0 votes
11 views
in বিবিধ মাস’আলা (Miscellaneous Fiqh) by (35 points)
আসসালামু আলাইকুম।

কোন কাগজ বা বইয়ে যদি আরবিতে কুরআনের আয়াত বা হাদীস লিখা থাকে তবে সে কাগজ নষ্ট করতে হলে কিভাবে করবো?

এমনিতে আরবি লিখা সংবলিত কাগজ ফেলে দিতে হলে বা নষ্ট করতে হলে কিভাবে তা করবো?

1 Answer

0 votes
by (58,320 points)

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।
জবাবঃ-
পড়ার অনুপযোগী কুরআনে কারিমের নুসখাকে ভাড়ি কোনো জিনিষের সাথে বেধে সেটাকে গভীর পানিতে ছেড়ে দিতে পারেন।বা জ্বালিয়ে ভষ্ম করে সেই ছাইগুলোকে পানিতে ভাসিয়ে দিয়ে দিতে পারবেন।জ্বালানোর চেয়ে পানিতে ছেড়ে দেয়াই উত্তম হবে।

আরবী ভাষা দ্বারা যেহেতু কুরআনকে লিখা হয়েছে।সেজন্য আরবী ভাষাকে এবং আরবী ভাষার হরফ সমূহকে সম্মান করা চাই।তাছাড়া আরবী ভাষার সম্মানের দিক বিবেচনা করার জন্য নিম্নোক্ত হাদীসই যথেষ্ট। হযরত ইবনে আব্বাস রাযি থেকে বর্ণিত
عن ابن عباس ، - رضي الله عنهما - قال : قال رسول الله - صلى الله عليه وآله وسلم - : " أحبوا العرب لثلاث : لأني عربي والقرآن عربي وكلام أهل الجنة عربي "
রাসূলুল্লাহ সাঃ বলেন,তোমরা আরবী ভাষাকে তিনটি কারণে ভালবাসো।(১)কেননা আমি আরবী ভাষী(২)কুরআনের ভাষাও অারবী(৩)এবং জান্নাতিদের ভাষাও অারবী।(মুস্তাদরাকে হাকীম-৭০৮১)

সুতরাং আরবী লিখা কোনো কাগজকে অসম্মান না করাই উচিৎ।


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

ﻓَﺎﺳْﺄَﻟُﻮﺍْ ﺃَﻫْﻞَ ﺍﻟﺬِّﻛْﺮِ ﺇِﻥ ﻛُﻨﺘُﻢْ ﻻَ ﺗَﻌْﻠَﻤُﻮﻥَ অতএব জ্ঞানীদেরকে জিজ্ঞেস করো, যদি তোমরা না জানো। সূরা নাহল-৪৩

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন।

Related questions

...