অনুযায়ী মুলধনে আপনি যে অতিরিক্ত টাকা আমি দিয়েছেন, তা যদি ফেরত দিতে চায়,সেক্ষেত্রে আপনার ও তাদের লভ্যাংশ আগে আলাদা ভাবে বন্টন করে সকলের গ্রহন করতে হবে।

গ্রহন করার পর তারা নিজের পক্ষ থেকে মুলধনে আপনি যে অতিরিক্ত টাকা দিয়েছেন,সেটি দিতে পারবে।

কিন্তু লভ্যাংশ বন্টন করার আগেই আপনাকে সেই টাকা ফেরত হিসেবে দিতে পারবেনা।


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

------------------------
মুফতী ওলি উল্লাহ
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন। উত্তর না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনি প্রতিমাসে সর্বোচ্চ ৪ টি প্রশ্ন করতে পারবেন।

বি.দ্র: প্রশ্ন করা ও ইলম অর্জনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো সরাসরি মুফতি সাহেবের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করা যেখানে প্রশ্নকারীর প্রশ্ন বিস্তারিত জানার ও বোঝার সুযোগ থাকে। যাদের এই ধরণের সুযোগ কম তাদের জন্য এই সাইট। প্রশ্নকারীর প্রশ্নের অস্পষ্টতার কারনে ও কিছু বিষয়ে কোরআন ও হাদীসের একাধিক বর্ণনার কারনে অনেক সময় কিছু উত্তরে ভিন্নতা আসতে পারে। তাই কোনো বড় সিদ্ধান্ত এই সাইটের উপর ভিত্তি করে না নিয়ে বরং সরাসরি মুফতি সাহেবদের সাথে যোগাযোগ করলে ভালো হয়। অন্যদিকে প্রতিমাসে একাধিকবার আমাদের মুফতি সাহেবগন জুমের মাধ্যমে সরাসরি প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন। সেই ক্লাসগুলোতেও জয়েন করার জন্য অনুরোধ করা গেল। ক্লাসের সিডিউল: fb.com/iomedu.org

Related questions

...