0 votes
13 views
in সুন্নাহ-বিদ'আহ (Sunnah and Bid'ah) by (10 points)
আসসালা মুয়ালাইকুম। হযরত সহীহ হাদিসে জুমুয়ার দিন সূরা কাহাফ পাঠের কোন আমল আছে কিনা? সহীহ হাদিসের রেফারেন্স দিলে ভালো হয়।

1 Answer

0 votes
by (59,600 points)
বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।
জবাবঃ- 
বৃহস্পতিবার দিন পরবর্তী শুক্রবার রাত বা শুক্রবার  দিনে সূরা কাহাফ তেলাওয়াতের কথা হাদীসে এসেছে।

হযরত আবু সাঈদ খুদরী রাযি থেকে বর্ণিত
عن أبي سعيد الخدري قال : " من قرأ سورة الكهف ليلة الجمعة أضاء له من النور فيما بينه وبين البيت العتيق "
রাসূলুল্লাহ সাঃ বলেন,যে ব্যক্তি শুক্রবার রাত বা শুক্রবার দিনে সূরা কাহাফ তেলাওয়াত করবে।তার এবং কা'বা ঘরের মধ্যবর্তী স্থানকে নুর দ্বারা ভরপুর করে দেয়া হবে।(সুনানে দারেমি-৩৪০৭,সহীহুল জা'মে-৬৪৭১)

যে ব্যক্তি শুক্রবার দিনে সূরা কাহাফ তেলাওয়াত করবে,পরবর্তী জুমুআহ পর্যন্ত সে নূর দ্বারা আলোকিত থাকবে।
من قرأ سورة الكهف في يوم الجمعة أضاء له من النور ما بين الجمعتين " .
(হাকিম-২/৩৯৯,বায়হাক্বী-৩/২৪৯

ইবনে হাজার রাহ বলেন,সূরা কাহাফ তেলাওয়াত সম্পর্কে এটাই বিশুদ্ধতম হাদীস।(ফয়যুল কাদির-৬/১৯৮)
 
হযরত ইবনে উমর রাযি থেকে বর্ণিত,
وعن ابن عمر رضي الله عنهما قال : قال رسول الله صلى الله عليه وسلم : " من قرأ سورة الكهف في يوم الجمعة سطع له نور من تحت قدمه إلى عنان السماء يضيء له يوم القيامة ، وغفر له ما بين   الجمعتين ".
রাসূলুল্লাহ সাঃ বলেন,যে ব্যক্তি শুক্রবারে সূরা কাহাফ তেলাওয়াত করবে,তার পদপৃষ্ঠ থেকে আকাশের উপর পর্যন্ত কিয়ামতের দিন আলোকিত হবে।এবং পরবর্তী জুমুআহ পর্যন্ত তাকে ক্ষমা করে দেয়া হবে।(আত-তারগিব-১/২৯৮)


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

ﻓَﺎﺳْﺄَﻟُﻮﺍْ ﺃَﻫْﻞَ ﺍﻟﺬِّﻛْﺮِ ﺇِﻥ ﻛُﻨﺘُﻢْ ﻻَ ﺗَﻌْﻠَﻤُﻮﻥَ অতএব জ্ঞানীদেরকে জিজ্ঞেস করো, যদি তোমরা না জানো। সূরা নাহল-৪৩

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন।

Related questions

...